Cvoice24.com

গরুর হাটে দখলবাজি / পুলিশের দৌড়ানিতে পালালো ছাত্রলীগ নেতা, তিন সহযোগী আটক

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:৩২, ১ জুলাই ২০২২
পুলিশের দৌড়ানিতে পালালো ছাত্রলীগ নেতা, তিন সহযোগী আটক

চট্টগ্রামের বিবির হাট গরুর বাজারে অস্ত্রসস্ত্র ও দলবল নিয়ে ‘খাইন’ (গরু বাঁধার স্থান) দখল করতে গিয়েছিলেন পাঁচলাইশ থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসের রবিন। তবে পুলিশের দৌড়ানি খেয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়েছেন তিনি। এসময় রবিনের ৩ সহযোগীকে রামদাসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

বৃহষ্পতিবার (৩০ জুন) মুরাদপুর এলাকার এক নম্বর রেল গেইট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।  এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১৮টি রামদা উদ্ধার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তার তিনজন হলেন— মো. ফয়সাল, কিরন ও মিনহাজ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজের কিছুক্ষণ পর মুরাদপুর ১ নম্বর রেলগেট এলাকায় দলবল নিয়ে হামলা করেন মোহাম্মদ হোসেন রবিন ও তার অনুসারিরা। বিবিরহাট গরু বাজারের ‘খাইন’ দখল করতেই এই হামলা চালানো হয়। এসময় যুবলীগ নেতা ফিরোজের অনুসারিদের সাথে তার সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। থেমে থেমে রাত ১১টা পর্যন্ত দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে রবিন ও তার অনুসারিরা দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পুলিশ ধাওয়া করে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে।  

স্থানীয় একজন সিভয়েসকে বলেন, ‘বিবিরহাটে মূল বাজারের বাইরেও গরু বাঁধার কিছু খাইন করা হয়। এগুলো স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের নিয়ন্ত্রণে থাকে। তেমন একটা খাইন দখল করতে এসেছিল রবিন। তাদের বাড়ির পাশেই ওই খাইন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে রবিনসহ অনেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। রবিনের কাছে অস্ত্র ছিল এটা সবাই বলছে। পুলিশও তা জানে।’

এই বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় কাউন্সিলর মোবারক আলী সিভয়েসকে বলেন, ‘সন্ধ্যায় স্থানীয়দের কাছে শুনেছি একদল সন্ত্রাসী অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে এলাকায় অবস্থান নিয়েছে। রবিন সেখানে ছিল কিনা জানিনা। তবে রবিনের লোকজন ছিল যতটুকু জেনেছি। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।’

দিনভর চেষ্টা করেও এই বিষয়ে পাঁচলাইশ থানা পুলিশের সুনির্দিষ্ট বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি। এই বিষয়ে জানতে চাইলে পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান মামলা দায়ের হলে বিস্তারিত জানানোর কথা বলেন।

পরে স্থানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্যের বিষয় উল্লেখ করে বিস্তারিত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। অন্যান্যরা অস্ত্র ফেলে পালিয়ে যায়।’

সিভয়েস/এআরটি

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়