Cvoice24.com

হাটহাজারী মাদরাসা পরিচালনায় দায়িত্বে যারা

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২:৩৬, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
হাটহাজারী মাদরাসা পরিচালনায় দায়িত্বে যারা

ফাইল ছবি

বহুল কাঙ্কিত হাটহাজারী মাদরাসার শুরা কমিটির বৈঠকে উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেম মুফতি আব্দুস সালাম চাটগামীকে মহাপরিচালক করার পরপরই অসুস্থ হয়ে তিনি মৃত্যবরণ করেছেন। ফলে ভারপ্রাপ্ত মুহতামিম (মহাপরিচালক) হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন মাওলানা ইয়াহিয়া। পাশাপাশি মাওলানা শেখ আহমদকে প্রধান শায়খুল হাদিস এবং মুফতি জসিম উদ্দিনকে সহযোগী পরিচালক করা হয়। যদিও প্রথম দিকে মাওলানা ইয়াহিয়াকে সহযোগী পরিচালক করা হয়েছিল।  

বুধবার সকাল ১১ টার দিকে হেফাজতের আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর সভাপতিত্বে শুরা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এছাড়া মুফতি জসিম উদ্দিনকে সহযোগী পরিচালক, মাওলানা কবির আহমদকে শিক্ষা পরিচালক ও মাওলানা ওমর কাসেমীকে সহকারী শিক্ষা পরিচালক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। 

হাটহাজারী মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী বলেন, ‘শুরা কমিটির বৈঠকে নেওয়া সিদ্ধান্ত আনুষ্ঠানিক ঘোষণার আগেই হুজুর মারা যান। এখন শুরা কমিটি আবার কি সিদ্ধান্ত দেয় তারা দেখতে হবে।’ 

পরে মাদ্রাসার শূরা সদস্য ও ফটিকছড়ির নানুপুর মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা সালাহউদ্দিন বলেন, ‘মুফতি আব্দুস সালামের মৃত্যুর পর ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক হিসেবে মুফতি ইয়াহিয়ার নাম ঘোষণা করে শুরা বৈঠক মুলতবি ঘোষণা করা হয়।’

এরআগে বুধবার সকালে শুরা কমিটির বৈঠকে মাদারাসার মহাপরিচালক হিসেবে মুফতি আব্দুস সালাম চাটগামীকেই বেছে নেওয়া হয় আহমদ শফীর যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে। হেফাজতের আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর সভাপতিত্বে শুরা কমিটির বৈঠক শুরু হয়। তবে শারীরিক অসুস্থতার কারণে বৈঠকে না গিয়ে নিজ কক্ষে অবস্থান করছিলেন আব্দুস সালাম। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তাকে একটি অ্যাম্বুলেন্সে করে পাশের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। 

এদিকে শুরা কমিটির বৈঠককে কেন্দ্র করে হাটহাজারী মাদরাসায় কড়া নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে কর্তৃপক্ষ। শাহী গেট দিয়ে কাউকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। এমনকি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও সাংবাদিকদেরও প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। তবে মুফতি আব্দুস ছালামের আকষ্মিক মৃত্যুর খবরে সেখানকার চিত্র পাল্টে যায়। মাদরাসার হাজার হাজার ছাত্র-শিক্ষক কান্নায় ভেঙে পড়েন। 

শুরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন— হেফাজত মহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী, মাওলানা আব্দুল মালেক, মাওলানা সালাহউদ্দিন নানুপুরী, মাওলানা মাহমুদুল হাসান ফতেপুরী, মুফতি হাবিবুর রহমান কাসেমী নাজিরহাট, মাওলানা ইয়াহিয়া হাটহাজারী, মাওলানা ওমর ফারুক, ঢাকা মাদানি নগর মাদ্রাসার পরিচালক মুফতি ফয়জুল্লাহ সন্দ্বীপী।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৭ সেপ্টেম্বর আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুর পর এককভাবে কাউকে মহাপরিচালক পদ না বানিয়ে তিনজনকে পরিচালনা কমিটির সদস্য করা হয়। এই তিনজন ছিলেন- হাটহাজারী মাদরাসার প্রধান মুফতি মুফতি আব্দুস সালাম, সহকারী পরিচালক মাওলানা শেখ আহমদ ও মাওলানা ইয়াহইয়া।

এছাড়া মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীকে শিক্ষা পরিচালক ও শায়খুল হাদিস হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। চলতি বছরের ১৯ আগস্ট তার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ওই পদ দুটিও শূন্য হয়। আর আজকে মারা যান নব নির্বাচিত মহাপরিচালক মুফতি আব্দুস সালাম। 

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়