Cvoice24.com
corona-awareness

লোহাগাড়ায় একের পর এক ডাকাতি, এবার একসঙ্গে ৩ মন্দিরে চুরি

লোহাগাড়া প্রতিনিধি 

প্রকাশিত: ২০:২৯, ২২ জুন ২০২১
লোহাগাড়ায় একের পর এক ডাকাতি, এবার একসঙ্গে ৩ মন্দিরে চুরি

তিনটি মন্দিরের মধ্যে এটি একটি মন্দির যেখানে চোরের দল হানা দিয়ে লুটে নিয়েছে মূল্যবান স্বর্ণালংকার

লোহাগাড়ায় একের পর এক ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। পরপর দুই প্রবাসীসহ তিন বাড়িতে ডাকাতির ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে এবার একসঙ্গে তিন মন্দিরে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রতিমার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন, হাতের আঙ্গুলের আংটি ও নগদ টাকাসহ বেশকিছু মালামাল খোয়া গেছে বলে জানিয়েছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। 

সোমবার (২২ জুন) দিবাগত রাতে বড়হাতিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড হিন্দু পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ওয়ার্ডের হিন্দুপাড়া শ্রী শ্রী সর্বমঙ্গলা কালী মন্দির, হাঁছিরামসাধু আশ্রম ও তপোবন কল্পতরু রক্ষাকালী মন্দির চোরের দল হানা দেয়।

লোহাগাড়া পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি সদস্য সুনীল সরকার বিষয়টি নিশ্চিত চুরির ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মন্দিরে চুরির ঘটনা দুঃখজনক। এভাবে মন্দিরের চুরির ঘটনা আর কখনো ঘটেনি। ৩ মন্দিরে প্রতিমার গলার স্বর্ণের চেইন, হাতের আঙ্গুলে থাকা আংটি ও নগদ টাকা লুট করেছে চোরের দল। সবমিলিয়ে প্রায় তিন লাখ টাকার মালামাল খোয়া গেছে। 

লোহাগাড়ার বড়হাতিয়ায় এভাবে তালা কেটে চোরের দল

স্থানীয় ইউপি সদস্য তিনটি মন্দির চুরির কথা বললেও চুনতি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. রফিকুল ইসলাম জমান বলছেন দুটি মন্দিরে চুরির কথা। তিনি বলেন, বড়হাতিয়া এলাকায় দুটি মন্দিরে চুরির ঘটনা ঘটেছে। আরেকটি মন্দিরের দানবক্স চুরি হয়েছে। এ ঘটনায় মন্দির কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করছে। তবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি কোন উত্তর দেননি।

এদিকে মন্দিরের ‍চুরির ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়া রহমান জিকু, লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহামুদ, চুনতি পুলিশ ফাঁড়ির কর্মকর্তা রাফিকুল ইসলাম জামান ও বড়হাতিয়া ইউপি চেয়ারম্যান এমডি জুনাঈদ চৌধুরী। 

সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়া রহমান জিকু বলেন,  খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তদন্ত করে জড়িতদের শনাক্তের দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পরপর ডাকাতির ঘটনা এবার ৩ মন্দিরে একসঙ্গে চুরি আইনশৃঙ্খলার অবনতি কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ রাখতে পুলিশি তৎপরতা অব্যাহত আছে। চুরির ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করতে পুলিশের টিম মাঠে কাজ করছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ জুন পশ্চিম কলাউজানের হাসান আলী মিয়াজান পাড়ায় সৌদি প্রবাসী আব্দুস শুক্কুরের বাড়িতে হানা দেয় ডাকাতদল। ওই প্রবাসীর বাড়িতে কেউ না থাকায় তারা হামলে পড়ে ভাড়াটিয়া আগ্রাবাদ সিএমবি কলোনী মসজিদের পেশ ইমাম আবুল কাশেমের বাসায়। সিঁড়ি ঘরের উপরের টিনের চালা কেটে বাড়িতে প্রবেশ করে সবাইকে এক রুমে আটকে রাখে। একপর্যায়ে তার ছেলে হামেদ হাসান ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে এবং মোবাইল ফোনে বিভিন্ন লোকজনকে জানায়। এতে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ডাকাতদল ফাঁকা গুলি ছাড়তে ছাড়তে পালিয়ে যায়। যদিও ততক্ষণে নগদ ৬৮ হাজার টাকা ও ৪ ভরি স্বর্ণলংকারসহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে নেয় তারা। পরে পুলিশের দুটি টিম এসে ঘটনাস্থল থেকে দেশিয় তৈরি ছুরি, গ্রিল কাটার কাঁচি, খুন্তি, বল্লম উদ্ধার করে। 

এরপর ১৬ জুন (বুধবার) রাতে লোহাগাড়া সদর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের হাজি পাড়ায় আরেক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতদল হানা দেয়। সেখানে বাড়ির লোকজনকে জিম্মি করে ৬ ভরি স্বর্ণালংকার, নগদ ২২ হাজার টাকা, ৩টি মোবাইলসেট ও মূল্যবান ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী নিয়ে যায়। আর একই সপ্তাহের রবিবারে গত রবিবার রাতে উপজেলার পশ্চিম আমিরাবাদ ঘোনা পাড়া এলাকায় খাবারের সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান কাগজপত্র লুটে নেয় দুর্বৃত্তরা। এতে প্রায় ১০ জন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়