Cvoice24.com
corona-awareness

কাল ঈদ করবেন চট্টগ্রামের অনেকেই

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:১৪, ১২ মে ২০২১
কাল ঈদ করবেন চট্টগ্রামের অনেকেই

তারা একদিন আগে রোজা রাখেন এবং ঈদও উদযাপন করেন একদিন আগে

আরব দেশগুলোর সঙ্গেই আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১৩ মে) ঈদুল ফিতর উদযাপন করবেন চট্টগ্রামের প্রায় ৬০ গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ। দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার মির্জাখীল দরবার শরীফের অনুসারীরা প্রায় দীর্ঘ ২০০ বছর আগে থেকেই তাদের এই রীতি। 

জানা যায়, মির্জাখীল দরবার শরীফের অনুসারীদের বসবাস মূলত দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া, চন্দনাইশ, লোহাগাড়া, বাঁশখালী, পটিয়া, আনোয়ারা, বোয়ালখালী ৬০ গ্রামে। সৌদি আরবের সময়ানুযায়ী, তারা বাংলাদেশের একদিন আগে রোজা রাখেন। ঈদও উদযাপন করে থাকেন একদিন আগে।

সৌদি আরবের আকাশে মঙ্গলবার (১১ মে) পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে এ বছর সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে ৩০ রমজান পূর্ণ হবে। আর ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে বৃহস্পতিবার।

এ ব্যাপারে মির্জাখীল দরবার শরীফের পরিচালনা কমিটির সচিব বজলুর রহমান ও পীরজাদা মোহাস্মদ মছউদুর রহমান বলেন, ‘আমরা যেহেতু সৌদি আরবের দিনক্ষণ অনুসরণ করি, সে অনুযায়ী বৃহস্পতিবার ঈদ করব। এছাড়া বোয়ালখালী, হাটহাজারী, সন্দ্বীপ, ফটিকছড়ি, আলীকদম, নাইক্ষ্যংছড়ি, কক্সবাজার, টেকনাফ, মহেশখালী, কুতুবদিয়া, চন্দনাইশের বেশ কয়েকটি গ্রামেও মির্জাখীল দরবার শরীফের অনুসারী রয়েছেন। তারাও বাংলাদেশের একদিন আগেই ঈদ পালন করবেন।’

ইতোমধ্যে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের জন্য প্রস্তুতি শুরু করছে সাতকনিয়ার মির্জাখীল দরবার শরীফ কর্তৃপক্ষ। দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলা ছাড়াও দেশের অন্যান্য স্থানে থাকা তাদের অনেক অনুসারী ঈদের নামাজ আদায়ের জন্য দরবার শরীফে চলে আসবেন। বৃহস্পতিবার সকালে দরবার শরীফের মাঠে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় শেষে যার যার এলাকায় ফিরে যাবেন তারা।

যেসব গ্রামে বৃহস্পতিবার ঈদ
সাতকানিয়া উপজেলার মির্জাখীল, সোনাকানিয়া, গারাঙ্গিয়া, চরতী, বাজালিয়া, ছদাহা, কেওচিয়া ও গাটিয়াডাঙ্গা, খোয়াছপাড়া, বাংলাবাজার, মইশামুড়া, বাজালিয়া ও কাঞ্চনা। 

লোহাগাড়া উপজেলার কলাউজান, বড়হাতিয়া, পুটিবিলা, চরম্বা, আমিরাবাদ, চনুতি, আদুনগর ও উত্তর সুখছড়ি।

চন্দনাইশ উপজেলার বাইনজুড়ি, বরকল, ফকিরপাড়া, বরমাপাড়া, পশ্চিম এলাহাবাদ, কাঞ্চননগর, মাইজপাড়া, জুনিঘোনা, আব্বাসপাড়া, মাঝেরপাড়া, দক্ষিণ কাঞ্চনগর, ছৈয়দয়াবাদ, খুনিয়াপাড়া, হাশিমপুর, কেশুয়া, সাতবাড়িয়া, মুহাম্মদপুর ও হারালা।

বাঁশখালী উপজেলার জালিয়াপাড়া, ছনুয়া, মক্ষিরচর, চাম্বল, শেখেরখীল, ডোংরা, তৈলারদ্বীপ, সাধনপুর, জলদি, কালিপুর, গুনাগড়ি, মিঞ্জিরিতলা ও গন্ডামারা। 

পটিয়ার চরকানাই, জহাইদগাঁও, শ্রীমাই, কাগজিপাড়া, শিকলবাহা, শান্তিরহাট, বাহুলী ও ভেল্লাপাড়া। আনোয়ারা উপজেলার বারখাইন, বাথুয়া ও তৈলারদ্বীপ। বোয়ালখালীর চরনদ্বীপ ও খরনদ্বীপ।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়