Cvoice24.com

চমেকে সংঘর্ষ : এবার নাছির অনুসারির মামলা

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:৫৫, ১ নভেম্বর ২০২১
চমেকে সংঘর্ষ : এবার নাছির অনুসারির মামলা

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় আরও একটি মামলা হয়েছে। রোববার রাতে চকবাজার থানায় মাহমুদুল হাসান নামের এক শিক্ষার্থী মামলাটি করেন। তিনি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারি হিসেবে পরিচিত।

মামলার আসামিরা হলেন-  চমেক ৬২তম এমবিবিএস ব্যাচের জাকির হোসেন সায়াল, মঈনুল ইসলাম, জুলফিকার মোহাম্মদ শোয়েব, মাহিন আহমেদ, ইমাম হাসান, মোহাম্মদ শরীফ, সৌরভ দেবনাথ, ইমতিয়াজ আলম, মো. হাবিবুল্লাহ হাবিব, আহমেদ সিয়াম, সাজু দাস, সাজেদুল ইসলাম হৃদয়, মো. সাইফুল্লাহ, অভিজিৎ দাস, এস এম ফাহাদুল ইসলাম, মো. তৌফিকুর রহমান ইয়ন। তারা শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারি হিসেবে পরিচিত।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, পূর্ব শত্রুতার জেরে পরিকল্পিত ভাবে গত ২৯শে অক্টোবর রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের প্রধান ছাত্রাবাসে উল্লেখিত ব্যক্তিরা ছোরা, হকিস্টিক, কিরিচ ও লোহার রোড নিয়ে রুমে প্রবেশ করে অতর্কিত হামলা চালায়। ওই হামলায় দুজন ছাত্রলীগ নেতা গুরুতর আহত হয়। আহতরা হলেন, ৬১তম ব্যাচের মাহফুজুল রহমান এবং ৬২তম ব্যাচের নাইমুল ইসলাম। আহত দুইজন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সার্জারী নিউরোসার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন।

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ফেরদৌস জাহান বলেন, চমেকের ঘটনায় মাহমুদুল হাসান নামে এক শিক্ষার্থী থানায় মামলা করেছেন। মামলায় ১৬ জনকে আসামি করা হয়েছে। 
 
এরআগে একই ঘটনায় নগরের পাঁচলাইশ থানায় ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন  শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারি হিসেবে পরিচিত পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থী তৌফিকুর রহমান। 

শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১১টায় এবং শনিবার (৩০ অক্টোবর) সকাল নয়টায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শনিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মেডিক্যাল কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি সন্ধ্যার মধ্যে হোস্টেল ছেড়ে যেতে শিক্ষার্থীদের নির্দেশ দেওয়া হয়। নির্দেশ অনুযায়ী সন্ধ্যায় আবাসিক হোস্টেল ছেড়ে যান সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়