Cvoice24.com

কম্বল চাঁদর টুপি নিয়ে শীতার্তদের পাশে চন্দনাইশের ইউএনও

চন্দনাইশ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২২:৪১, ১৭ জানুয়ারি ২০২২
কম্বল চাঁদর টুপি নিয়ে শীতার্তদের পাশে চন্দনাইশের ইউএনও

সড়কের পাশে শীতার্থ এক বৃদ্ধকে শীতবস্ত্র দিচ্ছেন ইউএনও সাদিয়া ইসলাম

মাঘের শুরু হতে না হতেই হাঁড় কাপাচ্ছে শীত। শুরুতে কোনোমতে সামাল দেওয়া গেলেও যবুথবু এই শীতকে আর মানাতে পারছেন না হতদরিদ্ররা। স্থানীয়দের কাছ থেকে এমন হতদরিদ্র মানুষের খোঁজ নিয়ে তাদের বাড়ি বাড়ি ছুঁটছেন চন্দনাইশের ইউএনও সাদিয়া ইসলাম। 

কোনো ধরনের আনুষ্ঠানিকতা ছাড়া তিনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার কম্বল, চাঁদর, টুপি নিয়ে উষ্ণতায় জড়িয়ে দিচ্ছেন তাদের। এতে অবাক হয়েছেন অনেকে। কেননা একে শীতের রাত, অন্যদিকে ইউএনও নিজ হাতেই এসব শীতবস্ত্র নিয়ে উপস্থিত হয়েছেন। 

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) শীতবস্ত্র নিয়ে যান স্থানীয় একটি এতিমখানায়। সেখানে তিনি এতিম ছাত্রদের মাঝে শীতবস্ত্র তুলে দেন। একইসঙ্গে মাদ্রাসার এতিম শিক্ষার্থীদের আবাসিক পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনের সময় তিনি মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে শীতের রাতে শিক্ষার্থীদের মেঝের বিছানা, মশারিসহ পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার বিষয়ে সজাগ থাকার নির্দেশ দেন। এছাড়া শিক্ষার্থীদের কোরআন হাদীস শিক্ষার পাশাপাশি দেশপ্রেম, সামাজিক মূলবোধের বিষয়ে শিক্ষা দিতে বলেন।

শীতবস্ত্র বিতরণ করতে গিয়ে এতিমখানার ছাত্রদের আবাসিক কক্ষ পরিদর্শন করছেন ইউএনও

মাদ্রাসায় যাওয়ার পথে ভবঘুরে, স্থানীয় অসহায় মানুষকেও শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। আদর মাখানো তার হাতে কম্বল জড়িয়ে দিয়ে তাদের খোঁজ-খবরও নেন তিনি।

কম্বল পাওয়া আবদুর রহিম বলেন, গত কিছুদিন ধরে প্রচণ্ড শীত পড়ছে। চাঁদর জড়িয়ে চায়ের দোকানে বসেছিলাম। ইউএনও ম্যাডাম যাওয়ার পথে আমাকে দেখে গাড়ি থেকে নামেন। সংসারের কথা জানতে চেয়ে গাড়ির পেছন থেকে কম্বল এনে আমাকে দেন। 


 
শীতবস্ত্র বিতরণে কার্যক্রমে ইউএনওর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহফুজা জেরিন ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মো. রিয়াদ হোসেন।

ইউএনও সাদিয়া ইসলাম বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে খোঁজখবর নিয়ে নিতান্ত্যই শীতে কষ্ট করছে এমন লোকদের শীতবস্ত্র পৌঁছে দিচ্ছি। যারাই প্রকৃতভাবে এসবের হকদার তাদের দিতেই আমি নিজে যাচ্ছি। সরকারের পাশাপাশি প্রতিবেশিরাও যার যার সামর্থ্যমতো এগিয়ে এলে কেউ কষ্ট পাবে না।  

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়