Cvoice24.com

ছাত্রলীগের বাধার মুখে সন্দ্বীপে প্রতিবাদ মিছিল থেকে সরে আসলো বিএনপি

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫:১৫, ২৮ আগস্ট ২০২২
ছাত্রলীগের বাধার মুখে সন্দ্বীপে প্রতিবাদ মিছিল থেকে সরে আসলো বিএনপি

ছাত্রলীগ বাধার মুখে এবং প্রশাসনের অসহযোগিতায় অবশেষে সন্দ্বীপে কর্মসূচি না করার কথা জানিয়েছে বিএনপির নেতারা। এর আগে রবিবার ২টা পর্যন্ত কর্মসূচি পালনের চেষ্টা করছিলো দলটির নেতারা। এদিকে বিএনপির মিছিলকে কেন্দ্র করে গত কয়েকদিন ধরেই উত্তপ্ত ছিলো সন্দ্বীপের রাজনৈতিক আঙ্গন। বিএনপি নেতারা জানিয়েছেন গত কয়েকদিন ধরে তাদের দলীয় নেতাকর্মীদের উপর দফায় দফায় হামলার ঘটনা ঘটেছে।

রবিবার (২৮ আগস্ট) জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্রঘোষিত প্রতিবাদ মিছিল ছিল সন্দ্বীপে। এই মিছিলকে প্রতিহত করার ঘোষণা আগেই দিয়েছিল সন্দ্বীপ উপজেলা ছাত্রলীগ।  

বিএনপির মিছিলের বাতিলের বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্ববায়ক ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন সিভয়েসকে বলেন, ‘আমাদের আজ কেন্দ্র ঘোষিত মিছিল ছিল সন্দ্বীপ উপজেলায়। আমরা আগেই সেটা জেলা পুলিশ সুপারকে অবহিত করেছি। কিন্তু পরে সেখানে পাল্টা কর্মসূচি ঘোষণা করে ছাত্রলীগ। আমরা আজ দুইটা পর্যন্ত প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ রেখেছি। ওসি সহিদুল ইসলাম আমাদের জানিয়েছেন সেখানে ছাত্রলীগের অনুষ্ঠানে অনুমতি দিয়েছে উপজেলা নির্বাহী। তাছাড়া গত কয়েকদিন টানা আমাদের নেতাকর্মীদের উপর হামলা হচ্ছে। অনেকের বাড়ি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও হামলা হচ্ছে। আজকে আমরা মিছিল করছি না। সেই পরিবেশ পরিস্থিতি নাই।'

তিনি বলেন, 'কালাপানিয়া ইউনিয়ন বিএনপি সদস্য সচিব হাজী নিজাম, উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য জননেতা জয়নাল আবেদীন বাকের, মাইটভাংগা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি সাইফুল, বাবুল হুজুরসহ অনেকে আহত হয়েছে, গাছুয়া ইউনিয়ন বিএনপির নেতা পান্না এবং নেজাম সওদাগরের দোকানের দরজা-টিন কেটেছে। আমার বাড়িতে হামলা করছে। বিএনপির নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। সাংসদ মিতা নিজে হুমতি-ধমকি দিয়েছেন। শোডাউন দিয়েছেন। এসব কারণে সেখানে একটা ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।'

এদিকে সকাল থেকে বিএনপির মিছিল ঠেকাতে উপজেলা পরিষদ চত্বরে অবস্থান নেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। সেখানে মিছিল নিয়ে যোগ দেয় বিভিন্ন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এর আগে সাংসদ মিতা নিজেও শোডাউন দেন সন্দ্বীপে। গত কয়েকদিন ধরেই বিভিন্ন এলাকায় বিএনপি নেতারা বাড়িছাড়া ছিলো বলে বিভিন্ন সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের অবস্থান কর্মসূচির এক পর্যায়ে সেখানে উপস্থিত হয়ে বক্তব্যও রাখেন সাংসদ মিতা। সেখানে তিনি বলেন, ‘২০০১ সালের নির্বাচন পরবর্তী বিএনপি-জামায়াত আমাদের লোকজনের ক্ষতি করেছে, আমাদের বসত ঘরে আগুন দিয়েছে, আমাদের ভিটে-মাটি ছাড়া করেছে। আজকে সেই বিএনপি জামায়াত আসছে আমাদের নীতিকথা শেখাতে। 

২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করলে আওয়ামী নেতৃবৃন্দ শান্তির ডাক দেন। গড়ে তোলা হয় সহাবস্থান। অথচ আজ সেই বিএনপি-জামায়াত শান্ত সন্দ্বীপকে অশান্ত করার পাঁয়তারা করছে, নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। এটা হতে দেয়া হবে না, এটা মেনে নেয়া যাবে না’

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়