Cvoice24.com

সাতকানিয়ায় গাড়ি সাইড না দেওয়ায় চালককে পেটালো ছাত্রলীগ নেতা

সাতকানিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১১:৫৮, ১৪ জুন ২০২২
সাতকানিয়ায় গাড়ি সাইড না দেওয়ায় চালককে পেটালো ছাত্রলীগ নেতা

ক্ষতিগ্রস্ত প্রাইভেট কার

সাতকানিয়ায় শফিউল আলম সোহেল নামে সাবেক এক ছাত্রলীগ নেতার মোটরসাইকেলকে সাইট না দেয়ায় সড়কে গতিরোধ করে চালককে মারধর ও প্রাইভেট কার ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার (১৩ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে জনার কেঁওচিয়া কেরানীহাট-বান্দরবান সড়কের কালু শাহ বকসু ফকিরের মাজার এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। 

হামলাকারী শফিউল আলম সোহেল সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ একাংশের সাবেক সভাপতি।  

জানা যায়, সোমবার  বিকেল সাড়ে ৩টার সময় এসবিএম নামের ইটভাটা মালিক আবু তাহের নিজের প্রাইভেট কার যোগে বাজালিয়া থেকে কেরানীহাটের দিকে আসছিলেন। এসময় সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা শফিউল আলম সোহেল মোটরসাইকেলযোগে আসতে থাকেন এবং কার ওভাটেক করার চেষ্টা করেন। পেছনে সাইট না পেয়ে সড়কের পাশ দিয়ে প্রাইভেট কারের সামনে এসে গতিরোধ করে চালকের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে সোহেল ও কার চালক পরস্পর হাতাহাতি লিপ্ত হয়।

কিছুক্ষণ পরে শফিউল আলমের কয়েকজন অনুসারী ঘটনাস্থলে এসে প্রাইভেট কার চালক মোস্তাফিজুর রহমান ও মালিক আবু তাহেরকে গাড়ি থেকে নামিয়ে বেধড়ক মারধর ও প্রাইভেট কার ভাঙচুর চালায়। আহত গাড়ির মালিক ও চালককে স্থানীয় লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।  

 এ বিষয়ে শফিউল আলম সোহেল বলেন, সড়কের পূর্বদিক থেকে মোটরসাাইকেলে করে কেরানীহাটের দিকে যাচ্ছিলাম। সামনের একটি প্রাইভেট কারের কাছে বারবার সাইট চাইলেও চালক তাতে কর্ণপাত করেননি। পরে সড়কের পাশ দিয়ে প্রাইভেট কারের সামনে এসে চালককে কারণ জানতে চাইলে তিনি আমার  সাথে খারাপ ব্যবহার করেন। এ সময় ওই চালক গাড়ি থেকে নেমে আমার শার্টের কলার ধরে টানাটানি করলে স্থানীয় কিছু ছেলে ও গাড়ির গ্যারেজের কর্মীরা এসে ওই চালককে কয়েকটি চড়-থাপ্পড় দেয়।

কারের মালিক আবু তাহের বলেন, বাজালিয়া থেকে আসার সময় কেরানীহাট কালু শাহ বকসু ফকিরের মাজার এলাকায় যানজটে আটকা পড়ি। এ সময় শফিউল আলম সোহেল তাঁর বাইককে সাইট কেন দেয়া হয়নি এ কথা বলে কারের চালক ও আমাকে মারধর করতে থাকেন। এক পর্যায়ে তাঁর লোকজন লাঠিসোঠা নিয়ে এসে আমার কারটি ভাঙচুর করে চলে যান। 

সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেক মোহাম্মদ আবদুল হান্নান বলেন, প্রাইভেট কারের চালক ও মালিককে মারধরসহ গাড়ি ভাংচুরের বিষয়ে থানায় কেউ  অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পাওয়া গেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগতভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়