Cvoice24.com

বিএম ডিপোতে বিস্ফোরণ/ তিন মাস পর নিহত হাসেমের পা ফেরত দিল পুলিশ

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২১:৩৬, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
তিন মাস পর নিহত হাসেমের পা ফেরত দিল পুলিশ

চট্রগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম ডিপোতে বিস্ফোরণের ঘটনায় আবুল হাসেম নামে এক ব্যক্তি নিহত হন। সেসময় ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে শনাক্ত করে পরিবারের কাছে হাসেমের লাশও হস্তান্তর করে পুলিশ। কিন্তু বিস্ফোরণে তার ছিন্ন বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া শরীরের অন্য সব অঙ্গ পাওয়া গেলেও একটি পা পাওয়া যায়নি। ঘটনার ৩ মাস পর আজ মর্গে সংরক্ষিত ১৪ টি নমুনার মধ্যে তিনটি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। সেই ফলাফলের ভিত্তিতেই নিহত আবুল হাসেম বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া পা তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে সংরক্ষিত ১৪ টি নমুনার মধ্যে তিনটি নমুনার ফলাফলের ভিত্তিতে নিহতদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সীতাকুণ্ড থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত সুমন বণিক জানান, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে সংরক্ষিত ১৪ টি নমুনার মধ্যে তিনটি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে আজ। ফলাফল অনুযায়ী পাওয়া লাশের ডিএনএ নমুনা যাদের সাথে মিলেছে তাদের পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। হস্তান্তরকৃত দুটি লাশের একটি নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার চৌরংগী বাজার এলাকার হেদায়েত উল্লাহর ছেলে মাইন উদ্দিনের (২৩) ও অপরটি একই জেলার কোম্পানীগন্জ উপজেলার সিরাজপুরের মৃত আবুল কাসেমের পুত্র মো. জুয়েলের (৩১)। 

তিনি আরও জানান, তিনটির অপর একটি নমুনা সীতাকুণ্ড উপজেলার কুমিরা ইউনিয়নের মসজিদ্দা এলাকার মো. ছবিরের পুত্র আবুল হাসেমের। তবে এর আগে গত ৭ জুলাই ডিএনএ পরীক্ষায় শণাক্তের মাধ্যমে হাসেমের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছিল পুলিশ। আরও ১১টি নমুনার ফলাফল এখনো পাওয়া যায়নি। 

উল্লেখ্য, গত ৫ জুন রাত সোয়া ৯টার দিকে বিএম কনটেইনার ডিপোতে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের আগুন নেভানোর চেষ্টার মধ্যে ঘণ্টা দু-একের মাথায় রাসায়নিকের কনটেইনারে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। এ ভয়াবহ বিস্ফোরণে ৫২ জন মানুষের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়