Cvoice24.com

চবিতে রেল ক্রসিং অবরোধ স্থানীয়দের

চবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০:১৭, ২২ মে ২০২২
চবিতে রেল ক্রসিং অবরোধ স্থানীয়দের

আসবাবপত্র ভাঙচুরের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক নম্বর রেল ক্রসিং এলাকা অবরোধ করেছে স্থানীয়রা। 

রোববার (২২ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সেখানে ব্যারিকেড দিয়ে অবস্থান নেন তারা। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্ট থেকে এক নম্বর গেট পর্যন্ত যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে।

এর আগে রোববার দুইটার দিকে ছাত্রলীগের একাংশ বিজয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের সাথে স্থানীয়দের উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই নম্বর গেটে পাঁচ ছাত্রলীগ কর্মীকে এলোপাতাড়ি মারধর করলে এই ঘটনার সূত্রপাত হয় বলে জানা যায়। এর জের ধরে বিজয় গ্রুপের কর্মীরা স্থানীয়দের এলাকায় প্রবেশ করে ঘরের টিন ও আসবাবপত্র ভাঙচুর করার অভিযোগ পাওয়া যায়। পরে এর প্রতিবাদে সন্ধ্যায় এক নম্বর রেল ক্রসিং এলাকা অবরোধ করে স্থানীয়রা।

ভাঙচুরের বিষয়টি অস্বীকার করে বিজয় গ্রুপের নেতা মো. ইলিয়াস বলেন, স্থানীয় উশৃঙ্খল কিছু যুবক আমাদের ৫ কর্মীদের অহেতুক মারধর করে। আমাদের ছেলেরা উত্তেজিত হলেও প্রশাসনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সবাই হলে ফিরে আসে। এখন উল্টো স্থানীয়রাই অবরোধ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ ছাত্রদের ক্যাম্পাসে ঢুকতে দিচ্ছে না। স্থানীয়দের মধ্যে যারা এমন কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত তাদের বিচার চাই। এর আগেও স্থানীয়রা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মারধর করার কথাও জানান তিনি।

জানা যায়, দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই গেট এলাকায় ছাত্রলীগের বিজয় গ্রুপের এক কর্মীরা মোটরসাইকেল সাথে এক রিক্সার ধাক্কা লাগে। ধাক্কায় মোটরসাইকেলের কিছু অংশ ভেঙে যায়। পরে ওই ছাত্রলীগ কর্মী ধাক্কার কারণ জিজ্ঞেস করতে গেলে চালকের সাথে তার্কাতর্কি হয়। এসময় স্থানীয় এক যুবক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের অহেতুক গালাগাল করতে থাকে। পরে বিজয়ের আরও পাঁচ কর্মী বিষয়টি মীমাংসা করতে আসলে স্থানীয়দের কয়েকজন তাদের এলোপাতাড়ি মারধর করে। এসময় রামদা নিয়ে ছাত্রদের গলায় ধরে হুমকিও দেয় স্থানীয়রা। এই খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে বিজয় গ্রুপের জুনিয়র নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে স্থানীয়দের এলাকায় ঢুকে আসবাবপত্র ভাঙচুর করে। পরে প্রক্টরিয়াল বডি পুলিশের সহায়তায় ছাত্রলীগ কর্মীদের শান্ত করে। 

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, ছাত্রদের সাথে স্থানীয়দের মধ্যে সামান্য ঝামেলা হয়েছিল। ছাত্ররা উত্তেজিত হয়ে স্থানীয়দের এলাকায় ঢুকে পড়ে। পরে প্রক্টরিয়াল বডি ও হাটহাজারী থানা পুলিশ এসে ছাত্রদেরকে হলে ফিরিয়ে নিয়ে যায়। তবে স্থানীয়রা দাবি করেছে তাদের আসবাবপত্র ভাঙচুর করেছে। এর প্রতিবাদে স্থানীয়রা এক নম্বর রেল ক্রসিং এলাকা অবরোধ করেছে। আমরা কথা বলে মীমাংসা করার চেষ্টা করছি।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়