Cvoice24.com

কক্সবাজারে মৃত ব্যক্তির নামে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের জরিমানা নোটিশ !

প্রকাশিত: ১৬:৪২, ১৭ জানুয়ারি ২০২২
কক্সবাজারে মৃত ব্যক্তির নামে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের জরিমানা নোটিশ !

মৃত ব্যক্তির নামে পাঠানো হলো পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের জরিমানা নোটিশ।

কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে এক মৃত ব্যক্তির নামের স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ অফিস জরিমানা দাবি করে নোটিশ পাঠিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এঘটনায়  এলাকায় ব্যাপক  তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এজিএমের স্বাক্ষরিত নোটিশ পেয়ে হতবাক হয়ে গেছে মৃত ব্যক্তির ছেলেসহ অন্যান্যরা। পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ভুতুড়ে বিল নোটিশের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিবে বলে জানান ছেলে তৌহিদ ।

ঘটনাটি ঘটে ঈদগাঁও উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের ভাদিতলা গ্রামের ছগির আহমেদের ছেলে মৃত মো. ইব্রাহিমের পরিবারে।

 প্রাপ্ত নোটিশ থেকে জানা যায়, বিগত ১০ ডিসেম্বর ২১ সালে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের প্রতিনিধি পাঠিয়ে দেখতে পায় সংযোগ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় আপনি সরাসরি  (মৃত মো. ইব্রাহিম)  হুকিং এর মাধ্যমে একটি সেচ সংযোগ অবৈধভাবে মটরসহ বিদ্যুৎ ব্যবহার করেছেন। ঐদিন তাৎক্ষণিকভাবে সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করা হয়৷ এদিকে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরিত রেজিস্ট্রার মোতাবেক জানা যায় মো. ইব্রাহিম ২০২০ সালের ২৮ ডিসেম্বর মৃত্যু বরন করেছে। 

উল্লেখ্য যে পল্লী বিদ্যুৎ এর পাঠানো নোটিশে বলা হয়েছে ২০২১ সালের ১০ ডিসেম্বর মোঃ ইব্রাহিম সরাসরি হুকিং এর মাধ্যমে অবৈধভাবে মটরসহ বিদ্যুৎ ব্যবহার করেছে। স্থানীয়রা বলছে মৃত্যুর এক বছর পর কিভাবে তিনি অবৈধ ভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহার করেছে তা তাদের বোধগম্য নয়। এটি তাদের মনগড়া নোটিশ বলে গণ্য করেছে।

২০২২ সালের ৩ জানুয়ারি কক্সবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ঈদগাঁও জোনাল অফিসের চলতি দায়িত্বে থাকা এজিএম (ও এন্ড এম) এস.এম.সাইফুর রহমান ফয়সালের স্বাক্ষরিত স্মারক নং ২৭.১২.২২৯৪.৫১৫.১০০২০.২১ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহার করার কারণে অভিযোগ।( ইলেক্ট্রিসিটি এ্যাক্ট ৩৯ এ) ধারা মোতাবেক নোটিশে বলা হয়েছে, সরকারি সম্পত্তি রক্ষার্থে অপচয়কৃত বিদ্যুতের মূল্য আগামী ১৭ জানুয়ারি জোনাল কার্যালয়ে যোগাযোগ করে নীতি নির্দেশিকা অনুযায়ী অন্যান্য শর্ত মানতে হবে।নইলে ইলেক্ট্রিসিটি এ্যাক্ট এর ৩৯ (এ) ধারা মোতাবেক প্রথম ম্যাজিষ্ট্রেট কোর্ট, বিদ্যুতায়ন বোর্ড, ঢাকায় মামলা করা হবে। নোটিশের অনুলিপি পাঠানো হয়েছে জেনারেল ম্যানজোর কক্সবাজার পল্লী বিদ্যুৎ, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সদর থানা, আইন উপদেষ্টা কক্সবাজার পবিস ও জেলা দায়রা জজ আদালত ও গ্রাহকনথি (হিসাব নং -১৮৯/৩০০৫) 

এদিকে মৃত মো.ইব্রাহিমের ছেলে তৌহিদ জানান, তার বাবা মারা গেছে ২০ সালের ২৮ ডিসেম্বর। বিদ্যুৎ অফিসের পাঠানো নোটিশে বলা হয়েছে ২১ সালের ১০ ডিসেম্বর তার বাবা সরাসরি হুকিং এর মাধ্যমে অবৈধভাবে মটরসহ বিদ্যুৎ ব্যবহার করেছে। তার প্রশ্ন বাবা মারা যাওয়ার উল্লেখিত এক বছরে কবর থেকে এসে কিভাবে সরাসরি বিদ্যুৎ ব্যবহার করছে বলে নোটিশে উল্লেখ করেছে তা তাদের বোধগম্য নয়। এটি পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের নিয়মিত হয়রানি, মনগড়া নোটিশ বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নিবেন। বাবার নামে তখন কোনো মিটারও ছিল না বলে দাবি করেন ছেলে। সম্প্রতি ছেলে তৌহিদ নতুন একটি মিটারের আবেদন করলে তার বাবার নামে থাকা বকেয়া বিল পরিশোধ করতে বলেন। এবং আনুমানিক ৪০ হাজার টাকা পরিশোধ করতে হবে বলে জানান বিদ্যুৎ অফিসের এজিএম। 

নোটিশ পাওয়ার বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে প্রচুর তোলপাড় সৃষ্টি হয়। দায়িত্বজ্ঞানহীন বিদ্যুৎ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান স্থানীয়রা। এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস ঈদগাঁও জোনাল অফিসের চলতি দায়িত্ব থাকা এজিএম (ও এন্ড এম) এসএম সাইফুর রহমান ফয়সালের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি অফিসে গিয়ে এবিষয়ে কথা বলেন। 

পরে অফিসে গিয়ে অনেকক্ষণ অপেক্ষা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। অপরদিকে ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার রূপন কুমার ভট্টাচার্য্যের ব্যবহৃত অফিসিয়াল নম্বরে কয়েকবার কল দেওয়া হলেও রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি৷ অভিযোগ আছে ঈদগাঁও জোনাল পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের কর্মকর্তারা গ্রাহকদের হয়রানি, মনগড়া বিল,টাকার বিনিময়ে মিটার প্রদান করাসহ নানান অনিয়ম দুর্নীতি করে আসছে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়