Cvoice24.com

ওপারে বিস্ফোরণ, ঘুমধুমের আকাশে ‘কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলী’

সিভয়েস২৪ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:৪৩, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
ওপারে বিস্ফোরণ, ঘুমধুমের আকাশে ‘কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলী’

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম সীমান্তের পরিস্থিতি বদলে গেছে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টার পর থেকে ঘুমধুম সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে দেখা মিলছে ‘কালো ধোঁয়ার কুণ্ডলী’।

ঘুমধুম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ জানান, সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারের ঢেঁকিবনিয়া এলাকায় কালো ধোঁয়া দেখা যাচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, সীমান্তবর্তী মিয়ানমার বিজিপির কয়েকটি ফাঁড়িতে আগুন দেয়া হয়েছে। তবে কারা এ আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন তা বলা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে সীমান্তের তুমব্রু এলাকার বাসিন্দা রফিকুল আলম জানান, সীমান্তে মিয়ানমার বিজিপি সদস্যদের তাড়িয়ে তাদের ঘাঁটিতে শক্ত অবস্থানে রয়েছে আরকান আর্মি। রাতের বেলা নিজের অবস্থান জানান দিতে গুলিবর্ষণ করছে তারা। দিনে বিদ্রোহীরা পাহাড়ের বাঙ্কারে অবস্থান নেন; যা সীমান্তের এপাড় থেকে দেখা যাচ্ছে। সোমবার ঢেঁকিবনিয়া এলাকায় বিজিপি ফাঁড়িতে আগুন দেয়া হয়। এটা ঠিক পরিষ্কার না, কারা আগুন দিয়েছেন। ধোঁয়ার কুণ্ডলীর সঙ্গে সঙ্গে কিছু গুলির শব্দও শোনা যাচ্ছে। তবে টেকনাফের নাফ নদের ওপার থেকে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং এলাকার সংবাদকর্মী তাহের নঈম জানিয়েছেন, হোয়াইক্যংয়ের লম্বাবিল ও উনচিপ্রাং সীমান্তের ওপারে নাফ নদে একটি ছোট দ্বীপ রয়েছে। ওটা তোতক দ্বীপ নামের পরিচিত। ওই দ্বীপের কাছাকাছি মিয়ানমারের চাকমাকাটা, কোয়াংচিমন ও কুমিরখালী এলাকায় বিজিপির ঘাঁটি দখলে নিতে যুদ্ধ চলছে। এর জের ধরে দ্বীপে থাকা কিছু রোহিঙ্গাদের নাফ নদে নেমে যেতে দেখা গেছে। গোলাগুলি কমলে ওরা আবারও দ্বীপে চলে যাচ্ছে।

তবে ধারণা করা হচ্ছে, ওই দ্বীপে কিছু রোহিঙ্গা অবস্থান নিয়েছে; যারা অনুপ্রবেশ করতে পারেন। তবে বিজিবি ও কোস্টগার্ডের কঠোর নজরদারি দেখা যাচ্ছে। এ বিষয়ে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুর আহমদ আনোয়ারি জানান, নাফ নদের ওপাড়ে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যাচ্ছে। তবে তা লাগাতার না। থেমে থেমে বিস্ফোরণ হচ্ছে।
বিজিবি সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, ওপাড় থেকে যাতে কোনো রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করতে না পারে, সে ব্যাপারে বিজিবি সতর্ক পাহারায় আছে।

কোস্টগার্ডের টেকনাফ স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার লুৎফুর লাহিল মাজিদ বলেছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে ওপাড় থেকে একজন রোহিঙ্গাও যাতে ঢুকতে না পারে, এ ব্যাপারে তারা সর্বোচ্চ সতর্ক পাহারায় আছেন।

সর্বশেষ