Cvoice24.com

ভোগ্যপণ্যের পর এবার অস্থিরতা প্রসাধনীর বাজারে

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:০৪, ২০ মে ২০২২
ভোগ্যপণ্যের পর এবার অস্থিরতা প্রসাধনীর বাজারে

ছবি-সংগৃহীত

বর্তমানে চট্টগ্রামের বাজারে তেল, চাল, ডাল, রসুন, পেঁয়াজ, চিনিসহ বিভিন্ন নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামে চলছে অস্থিরতা। এসব ভোগ্যপণ্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এবার বেড়েছে সাবান, শ্যাম্পু, টুথপেস্টসহ বিভিন্ন প্রসাধনী সামগ্রীর দাম। কাঁচামালের দাম, জাহাজ ভাড়া ও পরিবহন খরচ বাড়ার কারণেই এসব পণ্যের দাম বেড়েছে বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) নিউমার্কেট এলাকার বিভিন্ন প্রসাধনী সামগ্রীর দোকান ঘুরে দেখা গেছে, টুথপেস্ট, শ্যাম্পু, সুগন্ধী যুক্ত সাবান, ভিমবার, কাপড় কাচা সাবান ও গুঁড়ো সাবানের দাম বেড়েছে। ১৮০ এমএল এর বোতলজাত শ্যাম্পু এখন ২০টাকা বেড়ে ২শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গুঁড়া সাবানের কেজিতে বেড়েছে ২০ টাকা। তা এখন ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ভিম সাবানে ৫ টাকা বেড়ে ৬৫ টাকা, সুগন্ধী সাবানে ২ টাকা বেড়ে ৪২ টাকা ও ৪৫ গ্রাম টুথপেস্টে ৫ টাকা বেড়ে তা ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

নিউমার্কেট এলাকার প্রসাধনী সামগ্রী বিক্রেতা আজমল স্টোরের স্বত্তাধিকারী শাহ আলম সিভয়েসকে বলেন, পণ্যের কাঁচামাল, জাহাজ ভাড়া ও আমাদের দেশে পণ্য পরিবহন ভাড়া বাড়ার কারণেই মূলত প্রসাধনী সামগ্রীর দাম বেড়ে গেছে। কোম্পানিগুলো দাম বাড়িয়ে পণ্যের গায়ে তা নির্ধারণ করে লিখে দিয়েছেন। আমরা সে দামেই বিক্রি করছি।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মো. ইসলাম বলেন, তিন মাস আগে ১৮০ মিলিলিটার শ্যাম্পু ১৭৫ টাকায় কিনেছিলাম। আজ ২শ টাকা দিয়ে কিনতে হলো। মানে দাম বাড়ানোর জন্য আর কোন পণ্য বাকি নেই। আমরা সাধারণ মানুষ কোথায় যাবো আল্লাহ ভাল জানেন।

এদিকে কাঁচাবাজারে সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে সবজির দাম। ব্যবসায়ীরা প্রতিকেজি বেগুন ৫০ থেকে ৬০ টাকা, শসার ২০ থেকে ২৫ টাকা, লাউয়ের পিস ৫০ টাকা, বরবটি ৬০ থেকে ৭০ টাকা, টমেটো ৫০ থেকে ৬০ টাকা, পেঁপে ৫০ থেকে ৬০ টাকা, কাঁচা কলার হালি ৪০ টাকা, পটল ৩০ থেকে ৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৩০ থেকে ৪০ টাকা, ঝিঙে ও চিচিঙ্গা ৩০ থেকে ৪০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। 

নগরের রিয়াজুদ্দীন বাজারের সবজি বিক্রেতা নুরে আলম সরবরাহ কম থাকায় বেগুন, লাউ, টমেটোর দাম বেড়েছে। আর পাকা টমেটোর সরবরাহ দিন দিন কমে যাচ্ছে। তাই এর দাম আরো বাড়বে। কয়েকদিনের মধ্যে পাকা টমেটোর কেজি একশ টাকাও হয়ে যেতে পারে।

এদিকে মাছ বাজারে রুই মাছের কেজি ৩০০, ইলিশের কেজি ১৩শ, তেলাপিয়া-পাঙ্গাস ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা, শিং ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা, শোল ৪০০, কৈ মাছ ২০০, ও পাবদা মাছ ৪০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

ঈদের আগে ১৮০ থেকে ১৮৫ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া ব্রয়লার এখন ১৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। তবে সোনালি মুরগির কেজি আগের মতই ৩০০ থেকে ৩৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।
 

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়