Cvoice24.com

দুই মাসে টিকার আওতায় চট্টগ্রামের পৌনে ৯ লাখ শিক্ষার্থী

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:৫৫, ২৫ জানুয়ারি ২০২২
দুই মাসে টিকার আওতায় চট্টগ্রামের পৌনে ৯ লাখ শিক্ষার্থী

টিকা নিতে শিক্ষার্থীদের দীর্ঘ লাইন

দুই মাস ১০ দিনে চট্টগ্রামে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী প্রায় পৌনে ৯ লাখ শিক্ষার্থী করোনার টিকার প্রথম ডোজের আওতায় এসেছে। আর দুই ডোজ পেয়েছে ৩২ হাজার ৮৪ জন শিক্ষার্থী। এরপরেও যেসসব শিক্ষার্থী টিকার আওতার বাইরে শিক্ষা অফিস থেকে তাদের তালিকা দেওয়া হলে ভ্যাকসিনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

সিভিল সার্জন সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ১৬ নভেম্বর থেকে চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত সিটি করপোরেশন ও গত ৮ জানুয়ারি থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ১৫ উপজেলার ১২-১৮ বছর বয়সী মোট ৮ লাখ ৭২ হাজার ২৫৬ জন শিক্ষার্থীকে ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে মহানগরে ২ লাখ ৮৯ হাজার ৮৩০ জন শিক্ষার্থী টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছে। উপজেলায় টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছে ৫ লাখ ৮২ হাজার ৪২৬ জন শিক্ষার্থী।

জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফরিদুল আলম হোসাইনী বলেন, বিভিন্ন স্কুল থেকে প্রাপ্ত তালিকা অনুযায়ী ১২-১৮ বছর বয়সী সকল শিক্ষাথী ফাইজার ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। অনেকে ২য় ডোজ ভ্যাকসিনও গ্রহণ করেছে। যদি কোন শিক্ষার্থী ভ্যাকসিন গ্রহণ থেকে বাদ পড়ে তারাও ভ্যাকসিনের আওতায় আসবে। 

সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী বলেন, সরকারের নির্দেশে চট্টগ্রামে শিক্ষার্থীরাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রত্যেক মানুষকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের আওতায় আনার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এ পর্যন্ত ৮ লাখ ৭২ হাজার ২৫৬ জন শিক্ষার্থীকে ফাইজারের ১ম ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। মহানগরে ৩২ হাজার ৮৪ জন শিক্ষার্থীকে ২য় ডোজ ভ্যাকসিনও দেওয়া হয়েছে। কোন শিক্ষার্থী ভ্যাকসিন না পেয়ে থাকবেনা। 

চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর বলেন, ভ্যাকসিন দেয়া থাকলে করোনার ঝুঁকি অনেকটা কম। করোনা ও ওমিক্রন থেকে রক্ষা পেতে হলে শুধু শিক্ষার্থী নয়, পর্যায়ক্রমে সবাইকে কোভিড ভ্যাকসিনের আওতায় আসতে হবে। নিজে ভ্যাকসিন নিয়ে অন্যকে ভ্যাকসিন নিতে উৎসাহিত করতে হবে। পাশাপাশি মাস্ক পরিধানসহ সামজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করতে হবে। জমাসমাগম ঘটে এমন সামাজিক অনুষ্ঠান এড়িয়ে চলতে হবে।

এদিকে. কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ক্যাম্পেইন পরিচালনার জন্য প্রতি উপজেলা থেকে ১ জন স্বাস্থ্য পরিদর্শক, ৫ জন সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও ২ জন সিনিয়র স্টাফ নার্সকে সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সংযুক্তিতে পদায়ন করা হয়েছে। এছাড়াও কার্যক্রমে সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করেছেন ডেপুটি সিভিল সার্জন, জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফরিদুল আলম হোসাইনী ও সাতকানিয়া উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার আশীষ বরণ দেব।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়