Cvoice24.com

এইচএসসি’র ফলাফলে গরমিল: শাস্তি পেলেন শিক্ষাবোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:৫৬, ২০ জুলাই ২০২২
এইচএসসি’র ফলাফলে গরমিল: শাস্তি পেলেন শিক্ষাবোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট

এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রস্তুতে দায়িত্বে অবহেলার দায়ে শাস্তির মুখে পড়েছে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট কিবরিয়া মাসুদ খান। এক বছরের জন্য তার বেতন গ্রেড একধাপ কমিয়ে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। 

বুধবার (২০ জুলাই) শিক্ষাবোর্ডের সচিব অধ্যাপক আব্দুল আলীমের সই করা এক চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, শিক্ষাবোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল নির্ভুলভাবে প্রস্তুত করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট কিবরিয়া মাসুদ খান। অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত রির্পোট, তাঁর লিখিত বক্তব্য ও ব্যক্তিগত শুনানিতে দায়িত্বে অবহেলার বিষয়টি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা,২০১৮ এর ৩(খ) বিধি অনুযায়ী ‘অসদাচরণ’এর অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করে অভিযোগের গুরুত্ব ও প্রাসঙ্গিক সকল বিষয় বিবেচনায় একই বিধিমালার বিধি ৪(২)(ঘ) বিধি মোতাবেক তাঁর বেতন ১ জুলাই, ২০২২ তারিখ হতে এক বছরের জন্য বিদ্যমান গ্রেডের নিম্নতর ধাপে অবনমিত করা হল। এ আদেশ ২০২৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত পর্যন্ত বলবৎ (বহাল) থাকবে।

এর আগে চলতি বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে অসঙ্গতি ধরা পড়ে। পরদিনই ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে শিক্ষাবোর্ড। সেই কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গত ১৫ মার্চ সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্টের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে চিঠি পাঠায় মন্ত্রণালয়।

এদিকে, ফলাফল অসঙ্গতির পরপরই সামনে আসে ভুল তারিখে ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট ছাপানোর ঘটনা। সে ঘটনায় কারণ দর্শানোর নোটিশও দেওয়া হয়েছিল চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রককে। যেহেতু, ১৯৬১ সালের পরীক্ষাবিধি অনুযায়ী— পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় দায়-দায়িত্ব পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের উপর থাকে। তাই ফলাফলে অসঙ্গতি থেকে শুরু করে ভুলভাবে মুদ্রিত অ্যাকাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্টসহ পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলির দায় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের। তবে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে অসঙ্গতির কারণে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের বিরুদ্ধেও বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বলে জোর গুঞ্জন শোনা গেলেও এখনো পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। এমনকি এ বিষয়ে মুখ খুলতে চাইছেন না খোদ বোর্ডের কর্মকর্তারা।

সিভয়েস/এসআর

 

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়