Cvoice24.com

পদ্মশ্রী পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করলেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:০২, ২৬ জানুয়ারি ২০২২
পদ্মশ্রী পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করলেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়

ভারত সরকারের চতুর্থ সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান ‘পদ্মশ্রী’ প্রত্যাখ্যান করলেন প্রবাদপ্রতিম সংগীত শিল্পী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়। তার চেয়ে কম বয়সিরাও সম্মান পেয়েছেন। তাই এখন আর সম্মানের প্রয়োজন নেই বলে কেন্দ্রীয় সরকারকে ফোনেই জানিয়ে দিয়েছেন বয়স ৯০ বয়সী এই শিল্পী। 

ভারতের গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, মঙ্গলবার ‘পদ্মশ্রী’ প্রাপকদের একটি তালিকা প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় সরকার। তাতে গীতশ্রী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়ের নাম রয়েছে। তালিকা প্রকাশের পর শিল্পীর লেক গার্ডেন্সের বাড়িতে ফোন আসে দিল্লি থেকে। ‘পদ্মশ্রী’ সম্মানে তাকে সম্মানিত করা হচ্ছে বলে জানানো হয়। কিন্তু শিল্পী সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় সরাসরি জানিয়ে দেন— তিনি ‘পদ্মশ্রী’ প্রত্যাখ্যান করছেন। এই সম্মান নিতে অপারগ তিনি। 

আনন্দবাজার পত্রিকাকে তিনি বলেন, ‘এভাবে কেউ পদ্মশ্রী দেয়? এরা জানে না আমি কে! নব্বই বছরে আমায় শেষে পদ্মশ্রী নিতে হবে? আর এই ফোন করে বললেই চলে যাব আমি? শিল্পীদের কোনও সম্মান নেই আর।’

সন্ধ্যার কণ্ঠে হতাশা আর অপমানের বেদনা। দিল্লির কেন্দ্রীয় সরকারের সংশ্লিষ্ট সচিবালয়ের উদ্দেশে তিনি হিন্দিতেই তাঁর বক্তব্য জানিয়ে দেন। তিনি বলেন, ‘আমি বলে দিয়েছি, আমার পদ্মশ্রীর কোনও দরকার নেই। শ্রোতারাই আমার সব।’ আচমকা এই পদ্মশ্রী খেতাবের ফোনে তিনি যে অপমানিত বোধ করেছেন, তাঁর কণ্ঠই তা জানিয়ে দিচ্ছিল। শাস্ত্রীয় সঙ্গীত থেকে আধুনিক বাংলা গানে তাঁর সুরের বিস্তার আর যাই হোক পদ্মশ্রীর আশা যে করে না তা স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন এই নিরহঙ্কারী শিল্পী।

শিল্পীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় ১২ বছর বয়স থেকে গান গাইছেন। সংগীতের পেছনে জীবনের ৭৫ বছর উৎসর্গ করে দিয়েছেন। অথচ এতদিনেও তার মতো সংগীতজ্ঞকে সম্মানের যোগ্য বলে মনে করা হয়নি। বরং তার চেয়ে কম বয়সের শিল্পীদের সম্মানিত করা হয়েছে। আর এ কারণেই সম্মান প্রত্যাখ্যান করেছেন শিল্পী।

১৯৭১ সালে 'জয় জয়ন্তী' এবং 'নিশিপদ্ম' ছবিতে গান গেয়ে শ্রেষ্ঠ গায়িকা হিসেবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন সন্ধ্যা। এ ছাড়া ২০১১ সালে রাজ্য সরকার তাঁকে 'বঙ্গবিভূষণ' উপাধিতে সম্মানিত করে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়