Cvoice24.com

নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে কাতার স্টেডিয়াম কাঁপাচ্ছেন মিস ক্রোয়েশিয়া

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯:০১, ৭ ডিসেম্বর ২০২২
নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে কাতার স্টেডিয়াম কাঁপাচ্ছেন মিস ক্রোয়েশিয়া

এবারের ফুটবল বিশ্বকাপ রক্ষণশীল কাতারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আর নিজেদের রক্ষণশীল ভাবমূর্তি বজায় রাখতে বিশ্বকাপে হাজির হওয়ার জন্য বেশকিছু নির্দেশনা জুড়ে দিয়েছিলো দেশটি। তার মধ্যে ছিলো পোশাকের ক্ষেত্রে কড়া বিধিনিষেধ। কাতার বিশ্বকাপে নারী দর্শকরা খোলামেলা পোশাক পরলে তৎক্ষণাৎ শাস্তির আওতায় আনা হবে হবে জানানো হয়েছে আয়োজকদের পক্ষ থেকে। তবে সেই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই স্টেডিয়াম নিজের আবেদনময়ী দ্যুতি ছড়াচ্ছেন মিস ক্রোয়েশিয়া। 

ইতোমধ্যেই বিশ্বের নানা গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, তাকে যেকোনো সময় গ্রেপ্তার করা হতে পারে। এমনকি হতে পারে জেলও। কিন্তু মোটেই শাস্তির ভয়ে ভীত নন তিনি। একটি ছবিতে দেখা যায়, তিনি গ্যালারির সিঁড়ি বেয়ে নামছেন, আর তার দিকে চেয়ে আছেন কাতারের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরিহিত কয়েকজন ব্যক্তি। এ সময় ওই তরুণীর পরনে ছিলো ক্রোয়েশিয়ার জার্সির নকশায় একটি অন্তর্বাস ও স্কিনফিট প্যান্ট। 

নেট দুনিয়ায় তাকে কাতার বিশ্বকাপের সবচেয়ে ‘আবেদনময়ী’ ভক্ত হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। 

স্টেডিয়ামের বাইরে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন ইভানা নল। তার ভাষ্য, ‘প্রথমে আমি ভেবেছিলাম, যদি এখানে (কাতার) বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়, তাহলে তাদের উচিৎ সেসব বিষয় নিশ্চিত করা, যা ভক্তদের স্বাচ্ছন্দ্যে রাখবে। কোনও সীমাবদ্ধতা থাকবে না। কিন্তু পরে এখানকার কিছু নিয়মের কথা শুনি এবং আমি বিস্মিত হই। কাঁধ, গলা, পেট এসব দেখা যায় এমন পোশাক পরিধানে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে শুনে অবাক হয়েছি। আমার মনে হচ্ছিলো, সবকিছু ঢেকে রাখার মতো পোশাক তো আমার কাছে নেই।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে ইভানা আরও বলেন, ‘আমি খুব রাগান্বিত যে, আমি তো মুসলমান নই। ইউরোপে আমরা যদি হিজাব-নিকাবকে সম্মান দিতে পারি, তাহলে আমাদের জীবনধারাকেও তাদের সম্মান জানানো উচিত। আমাদের ধর্ম, পোশাক এসবকে সম্মান দেওয়া উচিত, কারণ আমি ক্রোয়েশিয়ার একজন ক্যাথলিক, এখানে এসেছি শুধুমাত্র বিশ্বকাপের জন্য, নিজের দেশকে সাপোর্ট করার জন্য।’

ইভানা জানান, কাতারে আসার পর তিনি অবাক হয়েছেন; কারণ এখানে তার পোশাক নিয়ে সেরকম কোনও কড়াকড়ি নেই। শুধুমাত্র সরকারি ভবন ছাড়া যেকোনও জায়গায় নিজের ইচ্ছেমতো পোশাক পরা যায়। 

এরপরও গ্রেফতার হওয়ার ঝুঁকি থেকে যায় না? এমন প্রশ্নের জবাবে ইভানা নলের স্পষ্ট জবাব, ‘আমি এসবে ভয় পাই না।’

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৮ সালের বিশ্বকাপেও পোশাক স্বাধীনতার জন্য আলোচনায় এসেছিলেন ইভানা নল।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়