Cvoice24.com

বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তি নিয়ে অভিনেতা-নির্মাতাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৬:৩৪, ২৪ জানুয়ারি ২০২৩
বাংলাদেশে ‘পাঠান’ মুক্তি নিয়ে অভিনেতা-নির্মাতাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া

বাংলাদেশে বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের বহুল আলোচিত সিনেমা ‘পাঠান’ মুক্তি পাবে কি পাবে না তা জানা যাবে আজ (২৪ জানুয়ারি)। দুই দেশের চুক্তি অনুযায়ী সব ঠিক থাকলে বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে মুক্তি পেতে পারে বলে বলে গতকাল (২৩ জানুয়ারি) থেকে আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু মুক্তির অনুমতি পাওয়ার আগেই দেশের চলচ্চিত্র নির্মাতা ও তারকারা এ বিষয়ে গণমাধ্যমে তাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

চিত্রনায়ক ওমর সানী এ প্রসঙ্গে বলেন, আমি যখন চলচ্চিত্রে আসি তখন সিনিয়রদের কাছে শুনেছি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রহমান পাকিস্তানি ও হিন্দি সিনেমা বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করেছেন। সে অনুযায়ী তার কন্যা দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তো এই দেশে কোনোভাবে এ সিনেমা মুক্তির অনুমতি দিতে পারেন না। আশা করছি এইরকম সিদ্ধান্ত থেকে সরকার সরে আসবে।

‘পাঠান’ সিনেমা মুক্তির ব্যাপারে পরিচালক সমিতির সভাপতি ও খ্যাতিমান নির্মাতা কাজী হায়াৎ বলেন, যদি আইন অনুযায়ী এই সিনেমা মুক্তি দেওয়া যায় তাহলে তো কোনো সমস্যা নেই। আমাদের সিনেমা এখন সারাবিশ্বে মুক্তি পাচ্ছে। অন্যান্য দেশের সিনেমা আমাদের দেশে মুক্তি পেতে পারে- আমার কাছে এটি খুব স্বাভাবিক প্রক্রিয়া বলে মনে হয়।

অন্যদিকে অভিনয় শিল্পী সংঘের সভাপতি ও অভিনেতা নাসিম আহমেদ বলেন, ২০২৩ সাল আমাদের সিনেমার মুক্তির বছর বলা যায়। সামনে ভালো ভালো সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় আছে। এরই মধ্যে কিছু সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। যে সিনেমাগুলো আমাদের মাটির ও শেকড়ের সিনেমা বলায়। আমাদের নিজস্ব গল্পের সিনেমা বলা যায়। সেই সিনেমাগুলোকে আগে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত। তার পাশাপাশি বিদেশি ভালো ভালো সিনেমা মুক্তি দেওয়ারও প্রয়োজন। তবে কোনো অশ্লীল সিনেমা মুক্তি দেওয়া পক্ষে আমি নই। তাহলে আমরা আমাদের দর্শক আবারও হারাবো।

নির্মাতা এস এস হক অলিক বলেন, সাফটা চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশে উপমহাদেশের সিনেমা মুক্তি পেতে পারে। কিন্তু আমার কথা হলো বাংলাদেশের সিনেমা হলোগুলো কী এখন প্রস্তুত? সেইসব সিনেমাগুলো মুক্তি দিতে। আমাদের প্রেক্ষগৃহগুলোতে এখন পেনড্রাইভ দিয়ে সিনেমা চালাতে হয়। আর সেই সব (বলিউড) সিনেমাগুলো এখন সার্ভারে চলে। আমার মনে হয় প্রেক্ষগৃহগুলো আধুনিক হোক। তারপর উপমহাদেশের সিনেমাগুলো মুক্তি পাক। এই মুহূর্তে বাংলাদেশে যেসব সিনেমা আছে সেইগুলোর দিকে হল মালিকদের নজর দিলে ভালো কিছু হবে।

নির্মাতা খিজির হায়াত খান বলেন, বাংলাদেশে হলিউড সিনেমা অনেক আগে থেকেই চলছে। আমরা তো এ নিয়ে কোনো কথা বলছি না। সেক্ষেত্রে বলিউড সিনেমা মুক্তি পেতেই পারে। তবে হঠাৎ করে মুক্তি দেওয়া ঠিক নয়। কারণ বলিউডের সিনেমা মুক্তি দিলে আমাদের যে সিনেমাগুলোর মুক্তির তারিখ নির্ধারণ করা আছে সেইগুলোতে সমস্যা হবে। সবচেয়ে বড় বিষয় হলো আমাদের দেশে বলিউডের সিনেমা প্রদর্শনের মতো উপযুক্ত প্রেক্ষাগৃহ নেই। যে কয়েকটা সিনেপ্লেক্সে আছে সেগুলোতে যদি বলিউড সিনেমা চলে, তাহলে আমাদের সিনেমাগুলো চলবে কোথায়? আগে আমাদের দেশে আধুনিক সিনেমা হল তৈরি হোক। তারপর দেশে বলিউড সিনেমা আসুক। তাহলে কোনো সমস্যা হবে না।

বাংলাদেশে ‘পাঠান’ সিনেমা মুক্তির ব্যাপারে দেশের একটি প্রযোজনা সংস্থা তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে বলে জানা গেছে।

এদিকে‘পাঠান’ সিনেমা মুক্তির বিষয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় চিঠিটি পেয়েছে বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। আজ (২৪ জানুয়ারি) দুপুর ৩টায় ‘পাঠান’ মুক্তির বিষয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ে বৈঠক হবে। এ বৈঠকে সিনেমাটি বাংলাদেশে মুক্তির দেওয়া হবে কিনা এ ব্যাপারে জানা যাবে।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় ‘পাঠান’ সিনেমা বাংলাদেশের মুক্তির অনুমতি দিলে সাফটা চুক্তির নীতিমালা অনুসারে ভারতে মুক্তির দুই দিন পর বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হবে।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়