Cvoice24.com

ভারতের ফিল্ম সিটি ঘুরে দেখলেন বাংলাদেশের ইয়ুথ ডেলিগেটরা

শারমিন রিমা, মুম্বাই (ভারত) থেকে

প্রকাশিত: ১২:১৭, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
ভারতের ফিল্ম সিটি ঘুরে দেখলেন বাংলাদেশের ইয়ুথ ডেলিগেটরা

ভারতে সফররত বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশনের ১০০ সদস্যের জন্য মুম্বাইয়ের ফিল্ম সিটিতে আয়োজন করা হয়েছে ‘রিয়েলিটি শো’। 

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মুম্বাইয়ের পূর্ব গোরেগাঁওয়ের দাদাসাহেব ফালকে চিত্রাঙ্গরিতে (ফিল্ম সিটি) নিয়ে যাওয়া হয় ইয়ুথ ডেলিগেশনের ১০০ জন সদস্যকে। সেখানে তারা বিভিন্ন রিয়েলিটি শো, টিভি সিরিয়াল, বলিউডের খ্যাতনামা বিভিন্ন সিনেমার শ্যুটিং স্পট ঘুরে দেখেন। 

এছাড়া বলিউডের বিখ্যাত পরিচালক সুভাষ ঘাই প্রতিষ্ঠিত ‘হুইসলিং উড’ নামের স্টুডিওটি ঘুরে দেখানো হয় ইয়ুথ ডেলিগেশনের সদস্যদের। এ সময় স্টুডিওর কর্মকর্তারা ডেলিগেটসদের তাদের ডলবি এডিটিং রুম, সাউন্ড রুম থেকে শুরু করে সিনেমা প্রোগ্রাম রুম ও থিয়েটার ঘুরে দেখান। 

এই স্টুডিওতে সিনেমার যাবতীয় কাজের পাশাপাশি রয়েছে অভিনয়, সাংবাদিকতা, ফিল্ম মেকিং ও স্ক্রিপ্ট রাইটিংয়ের ওপর উচ্চশিক্ষার সুযোগ।

অন্যদিকে, সুভাষ ঘাইয়ের প্রতিষ্ঠিত এই প্রতিষ্ঠানে রয়েছে মাধুরী দিক্ষিত, অনিল কাপুর, হৃতিক রোশনসহ বেশকিছু অভিনয়শিল্পী, গায়ক, পরিচালকদেরও হাতে ছাপের রেপ্লিকা। প্রতিষ্ঠানটির দেয়ালে দেয়ালে ছবি আকারে সাঁটানো হয়েছে বলিউড সিনেমার বিভিন্ন উল্লেখযোগ্য মুহূর্তের কথা। বলিউডের এই পরিচালকের ‘মুক্তা আর্টস’ নামের আরেকটি প্রতিষ্ঠান আছে, যেটি এই ‘হুইসলিং উড’র বিপরীতেই অবস্থিত। এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৮ সালে।

বলিউড কিংবদন্তি অমিতাভ বচ্চনের বিখ্যাত ‘দিওয়ার’ সিনেমার চিত্রায়ণ হয়েছিল এই ফিল্ম সিটির মন্দিরে। তবে অভিনয়ের জন্য নির্মিত ওই মন্দিরে আদতে কোনো ধরনের দেবতা বা মূর্তি প্রতিষ্ঠিত নেই। পরিচালকরা সিনেমার গল্প অনুযায়ী মূর্তি বসিয়ে দৃশ্যায়নের কাজ শেষ করেন। এছাড়া এই ফিল্ম সিটিতে শাহরুখ খানের ‘কাল হো না হো’, কুচ কুচ হোতা হে, দেবদাস; সালমান খানের ‘বডিগার্ড’, ‘কিসি কি ভাই কিসি কি জান’; অমিতাভ বচ্চনের ‘ভগবান’ সিনেমার শ্যুটিংও হয়েছে।

এছাড়াও এই ফিল্ম সিটিতে আছে ‘তারেক মেহতা কা উল্টা চশমা’, ‘কৌন বানেগা ক্রোড়পতি’, ‘দ্যা কপিল শর্মা শো’, ‘ডান্স ইন্ডিয়া ডান্স’ এর মতো জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো'র সেট।

বিভিন্ন শ্যুটিং স্পট পরিদর্শন শেষে ডেলিগেটসরা যান বলিউড পার্ক নামের আরেকটি সেটে। এ সময় মুম্বাইয়ের ইয়ুথ অ্যাফেয়ার্সের কর্মকর্তা ও সেটের কর্মকর্তাদের ব্যবস্থাপনায় আয়োজন করা হয় রিয়েলিটি শো। প্রায় ৪০ মিনিটের এই আয়োজনে নাচ ও গান পরিবেশন করা হয়। মুম্বাই ইয়ুথ অ্যাফেয়ার্সে এক কর্মকর্তা ও ডেলিগেটসের পক্ষে অভিজিৎ কুন্ডু গান পরিবেশন করেন।

জানা গেছে, ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের মুম্বাইয়ে পূর্ব গোরেগাঁও গ্রামে ১৯৭৭ সালে ৫২০ একর জমির ওপর তৈরি করা হয় ‘ফিল্ম সিটি’। পাহাড়, জঙ্গলঘেরা এই জায়গায় ১৬টি স্টুডিও আছে, আউটডোর শ্যুটিং স্পট আছে প্রায় ৪২টি। যেখানে পাহাড় থেকে গাড়ি পড়ে যাওয়া, দুর্ঘটনা, জঙ্গলে হারিয়ে যাওয়ার মতো শ্যুটিং হয়। ২০০১ সাল ফিল্ম সিটির নাম ভারতের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিজ জনক হিসেবে পরিচিত দাদাসাহেব ফালকের নামে করা হয়। এই ফিল্ম সিটিতে প্রায় ৯০০ এর ওপর সিনেমার শ্যুটিং হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দিল্লি থেকে বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মুম্বাইয়ের ছত্রপতি শিবাজী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে বাংলাদেশ ইয়ুথ ডেলিগেশন দলের সদস্যরা। বাংলাদেশের ১০০ তরুণ-তরুণীদের প্রতিনিধি দলটির ৮ দিনের এ সফরে আগামী দু’দিন মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির সঙ্গে সাক্ষাৎ ও ঐতিহাসিক স্থাপনা পরিদর্শনের কথা রয়েছে তাদের।

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়