Cvoice24.com

সারোগেসি: মাতৃত্বকালীন কষ্ট এড়াতে ‘গর্ভ ভাড়া’, দরিদ্র নারীর আয়ের মাধ্যম!

ফিচার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫৮, ২০ জানুয়ারি ২০২৩
সারোগেসি: মাতৃত্বকালীন কষ্ট এড়াতে ‘গর্ভ ভাড়া’, দরিদ্র নারীর আয়ের মাধ্যম!

প্রতীকী

বাড়িঘর ভাড়া দেওয়ার মতোই বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে গর্ভ ভাড়া দেওয়ার এক প্রথা। এককথায় বলতে গেলে বিশ্বজুড়ে এক নতুন ব্যবসার মাধ্যম হয়ে উঠেছে এই গর্ভ ভাড়া। যাকে বলা হয় ‘সারোগেসি’।

শারীরিক গঠন ঠিক রাখা এবং মাতৃত্বকালীন কষ্ট এড়াতেও আর্থিকভাবে স্বচ্ছল মানুষের মধ্যে সারোগেসি এখন আর অপ্রচলিত নেই। অন্যদিকে বন্ধ্যাত্বের বাধা পেরিয়ে মাতৃত্বের স্বাদ পেতেও ভরসা সারোগেসি।

মা হওয়ার এই বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিকে কাজে লাগিয়ে লাখ লাখ টাকা উপার্জন করছেন একাধিক মহিলা। বর্তমানে সমগ্র বিশ্বজুড়েই সারোগেসি হঠাৎই খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

সম্প্রতি এই সারোগেসি পদ্ধতিতে মা হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। গত ২৩ জানুয়ারি মাঝরাতে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান, সারোগেসির মাধ্যমে সম্প্রতি মাতৃত্বের স্বাদ পেয়েছেন তিনি। বলা বাহুল্য, বলিউডে বহুদিন ধরেই প্রচলিত এই সারোগেসি। প্রিয়াঙ্কার আগে প্রীতি জিনতা, শিল্পা শেঠি, শাহরুখ খান, আমির খানের মত বড় মাপের বলিউড তারকারা এই পদ্ধতির আশ্রয় নিয়ে বাবা-মা হয়েছেন।

বলিউডে কৃতি স্যানন অভিনীত ‘মিমি’ সিনেমাটিতে দেখানো হয়েছে রাজস্থানের একটি শহরে রীতিমতো জিনিস কেনার মতো করে পছন্দ করা হচ্ছে মেয়েদের। কিন্তু কেন? কারণ পছন্দসই মেয়ে মিললেই চড়া দামে তাদের গর্ভ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে। সাধারণত বিদেশি কাস্টমারদের ধরেই এই ব্যবসা চালানো হচ্ছে এবং বহু বিদেশি দম্পতি শুধুমাত্র এভাবে সন্তানের জন্ম দিতেই সেখানে আসছেন।

সিনেমার পুরো গল্পকে কাল্পনিক বলে মনে হলেও সম্প্রতি এই সিনেমার গল্প একদমই বাস্তব সময়ের সাথে মিলে যায়। 

ইন্ডিয়া টাইমসের এ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শুধু ভারতেই নয় বিদেশেও সমানভাবে জনপ্রিয় এই ব্যবসা। তার মধ্যে শীর্ষে রয়েছে ইউক্রেনের নাম। গত কয়েক বছরে বাবা-মা হওয়ার আকাঙ্ক্ষায় থাকা অনেকেই ইউক্রেন যাচ্ছেন এবং সেখানে ইতিমধ্যেই বৈধতা পেয়েছে সারোগেসির মাধ্যমে মা হওয়ার নিয়ম।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৈধ হওয়ার পরে প্রতি বছর ইউক্রেনে কয়েক হাজার শিশুর জন্ম হচ্ছে এই পদ্ধতিতে। মূলত এই কারণেই সেখানে ক্রমশ শিশু জন্মদানের হার বেড়েই চলেছে।

এই গবেষণায় যে সমস্ত তথ্য সামনে এসেছে তা চোখ কপালে ওঠার মতো। জানা গেছে, ২০১৫ সাল থেকেই ভারত, নেপাল ও ইউক্রেনের মতো একাধিক দেশে সারোগেসির সংখ্যা এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে সরকারও সম্প্রতি এই বিষয়ে সঠিক তথ্য দিতে ব্যর্থ হচ্ছে। সরকারি হিসাব বলছে এই সমস্ত দেশে মূলত ইউক্রেনে বছরে ২০০০ থেকে ২৫০০টি শিশুর জন্ম হয় শুধুমাত সারোগেসির মাধ্যমে। এই কাজে যে সমস্ত মহিলাদের ব্যবহার করা হয় তাদের মধ্যে অধিকাংশই অত্যন্ত দরিদ্র ঘরের এবং মূলত টাকা উপার্জনের জন্যই তারা তাদের গর্ভ ভাড়া দেন।

অন্যদিকে টাকার লোভে কোনও কোনও মহিলা একাধিকবার সারোগেট মা হতেও রাজি হন। এতে তাদের শারীরিক এবং মানসিক ক্ষতিও হচ্ছে। গর্ভবতী অবস্থায় তাদের যেখানে রাখা হয় সেই ঘরগুলিও খুব একটা স্বাস্থ্যকর নয়। ফলে এই সমস্ত দেশের মহিলাদের নানা শারীরিক সমস্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এই ব্যবসাতেও রয়েছে একাধিক দালাল। তারাই মূলত এই দু পক্ষের মধ্যে যোগাযোগ করিয়ে দেন। এক্ষেত্রে যে সমস্ত মহিলারা তাদের গর্ভ ভাড়া দেন তাদের টাকার একাংশ নিয়ে থাকেন ওই দালালরা।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়