Cvoice24.com

সন্ধ্যায় চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:২৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২
সন্ধ্যায় চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের শেষকৃত্য আজ সম্পন্ন হবে। সন্ধ্যায় সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে স্বামী ডিউক অব এডিনবার্গের পাশে চিরশায়িত হবেন তিনি। তার আগে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সামনে রেখে সকাল থেকেই চলবে নানা আনুষ্ঠানিকতা।

স্থানীয় সময় সকালে ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে তার কফিন ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে নিয়ে যাওয়া হবে। চিরনিদ্রায় শায়িত করার আগে শোক মিছিলসহ রানির কফিন অ্যাবে থেকে হাইড পার্ক কর্নারের ওয়েলিংটন আর্চ পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে রানির কফিন স্টেট হার্সের উইন্ডসরের সেন্ট জর্জ চ্যাপেলের রাজকীয় ভল্টে রাখা হবে। এরপর সেখানে স্বামী ডিউক অফ এডিনবার্গ এবং বাবা রাজা ষষ্ঠ জর্জ ও মায়ের পাশে রানি চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন। 

৯৬ বছর বয়সে গত ৮ সেপ্টেম্বর মারা যান ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। এরপর সেখান থেকে ওয়েস্টমিনস্টার হল; নয় দিনের জার্নি শেষে অবশেষে চূড়ান্ত গন্তব্যের পথে যাচ্ছেন রানি।

রানিকে অন্তিম শয়ানে শায়িত করার আগ পর্যন্ত সোমবারের পূর্ণ কর্মসূচি প্রকাশ করেছে বাকিংহাম প্যালেস। এতে জানানো হয়—

সকাল ৬টা ৩০ মিনিট : ওয়েস্টমিনস্টার হলে রানির কফিনের পাশে জনসাধারণ শেষবারের মতো যাওয়ার সুযোগ পাবেন। বিগবেনে ঘণ্টা বাজার সঙ্গে সঙ্গে দর্শনের সমাপ্তি হবে। এ সময় রাজার রক্ষীরা ওয়েস্টমিনিস্টার প্রাসাদে রানির কফিনে শেষবারের মতো শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করবেন। সকাল ৮টা ৩০ মিনিটে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন শেষে জমকালো শোভাযাত্রা শুরু হবে।

সকাল ১০টা ৩৫ মিনিট থেকে বেলা ১১টা : ঘোড়ার গাড়িতে রানির কফিন রাখা হবে এবং ঐতিহ্য অনুসারে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে নিয়ে যাওয়া হবে। ঘোড়ার গাড়ি হলেও এতে কোনো ঘোড়া থাকবে না। গাড়িটি টেনে নিয়ে যাবে রাজকীয় নৌবাহিনীর ৯৮ জন সদস্য। রাজপরিবারের প্রবীণ সদস্যরা গাড়ির পেছনে থাকবেন। কফিনটি ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে নিয়ে উঁচু বেদিতে রাখা হবে।

বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১২টা : ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া কার্যক্রম শুরু হবে বেলা ১১টায়। এটি পরিচালনা করবেন ওয়েস্টমিনস্টারের ডিন। অনুষ্ঠান শেষ হবে ক্যান্টারবারির আর্চবিশপের ধর্মোপদেশ এবং প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসের পাঠের মাধ্যমে। বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে রানির সম্মানে ২ মিনিট নীরবতা পালন করা হবে।

দুপুর ১২টা ১৫ মিনিট : রানির কফিন হাইড পার্ক কর্নারে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে থেকে ওয়েলিংটন আর্চ পর্যন্ত দেড় মাইল লম্বা বিশাল সামরিক মিছিলের মাধ্যমে বহন করা হবে। এর আগে জাতীয় সংগীত ও শোক সংগীত এবং পাইপার বাজানো হবে। দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে কফিনটি অ্যাবের গ্রেট ওয়েস্ট ডোর দিয়ে হাইড পার্কের ওয়েলিংটন আর্চে নিয়ে যাওয়া হবে। এ সময় কফিন বহনকারী মিছিলে থাকবেন চার হাজারেরও বেশি সামরিককর্মী। এ মিছিলে শামিল হবেন নতুন রাজা ও কুইন কনসর্ট।

দুপুর ১টা থেকে বেলা ৩টা ৬ মিনিট : লন্ডনের মধ্য দিয়ে কফিন বহনকারী মিছিলটি হাইড পার্ক কর্নার হয়ে উইন্ডসরের শ ফার্ম গেটে কুইন্স হোম পার্কের প্রবেশদ্বার পর্যন্ত যাবে।

বেলা ৩টা ৬ মিনিট থেকে বিকাল ৪টা : বেলা ৩টা ৬ মিনিটে কফিন বহনকারী শোভাযাত্রা স্টেট হার্স লং ওয়াকে পৌঁছাবে। এর নেতৃত্বে থাকবে হাউজহোল্ড ক্যাভালোরি রেজিমেন্টের সেনারা। তাদের পেছনে থাকবে রাষ্ট্রীয় প্রহরী এবং স্কটিশ ও আইরিশ রেজিমেন্টের পাইপ, ড্রাম এবং কোল্ডস্ট্রিম গার্ডের ব্যান্ড দল। এ শোভাযাত্রায় ১০২টি সামরিক ঘোড়া অংশ নেবে। ৩৪ মিনিট পরে রাজা এবং রাজপরিবারের অন্য সদস্যরা মিছিলে যোগ দেবেন।

বিকাল ৪টা : উইন্ডসরের ডিন বিকাল ৪টায় রানির কফিন দাফন প্রক্রিয়া শুরু করবেন। বাইবেল থেকে বিদায়ি স্তবক পাঠের আগে ইম্পেরিয়াল স্টেট ক্রাউন, অর্ব ও রাজদণ্ড কফিনের ওপর থেকে সরানো হবে। রাজা এবং রাজপরিবারের সদস্যরা শতাব্দী প্রাচীন এ ঐতিহ্যে শামিল হবেন এবং দাফনের আগে রানিকে চূড়ান্ত বিদায় জানাবেন। এ সময় কমনওয়েলথ দেশগুলোর প্রধানমন্ত্রী এবং রানির পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন।

সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মিনিট : রাজা চার্লস ও রাজপরিবারের অন্য প্রবীণ সদস্য রাজা জর্জ ষষ্ঠ মেমোরিয়াল চ্যাপেলে দাফন কাজে যোগ দেবেন। চ্যাপেলে স্বামী ডিউক অফ এডিনবার্গ এবং বাবা রাজা ষষ্ঠ জর্জ এবং মায়ের পাশে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন।

আট নাতি-নাতনির শ্রদ্ধাঞ্জলি : লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার হলে শনিবার এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন তার আট নাতি-নাতনি। কফিনের পাশে দাঁড়িয়ে ১৫ মিনিট নীরবতা পালন করেন তারা। সম্মান দেখাতে রানির কফিনটি আটজন প্রদক্ষিণ করেন। রাজপরিবারের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো রাজা বা রানির নাতি-নাতনিরা এ রাজকীয় রীতিতে অংশ নিলেন। প্রিন্স অব ওয়েলস উইলিয়াম ও ডিউক অব সাসেক্স হ্যারির নেতৃত্বে তাদের চাচাতো ও ফুফাতো ভাইবোনরা যোগ দেন।

২০২০ সালের পর প্রথমবারের মতো সামরিক পোশাকে দেখা গেল প্রিন্স হ্যারিকে। উইলিয়াম ও হ্যারি ছাড়াও এ রীতিতে অংশ নেন প্রিন্সেস অ্যানির দুই সন্তান পিটার ফিলিপস ও জারা টিনডাল, প্রিন্স অ্যান্ডুর দুই মেয়ে প্রিন্সেস বেট্রিস ও ইউজিন, প্রিন্স এডওয়ার্ডের সন্তান লেডি লুইস উইন্ডসর ও জেমস। রানির নাতি-নাতনিদের মধ্যে সবার বড় ৪৪ বছর বয়সী পিটার ফিলিপস ও সর্বকনিষ্ঠ প্রিন্স এডওয়ার্ডের ছেলে ১৪ বছর বয়সি জেমস।

এদিকে, রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ পুরো বিশ্বের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের পদচারণা এখন পুরো লন্ডন নগরীতে।  তাদের মধ্যে রয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ও তার স্ত্রী সোফি, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্থনি অ্যালবানিজ ও নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্ন, জাপানের সম্রাট নারুহিতো ও সম্রাজ্ঞী মাসাকো, বেলজিয়ামের রাজা ফিলিপ ও রানি ম্যাথিল্ডে, স্পেনের রাজা ফেলিপ ও রানি লেটিজিয়া, সুইডেনের রাজা কার্ল ষোড়শ গুস্তাফ ও রানি সিলভিয়া। আরও অনেক বিশ্বনেতা এরইমধ্যে লন্ডনে পৌঁছেছেন। আর তাই নিরাপত্তার বিষয়টিকে দেখা হচ্ছে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে। পুলিশের পাশাপাশি কাজ করছে লন্ডনের নগর প্রশাসনও।

রানির শেষকৃত্য সরাসরি দেখাবে শতাধিক সিনেমা হল : রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া পর্ব এবং কফিন নিয়ে লন্ডনে শোভাযাত্রা বিবিসি, আইটিভি এবং স্কাইটিভিতে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে। শেষকৃত্যানুষ্ঠানের সব আয়োজন সরাসরি সম্প্রচারের ব্যবস্থা করেছে যুক্তরাজ্য সরকার। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া পর্বের নানা আনুষ্ঠানিকতা দেখাতে দেশটির বিভিন্ন পার্ক, স্কয়ার এবং গির্জায় বড় পর্দার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়া ব্রিটেনজুড়ে ১২৫টি সিনেমা হলে বিনামূল্যে শেষকৃত্য দেখানো হবে।

যুক্তরাজ্যের সিনেমা হল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, যেসব হলে রানির শেষকৃত্য দেখানো হবে, এর মধ্যেই সেগুলোর অনেক আসন বুক হয়ে গেছে।

প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসের সঙ্গে বাইডেনের বৈঠক বাতিল : যুক্তরাজ্য সফরকালে দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাসের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বৈঠক করার কথা ছিল। কিন্তু বৈঠকটি বাতিল করা হয়েছে। তবে কেন বাতিল করা হয়েছে সে সম্পর্কে কিছুই জানানো হয়নি।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ১০নং ডাউনিং স্ট্রিট জানিয়েছে, রানির শেষকৃত্যের আগে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও প্রধানমন্ত্রী লিজ ট্রাস এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মধ্যকার পরিকল্পিত ‘পূর্ণমাত্রার দ্বিপাক্ষিক বৈঠক’টি লন্ডনের পরিবর্তে বুধবার জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে অনুষ্ঠিত হবে।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এই শোকের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এখন রানির শহরে। রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) তিনি ছোট বোন শেখ রেহানাকে নিয়ে দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ওয়েস্ট এন্ড এর ঐতিহাসিক ল্যাঙ্কাস্টার হাউজে যান। সেখানকার শোক বইয়ে স্বাক্ষর করেন।

সংক্ষিপ্ত স্মৃতিচারণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার পরিবার সবসময়ই রানিকে সম্মান জানিয়ে এসেছে। যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনারও স্বাক্ষর করেন শোক বইয়ে।

এর আগে, রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ এর শেষকৃত্যে অংশ নিতে যুক্তরাজ্যে রাষ্ট্রীয় সফর করায় প্রধানমন্ত্রীকে টেলিফোন করে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ব্রিটিশ সিংহাসনের নতুন রাজা তৃতীয় চার্লস।

বাকিংহাম প্যালেস থেকে বাংলাদেশের জনগণের প্রতিও ধন্যবাদ জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ রাজপরিবার।
 

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়