Cvoice24.com

ক্লিক’র সম্মাননা পেলেন চট্টগ্রামের ছয় গুণীজন ও আট তরুণ

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২১:৪১, ১১ ডিসেম্বর ২০২১
ক্লিক’র সম্মাননা পেলেন চট্টগ্রামের ছয় গুণীজন ও আট তরুণ

নগরের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মাননা স্মারক তুলে দেওয়া হয়।

দুই দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে চট্টগ্রামের প্রথম লাইফস্টাইল অ্যান্ড বিজনেস ম্যাগাজিন ক্লিকের বিজয় উৎসব-২০২১। উৎসবে বিভিন্ন পেশার ছয় প্রবীণ গুণীজনকে চট্টলার বীর এবং ৮ তরুণকে তারুণ্যের কাণ্ডারি হিসেবে সম্মাননা দিয়েছে ক্লিক পরিবার। একই মঞ্চে ক্লিক চট্টলার বীর সংখ্যার মোড়ক উম্মোচন করেন আগত অতিথিরা।

শুক্রবার (১০ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় নগরের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মাননা স্মারক তুলে দেওয়া হয়।

সম্মাননা প্রাপ্ত ৬ প্রবীণ গুণী ব্যক্তিরা হলেন— বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধ গবেষক ডা. মাহফুজুর রহমান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. শিরীণ আখতার, ‘একুশে পদক’ প্রাপ্ত নাট্যশিল্পী আহমেদ ইকবাল হায়দার, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক প্রশাসক ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ খোরশেদ আলম সুজন এবং ব্যবসায়ী ও শিল্পপতি তরফদার রুহুল আমীন।

অপরদিকে সম্মাননাপ্রাপ্ত তারুণ্যের কাণ্ডারিরা হলেন— পিএইচপি শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহিরুল ইসলাম রিংকু, জুনিয়র চেম্বার চট্টগ্রাম কসমোপলিটনের প্রেসিডেন্ট টিপু সুলতান, মানবাধিকার কর্মী আমিনুল হক বাবু, প্র্রকৌশলী সাইদুজ্জামান কিরণ, দৈনিক সমকালের চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধান সাংবাদিক সারোয়ার সুমন, উদ্যোক্তা এ কে এম শহীদ চৌধুরী, সংগঠক জিনাত সোহানা চৌধুরী, উদ্যোক্তা শাহ এমরান মো. আলী চৌধুরী।

ক্লিক চট্টলার বীর সম্মাননা প্রাপ্ত গুণীজন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আনোয়ারুল আজিম আরিফ বলেন, স্বাধীনতার যুদ্ধের সময় আমরা তরুণদের জাগানোর চেষ্টা করেছিলাম। এখন ক্লিক ম্যাগাজিন চট্টগ্রাম সাজাতে তরুণদের জাগানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ জন্য ক্লিক পরিবারকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এই আয়োজনের জন্য ক্লিক ম্যাগাজিনের সম্পাদক জালালউদ্দিন সাগরকে ধন্যবাদ জানাই। সামাজিক মূল্যবোধ জাগ্রত করতে হলে একে অপরকে সম্মান জানাতে হবে।

ক্লিক চট্টলার বীর সম্মাননা প্রাপ্ত গুণীজন একুশে পদক প্রাপ্ত নাট্যজন ইকবাল হায়দার চৌধুরী বলেন, সাম্প্রদায়ীক সম্পৃতি আমাদের অহংকার। সম্পৃতির এই মূল্যবোধকে আমাদের জাগ্রত করতে হবে। উপস্থিত তরুণদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে সবাইকে কাজ করতে হবে। 

সংশিষ্টরা জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় শুরু হওয়া ক্লিক বিজয় উৎসব শুক্রবার রাত ১০টায় শেষ হয়। প্রতিদিন মঞ্চে পরিবেশিত হয়েছে ব্যান্ড সংগীত, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং বর্ণাঢ্য ফাশন শো। 

এর আগে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় মঞ্চে পরিবেশিত হয় বাংলা চলচ্চিত্র নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠান ‘ঐতিহ্যের বাংলা সিনেমা’। একই দিন চট্টগ্রাম জেলার জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে ক্লিক অনলাইন ফিল্ম ফেস্টের বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার ও ক্রেষ্ট তুলে দেন।

ক্লিক সম্পাদক জালাল উদ্দীন সাগর বলেন, এই ফেস্টের মাধ্যমে অনেক তরুণ ও প্রতিভাবান উদ্যোক্তা নিজের প্রতিষ্ঠানের তৈরি করা পণ্য সামগ্রী নিয়ে এই ফেস্টে এসেছেন। সময় ও স্থানের গণ্ডি পেরিয়ে তারা একদিন অনেকদূর এগিয়ে যাবে, চট্টগ্রামের মূখ বিশ্ব দরবারে উজ্জ্বল করবেন এটাই প্রত্যাশা করি। 

তিনি আরও বলেন, ক্লিক ম্যাগাজিন প্রতি বছর বিজয়ের মাসে গুণীজনকে দেয় শুধুমাত্র তাদের স্মরণ করেই— যারা এই চট্টগ্রামের ইমেজ বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিয়েছেন। ক্লিক পরিবার সব সময় ব্যতিক্রম কিছু করার চেষ্টা করে। ভবিষ্যতেও তা অবহ্যাত থাকবে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৬টায় ক্লিক বিজয় ফেস্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমানসহ রাঙামাটি জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মাহমুদা বেগমসহ অন্যান্য আমন্ত্রিত অতিথিরা।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়