Cvoice24.com

৮ মামলা মাথায় নিয়ে ফারজানা টিকটক ‘তারকা’, ছিনতাইয়ের দায়ে পুলিশের হাতে ধরা 

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৪:৫০, ৩১ জুলাই ২০২১

 

ফারজানা বেগম। টিকটক অ্যাপে নিয়মিত তার উপস্থিতি। প্রতিদিনিই আপ করেন নতুন নতুন ভিডিও। টিকটক রাজ্যে আছে পরিচিতিও। কিন্তু তার আড়ালেই রয়েছে তার আরেক ভয়ঙ্কর পরিচিতি। তিনি এই নগরের অন্যতম ভয়ঙ্কর লেডি ছিনতাইকারী। শুধু তিনি নয় তার স্বামী রুবেলও সিএমপির তালিকাভূক্ত শীর্ষ ছিনতাইকারী। এই টিকটকার ফারজানার নামেই সিএমপির বিভিন্ন থানায় রয়েছে ৮টি মামলা। টিকটকের আড়ালে নিজের পরিচয় গোপন শেষ পর্যন্ত আর থাকেনি। পুলিশের হাতে ধরা পড়তেই হলো তাকে। 

শুক্রবার গভীর রাতে নগরের ডবলমুরিং থানার আগ্রাবাদ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে ডবলমুরিং থানা পুলিশ। 

পুলিশ জানিয়েছে, ফারজানার স্বামী রুবেল মাত্র ২ দিন আগে এলজি ও ছোরাসহ গ্রেপ্তার হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১১ টি মামলা রয়েছে। আর স্ত্রীর বিরুদ্ধে ৮টি মামলা রয়েছে। তারা স্বামী স্ত্রী মিলেই একটি ছিনতাই চক্র গড়ে তুলে নগরজুড়ে ছিনতাই করে যাচ্ছে। 

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ফারজানা টিকটক ও লাইকি করে। কিন্তু সে মূলত একজন ছিনতাইকারী। সে খুবই দুর্ধর্ষ ছিনতাইকারী। কিশোরদের নিয়ে তার নিজস্ব একটি ছিনতাইকারী দলও আছে। সে ছেলে ও মেয়েদের কাছ থেকে আলাদা কৌশলে ছিনতাই করে। সে একা চলাচলরত কোন ছেলেকে প্রথমে টার্গেট করে। এরপর ঠিকানা জিজ্ঞেস করার নামে তাকে থামায়। ছেলে থামলেই ছোরা দেখিয়ে তার কাছে থাকা টাকা ও মোবাইল দিয়ে দিতে বলে নতুবা তার বিরুদ্ধে ' ইভটিজিং' ও 'যৌন হেনস্থার অভিযোগ আনার হুমকি দেয়। এতে ভয়ে সবকিছু দিয়ে দেয় ছেলেরা। আর মেয়েদেরও ঠিকানা জিজ্ঞেস করার ভান করে থামায়। এরপর ছোরার ভয় দেখিয়ে সব ছিনিয়ে নেয়।’

ওসি আরও জানান, ফারজানার স্বামী রুবেল মাত্র ২ দিন আগে এলজি ও ছোরাসহ গ্রেপ্তার হয়েছিল। বর্তমানে রিমান্ডে আছে। ১১ মামলার আসামি রুবেল বর্বর প্রকৃতির ছিনতাইকারী। সে মেয়েদের গলার চেইন, কানের দুল ছিনতাই করে। এক্ষেত্রে অনেক সময়ই কান ছিড়ে যায়, গলা কেটে যায়।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়