Cvoice24.com

টিকা পায়নি চট্টগ্রামের ৬০ শতাংশ গণপরিবহন শ্রমিক

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:৫৬, ১৩ জানুয়ারি ২০২২
টিকা পায়নি চট্টগ্রামের ৬০ শতাংশ গণপরিবহন শ্রমিক

ছবি সংগৃহীত

নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যতো আসন ততো যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলাচলের নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। একইসঙ্গে চালক আর সহযোগীদের করোনার ভ্যাকসিন নিশ্চিতের কথা বলা হলেও গণপরিবহন সংগঠনগুলোর তথ্যমতে, এখনো টিকা নিয়েছে মাত্র ৪০ শতাংশ। টিকার বাইরে থেকে গেছে ৬০ শতাংশ। এমন পরিস্থিতিতে দোলাচলে পড়েছে সংশ্লিষ্টরা। 

গণপরিবহন মালিকরা বলছেন, পরিবহন শ্রমিকদের অনেকেরই এনআইডি কার্ড নাই। এখন পর্যন্ত মাত্র ৪০ শতাংশ চালক-শ্রমিক টিকার আওতায় এসেছে। বাকিদের টিকার আওতায় আনতেও কর্তৃপক্ষের সময় লাগবে। এখন যারা টিকা নিয়েছেন শুধু তাদের দিয়ে গণপরিবহন কার্যক্রম পরিচালনা করতে হলে মালিকদের বেগ পেতে হবে। অন্যদিকে কর্মহীন হয়ে পড়বে বাকিরা। 

তাদের দাবি, যে শ্রমিকরা টিকা পেয়েছে তারা নিজেদের উদ্যোগে টিকা নিয়েছে।  পরিবহন শ্রমিকরা যদি নির্দিষ্ট কোন জায়গায় গিয়ে টিকা দিতে পারতো তাহলে কোন সমস্যাই ছিল না। কিন্তু সরকার সে ব্যবস্থা করে নাই। এছাড়া অনেকের আইডি কার্ড নাই। তাদেরও কোন সুরাহা করেনি সরকার।

চট্টগ্রামের গণপরিহন সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলোর সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রতিটি গাড়িতে চালক, কন্ট্রাকটর ও সহযোগী মিলে তিনজন লোক থাকে। বিআরটিএর রোড পারমিট অনুসারে চট্টগ্রামে ১ হাজার ১৮১টি গণপরিবহন রয়েছে। কিন্তু রোড পারমিট ছাড়া আরো ১ হাজার ৩১৯টি গাড়ি চলছে। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামের রাস্তায় বর্তমানে প্রায় আড়াই হাজার গণপরিবহন চলছে। এসব গাড়িতে প্রায় ৫ হাজার শ্রমিক কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন। 

চট্টগ্রাম মহানগর বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম সিভয়েসকে বলেন, ১১ দফা নির্দেশনায় গণপরিবহন চালক-সহযোগীদের বিষয়ে টিকা সনদ নিয়ে যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে তা নিয়ে আমরা খুব চিন্তায় আছি। কারণ আমাদের ৬০ শতাংশ শ্রমিকই এখনো টিকার আওতায় আসেনি। গণটিকা দেয়ার সময় সরকার আমাদের গণপরিবহন শ্রমিকদের জন্য নির্দিষ্ট কোন টিকার জায়গা ঠিক করে দেয়নি। আমাদের পতেঙ্গা এলাকায় যদি নির্দিষ্ট একটা কেন্দ্র করা হতো তাহলে আমাদের অধিকাংশ শ্রমিক টিকা পেয়ে যেতো। যেহেতু বিষয়টি নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে তাই আমরা আজ আমাদের কারযকরী পরিষদের সদস্যদের নিয়ে একটি বৈঠক করেছি। আগামী সোমবার এ বিষয়ে জেলা প্রশাসনের কাছে একটা আবেদন জমা দিবো।

 চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব বেলায়েত হোসেন বেলাল সিভয়েসকে বলেন, আমাদের ৬০ শতাংশ শ্রমিক এখনো টিকার আওতায় আসেনি। বিষয়টি নিয়ে আমরাও উদ্বিগ্ন। কারণ নির্দেশনা অনুযায়ী আমাদের চালক-সহযোগীরা আইনগত বাধার সম্মুখীন হবেন। তবে আশা করছি শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যরা সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে সমস্যাটির সমাধান করবেন।
 

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়