Cvoice24.com

লোডশেডিংয়ে ধুকছে বরফের বাজার

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:৪৫, ১৪ আগস্ট ২০২২
লোডশেডিংয়ে ধুকছে বরফের বাজার

একদিকে ইলিশের মৌসুম, অন্যদিকে দীর্ঘদিন পর সাগরে ফিরেছে জেলেরা। এমন সময়ে বরফ বাজার থাকে তুঙ্গে। তবে দ্বিগুণ সময় লাগায় ধস নেমেছে বরফ উৎপাদনে। ফলে বরফের সংকটে সাগরে যেতে বেগ পেতে হচ্ছে মাঝি-মাল্লাদের। 

জানা গেছে, প্রতিদিন সাড়ে ৫ ফিটের ৬০০-র বেশি বরফ সরবরাহ হয় নগরের বিভিন্ন মাছ বাজারে। কিন্তু লোডশেডিংয়ের কারণে সরবারহ কমে যাচ্ছে বরফের। বিদ্যুৎ একটানা না থাকায় যেটুকু বরফ জমে, বিদ্যুৎ চলে গেলে সেটি আবারও গলে যায়। অন্যদিকে ডিজেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় জেনারেটর দিয়ে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ রাখতে গিয়ে খরচ বেড়ে যাচ্ছে। যার কারণে চাহিদার অর্ধেকও বরফ যোগান দেওয়া যাচ্ছে না।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) নগরের ফিরিঙ্গী বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে,  ফিরিঙ্গী বাজার এলাকায় সমুদ্রগামী মাছধরা ট্রলারের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৬শ। যার মধ্যে এ পর্যন্ত মাত্র ৩২০ টির মতো ট্রলারে বরফ সরবরাহ করা গেছে। ওই এলাকায় জিলানী আইস ফ্যাক্টরি, মক্কা আইস ফ্যাক্টরি, মামুন বরফ কল, সোনার বাংলা আইস প্ল্যান্ট এন্ড কোল্ড স্টোরেজ নামে চারটি বরফকল রয়েছে। 

সোনার বাংলা আইস প্ল্যান্ট এন্ড কোল্ড স্টোরেজে ভিড় জমিয়েছে মাছ ব্যবসায়ী ও ট্রলারের মাঝি-মল্লারা। সেখানে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে বরফ কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। 

সোনার বাংলা আইস প্ল্যান্ট এন্ড কোল্ড স্টোরেজের ব্যবস্থাপক আইয়ুব আলী সিভয়েসকে বলেন, ‘একটা বরফের ক্যানের বরফ জমতে সময় লাগে ২৪ ঘণ্টা। কিন্তু লোডশেডিং হচ্ছে দিনে ও রাতে মিলে গড়ে ১৩ ঘণ্টা। ফলে বরফ জমতে সময় লাগছে ৪৮ থেকে ৫০ ঘণ্টা।‘

মামুন বরফ কলের মালিক মামুন হাসান বলেন, আগে একটি বরফের বড় টুকরা বিক্রি হতো পাইকারিতে ১০০ টাকা দরে। এখন সেই বরফ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায়। এছাড়াও ডিজেলের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে জেনারেটরে কল চালু রাখতে গেলে খরচ আরও বেড়ে যায়।

পাথরঘাটা বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তোহিদুল ইসলাম সিভয়েসকে বলেন, পুরো বাংলাদেশে এখন বিদ্যুৎ সংকটে আছে। তারপরেও ইলিশ মৌসুমের কথা মাথায় রেখে ফিরিঙ্গী বাজার এলাকায় লোডশেডিং কমানোর কথা ভাবছে।

সিভয়েস- ডিসি /

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়