Cvoice24.com

বকশিসের টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটি-প্রতিশোধ নিতে খুন, ৩ জন আটক

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:৩৮, ৬ ডিসেম্বর ২০২২
বকশিসের টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটি-প্রতিশোধ নিতে খুন, ৩ জন আটক

বকশিসের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে কথা কাটাকাটি। অতঃপর প্রতিশোধ নিতে সিএনজি অটোরিকশা চালক হেলান উদ্দিনকে হত্যা। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) রাতে চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়।

আটকরা হলেন— মোহাম্মদ বখতিয়ার (২৭), মো. ইলিয়াস (৩৫) এবং মনির আহম্মদ প্রকাশ মেহেরাজ (২৬)। মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) চান্দগাঁও ক্যাম্পে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল এম এ ইউসুফ এসব তথ্য জানান।

জানা যায়, হেলালের বাড়ি নেত্রকোণা জেলার পূর্বধলা উপজেলার চাঁন মিয়ার ছেলে। তিনি বোয়ালখালীর জমাদারহাট এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া বাসায় থাকতেন। গত ২৯ নভেম্বর দুপুরে অটোরিকশা নিয়ে বাসা থেকে বের হন। এরপর থেকে তাঁর কোনও খোঁজ পাওয়া পাওয়া যায়নি । গত ৩ ডিসেম্বর বিকেলে বোয়ালখালী উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নের একটি ধানক্ষেত থেকে হেলালের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। হেলালের শরীরে আঘাতের চিহ্ন ছিল। তবে তাঁর সিএনজি অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় গত ৪ ডিসেম্বর নিহত হেলাল উদ্দিনের স্ত্রী বাদী হয়ে ৫ জনকে এজাহারনামীয় ও অজ্ঞাতনামা তিন চারজনকে আসামিকে করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল এম এ ইউসুফ বলেন, গাড়ি চালানোর সুবাধে ইলিয়াস নামের একজনের সাথে হেলালের পরিচয় হয়। ইলিয়াস পেশায় একজন সিএনজি অটোরিকশা গ্যারেজের মিস্ত্রি। চার মাস আগে ইলিয়াসের মামাতো ভাইয়ের একটি সিএনজি বিক্রির বিষয়ে নিহত হেলালের সহযোগিতা চায় ইলিয়াস। সিএনজিটি বিক্রি করে দিতে পারলে দুজন ৫ হাজার টাকা বকশিস পাবে বলে জানায় ইলিয়াস। পরে ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকায় তারা সিএনজি অটোরিকশাটি বিক্রি করে। ইলিয়াসের মামাতো ভাই বকশিসের টাকা দিলে সেই টাকা থেকে ইলিয়াস কিছু টাকা রেখে বাকি ১ হাজার টাকা হেলাল উদ্দিনকে দেয়। টাকা কম দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি থেকে মারামারিও হয়। 

তিনি আরও বলেন, ইলিয়াস তার পরিচিত আরেক সিএনজি অটোরিকশা চালক বখতিয়ার ও মনির আহম্মদ ওরফে মেহেরাজকে ভাড়া করে হেলাল উদ্দিনকে হত্যার জন্য। পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ২৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় ইলিয়াস হেলাল উদ্দিনকে তার সিএনজি বিক্রির বিষয়ে কথা বলার জন্য বোয়ালখালী পৌরসভার সিও অফিস সংলগ্ন একটি সিএনজি স্টেশনে আসতে বলে। হেলাল উদ্দিন ওই জায়গায় ইলিয়াসের সাথে দেখা করে। ইলিয়াস হেলালের সিএনজিসহ তাকে নিয়ে সিএনজি কেনার কথা বলে উপজেলার আমুচিয়া ইউনিয়নের পোস্ট অফিস সড়ক থেকে একটু ভিতরে দুর্গম এলাকার একটি খালি জায়গায় নিয়ে যায়। আরও একটি সিএনজি নিয়ে তার অপর দুই সহযোগী বখতিয়ার ও মেহেরাজ হেলাল উদ্দিনের সিএনজির পিছন পিছন তাদের কাছে উপস্থিত হয়। এরপর ইলিয়াস হেলালকে কিল-ঘুষি ও লাথি মারতে থাকে। বখতিয়ার কাঠের লাঠি দিয়ে হেলাল উদ্দিনের মাথায় আঘাত করে ও মেহেরাজ তার সাথে থাকা ছুরি দিয়ে পিঠে ছুরিকাঘাত করে। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে ইলিয়াস সিএনজি থেকে হাতুড়ি নিয়ে এসে হেলালের মাথায় উপুর্যপরি আঘাত করে। এরপর মৃত্যু নিশ্চিত করে ইলিয়াস হেলালের সিএনজি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ইলিয়াসের দুই সহযোগী বখতিয়ার ও মেহেরাজ মিলে লাশটি পাশের একটি ধানি জমির উপর রেখে তারাও পালিয়ে যায়।’

র‌্যাবের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, সিএনজি চালক হেলাল উদ্দিনকে নৃশংসভাবে হত্যার রহস্য ২৪ ঘণ্টার মধ্যে উদঘাটন করে হত্যার সঙ্গে সরাসরি জড়িত এ তিন আসামিকে আটক করতে সক্ষম হয়েছি।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়