Cvoice24.com

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে কক্সবাজার স্পেশাল

দেবাশীষ চক্রবর্তী, সিভয়েস২৪

প্রকাশিত: ২১:১৯, ২৮ মে ২০২৪
বন্ধ হয়ে যাচ্ছে কক্সবাজার স্পেশাল

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার রুটে চলাচল করা প্রথম ট্রেন ‘কক্সবাজার স্পেশাল’। আগামী বৃহস্পতিবার (৩০ মে) থেকে আর কক্সবাজারের পথে ছুটবে না ট্রেনটি। কারণ হিসেবে ইঞ্জিন সংকট ও লোকোমাস্টারের অভাবের কথা বলছে রেলওয়ে। আগামী ১০ পর্যন্ত ট্রেনটি চলার কথা ছিল।

মঙ্গলবার (২৮ মে) রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের সহকারী প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা (এসিওপিএস) কামাল আখতার হোসেন স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তি থেকে ট্রেন বন্ধের বিষয়টি জানা গেছে। বিজ্ঞপ্তিটি  পাঠানো হয়েছে চট্টগ্রাম রেলওয়ে বিভাগীয় দপ্তরে।

জরুরি ওই বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে, রেলওয়ের মহাপরিচালকের কার্যালয় থেকে কক্সবাজার স্পেশাল-৩ ও ৪ ট্রেনটি আগামী ১০ জুন পর্যন্ত চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু যান্ত্রিক বিভাগ থেকে ইঞ্জিন ও লোকোমাস্টারের সংকট থাকার কথা জানানো হয়েছে। এজন্য কক্সবাজার বিশেষ ট্রেন বুধবার (২৯ মে) পর্যন্ত চলবে। ৩০ মে (বৃহস্পতিবার) থেকে ১০ জুন পর্যন্ত ট্রেন চলাচল বাতিল করা হলো।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চট্টগ্রাম রেলওয়ে বিভাগীয় ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম সিভয়েস২৪-কে বলেন, পূর্বাঞ্চল রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ থেকে কক্সবাজার স্পেশাল ট্রেনটি বুধবারের পর থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।  

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রেলওয়ের এক কর্মকর্তা বলেন, মূলত ইঞ্জিন সংকটে ভুগছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল। রেলওয়ে মহাপরিচালকের কার্যালয়ের সিদ্ধান্ত অনুসারে ৩০ মে থেকে আগামী ১০ জুন পর্যন্ত বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে ঈদের দুইদিন আগে ছাড়া স্পেশাল ট্রেন চালু হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। প্রতিদিন গড়ে অন্তত ১১৫টি ইঞ্জিন প্রয়োজন হলেও পাওয়া যাচ্ছে ১০০টি।

উল্লেখ্য, ঈদযাত্রাকে কেন্দ্র করে গত ৮ এপ্রিল চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রুটে এক জোড়া স্পেশাল ট্রেন চালু করা হয়। ঈদের দিন বাদ দিয়ে ট্রেনটি চলাচলের কথা ছিল ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। দফায় দফায় সময় বর্ধিত করে আগামী ১০ জুন পর্যন্ত ট্রেনটি চলাচলের কথা ছিল। ঈদ পরবর্তী ১৭ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত এ ট্রেন ফের চলাচলের অনুমতি দেয়া হলেও সময় বাড়িয়ে ২০ মে পর্যন্ত চলতে থাকে কক্সবাজার স্পেশাল ট্রেন। পরে এই রেলসড়কে যাত্রী চাহিদার কারণে দ্বিতীয় দফায় সময় বাড়িয়ে ১০ জুন পর্যন্ত করে পরিবহন বিভাগ।

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়