image

আজ, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১


চট্টগ্রাম থেকে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জাহাজ যাত্রা

চট্টগ্রাম থেকে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জাহাজ যাত্রা

কক্সবাজারের উখিয়া থেকে নিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রথম দলটি চট্টগ্রাম থেকে নোয়াখালীর হাতিয়ার ভাসানচরের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছে। 

আজ শুক্রাবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ১ হাজার ৬৪২ জন রোহিঙ্গাকে নিয়ে ভাসানচরের উদ্দেশে সাতটি জাহাজ রওনা দেয়। আরও সাড়ে ৩ হাজার রোহিঙ্গাকে আজ পতেঙ্গা হয়ে ভাসানচরে পাঠানোর হবে এবং ১ সপ্তাহের মধ্যে এ স্থানান্তর কাজ সম্পন্ন হবে বলে জানা গেছে।

নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এমকেজেড শামীম জানিয়েছেন, শুক্রবার সকাল সোয়া ১০টার পর চট্টগ্রামের বোট ক্লাব, আরআরবি ও কোস্টগার্ডের জেটি থেকে জাহাজগুলো ছেড়ে যায়।

আরও পড়ুন: ২৫০০ রোহিঙ্গার নতুন ঠিকানা ভাসানচর

চট্টগ্রামের image বোট ক্লাব, আরআরবি ও কোস্টগার্ডের জেটি থেকে জাহাজগুলো ছেড়ে যায় বলে জানা গেছে। বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ছয়টি ও সেনাবাহিনীর একটি জাহাজে এই রোহিঙ্গারা যাত্রা করেছে। আজ দুপুরের দিকে তাদের ভাসানচরে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে রোহিঙ্গাদের বহনকারী ৩৯টি বাস উখিয়া কলেজের মাঠ থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা করে। ১ হাজার ৬৩৫ জন রোহিঙ্গা নারী, শিশু ও পুরুষ রাতে চট্টগ্রামে পৌঁছায়। পতেঙ্গা বিএএফ শাহীন কলেজ মাঠ ও বোট ক্লাব এবং এর আশপাশের এলাকায় অস্থায়ী ট্রানজিট শিবিরে তাদের রাখা হয়।

আরও পড়ুন: ঝুপড়ি ছেড়ে অট্টালিকায় উঠছে রোহিঙ্গারা

সমাজ কল্যাণ উন্নয়ন সংস্থার চেয়ারপারসন জেসমিন প্রেমা জানান, শুধু আগ্রহী রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নেয়ার কাজ করছে সরকার এবং ২২টি উন্নয়ন সংস্থা। 
এসব রোহিঙ্গাকে জাহাজে ওঠার পূর্বে বিভিন্ন ডাটা এন্ট্রি সাপেক্ষে বরাদ্দকৃত আশ্রয়ণের টোকেন ও চাবি হস্তান্তর করা হবে। ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের জন্য আধুনিক বাসস্থান ছাড়াও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, ক্লিনিক ও খেলার মাঠ গড়ে তোলা হয়েছে।

অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য সেখানে মহিষ, ভেড়া, হাঁস, কবুতর পালন করা হচ্ছে। আবাদ করা হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি। পরীক্ষামূলকভাবে ধান চাষও করা হচ্ছে। প্রকল্পটিতে যেন ১ লাখ ১ হাজার ৩৬০ শরণার্থী বসবাস করতে পারেন সে লক্ষ্যে গুচ্ছগ্রাম নির্মাণ করা হয়েছে। ১২০টি গুচ্ছগ্রামে ঘরের সংখ্যা ১ হাজার ৪৪০টি।

সরকারের শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কার্যালয়ের অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ সামছু দ্দৌজা গত ২৯ নভেম্বর বলেছিলেন, ‌‌‌‘আগামী ৭-১০ দিনের মধ্যে রোহিঙ্গাদের একটি দলটি ভাসান চরে স্থানান্তরের যাবতীয় প্রস্তুতি চলছে।’

রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির ও তার বাইরে অবস্থান নিয়ে থাকা প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে নিয়ে নানা সামাজিক সমস্যা সৃষ্টির প্রেক্ষাপটে দুই বছর আগে তাদের একটি অংশকে হাতিয়ার কাছে মেঘনা মোহনার দ্বীপ ভাসান চরে স্থানান্তরের পরিকল্পনা নেয় সরকার।

সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে ২৩১২ কোটি টাকা ব্যয়ে মোটামুটি ১৩ হাজার একর আয়তনের ওই চরে ১২০টি গুচ্ছগ্রামের অবকাঠামো তৈরি করে এক লাখের বেশি মানুষের বসবাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মালয়েশিয়া যেতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসা তিন শতাধিক রোহিঙ্গাকে সমুদ্র থেকে উদ্ধার করে আগেই ভাসানচরে নিয়ে রাখা হয়েছিল। এরপর গত ৫ সেপ্টেম্বর কক্সবাজারের শরণার্থী ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গাদের একটি প্রতিনিধি দলকে দেখার জন্য ভাসান চরে পাঠানো হয়। তারা ফেরার পর তাদের কথা শুনে রোহিঙ্গাদের একাংশ ভাসান চরে যেতে আগ্রহ প্রকাশ করে বলে জানা গেছে।

এদিকে বুধবার এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ বলেছে, রোহিঙ্গাদের ভাসান চরে নেওয়ার যে পরিকল্পনা সরকার করেছে, তার সঙ্গে জাতিসংঘের কোনো ধরনের সম্পৃক্ততা নেই।
ভাসান চরে যাওয়ার ক্ষেত্রে রোহিঙ্গারা যেন সব তথ্য জেনে স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে, তা নিশ্চিত করতেও সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয় ওই বিবৃতিতে।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এই স্থানান্তর প্রক্রিয়ার প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রমে, অথবা শরণার্থীদের শনাক্ত করার প্রক্রিয়ায় জাতিসংঘকে সম্পৃক্ত করা হয়নি। স্থানান্তরের সার্বিক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জাতিসংঘের কাছে পর্যাপ্ত তথ্য নেই।’

অন্যদিকে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচও (এইচআরডব্লিউ) বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে।

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট পরবর্তী মিয়ানমারে নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হয়ে এদেশে পালিয়ে আশ্রয় নেয় ১০ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা। এসব রোহিঙ্গা কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছে।

আরও পড়ুন

চট্টগ্রামে ১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৯৮ 

গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৪৫৭ টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা বিস্তারিত

স্থগিত হচ্ছে আলকরণ ওয়ার্ডের নির্বাচন

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য, চট্টগ্রাম সিটি বিস্তারিত

মহসীনসহ সিএমপির ৫ ওসি পদে রদবদল  

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের (চসিক) ভোটের ৯ দিন আগেই নির্বাচন বিস্তারিত

চট্টগ্রামের সন্তান ‘কাউন্সিলর’ সেলিমের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য ও চট্টগ্রাম সিটি বিস্তারিত

শুরুতেই ২২২ কেন্দ্রের নির্বাচনী কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ 

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণে সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ শুরু করেছে বিস্তারিত

টাইগারপাসে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় প্রাণ গেল যুবকের

নগরের টাইগারপাস মোড়ে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় মো. ইব্রাহিম (২৮) নামে এক যুবক বিস্তারিত

ক্যান্সারের কাছে হেরে চিরঘুমে ‘কাউন্সিলর’ সেলিম

প্রাণে উচ্ছ্বাস আর বুকভরা সাহস—তাতে ভর করে বারবার লড়েছেন নানা নীল নকশার বিস্তারিত

বেশভূষা পাল্টেও রক্ষা হয়নি রোহিতের খুনিদের

বাকলিয়ায় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মো. আশিকুর রহমান রোহিতকে (২০) খুন করে বেশভূষা বিস্তারিত

চট্টগ্রামে মৃত্যুহীন দিনে আরও ৮৮ জন করোনা আক্রান্ত

গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ১৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা বিস্তারিত

সর্বশেষ

চট্টগ্রামে ১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৯৮ 

গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে ১ হাজার ৪৫৭ টি নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে করোনা বিস্তারিত

রাঙ্গুনিয়ায় গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় জান্নাতুল তাসলিমা বৃষ্টি (২০) নামের এক বিস্তারিত

স্থগিত হচ্ছে আলকরণ ওয়ার্ডের নির্বাচন

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক কার্যনির্বাহী সদস্য, চট্টগ্রাম সিটি বিস্তারিত

মহসীনসহ সিএমপির ৫ ওসি পদে রদবদল  

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের (চসিক) ভোটের ৯ দিন আগেই নির্বাচন বিস্তারিত

সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত, এই ওয়েব সাইটের যেকোন লিখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ন বেআইনি

close image