Cvoice24.com

জিয়ার জাদুঘর সরানোর সিদ্ধান্ত জনগণ মানবে না— স্থায়ী কমিটির ঘোষণা 

সিভয়েস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮:৪০, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১
জিয়ার জাদুঘর সরানোর সিদ্ধান্ত জনগণ মানবে না— স্থায়ী কমিটির ঘোষণা 

চট্টগ্রামে এসে তথ্য প্রতিমন্ত্রী চট্টগ্রামের পুরানো সার্কিট হাউস থেকে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের জাদুঘর সরিয়ে নেওয়ার হুমকির সপ্তাখানেক পর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বিএনপি। একেবারে দলের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরামের বৈঠকে যুক্ত হয়ে ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান বলেছেন, সরকারের এই সিদ্ধান্ত তারা মানবেন না। 

বিএনপি নেতারা বলেন, ‘বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা এবং আধুনিক সমৃদ্ধ বাংলাদেশের রূপকার প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে নির্মমভাবে হত্যার পর তৎকালীন সরকার সার্কিট হাউসটিকে জাদুঘরে রূপান্তরের সিদ্ধান্ত নেন। এটি ছিল জনগণের দাবির ভিত্তিতে স্বাধীনতা যুদ্ধের ঘোষকের প্রতি জাতির সম্মান প্রদর্শনের নিদর্শন। জাদুঘর সরানোর হীন সিদ্ধান্ত কোনো দিনই জনগণ মেনে নেবে না।’

শনিবার দলটির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সভায় এ দাবি করা হয়।  এ সভায় লন্ডন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

সভায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

চট্টগ্রাম পুরনো সার্কিট হাউসে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তমের নামে থাকা জাদুঘর সরিয়ে ফেলা হবে বলে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী যে উক্তি করেছেন, তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় সভায়। 

এরআগে গত ৫ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম সফরে এসে চট্টগ্রাম পুরাতন সার্কিট হাউজে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের নামে প্রতিষ্ঠিত জাদুঘর সরিয়ে ফেলার কথা জানান তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ড. মুরাদ হাসান।

এরআগেও গত ২৮ মে চট্টগ্রামে এক অনুষ্ঠানে জিয়া জাদুঘরের নাম বদলে ফেলার দাবি জানান শিক্ষা উপমন্ত্রী  মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। মুক্তিযুদ্ধ ও যুব বিদ্রোহের স্মৃতি বিজড়িত পুরাতন সার্কিট হাউজে ‘মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর চট্টগ্রাম’ এর অংশ হিসেবে ঘোষণা করতে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের কাছে তিনি।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়