Cvoice24.com

চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপন না করায় সুজনের ক্ষোভ

সিভয়েস ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:১২, ২৭ অক্টোবর ২০২১
চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপন না করায় সুজনের ক্ষোভ

দেশের বিমানবন্দরসমূহে জরুরি ভিত্তিতে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পরেও চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এখনো পিসিআর ল্যাব স্থাপন না করায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন।

বুধবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে পিসিআর ল্যাব স্থাপন নিয়ে তিনি এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির অন্যতম চালিকাশক্তি হচ্ছে প্রবাসী আয়। বাংলাদেশের শ্রমশক্তির একটি উল্লেখযোগ্য অংশ মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত রয়েছে। করোনাকালীন সময়ে তারা ছুটিতে দেশে আসলেও শুধুমাত্র বিমানবন্দরসমূহে র‌্যাপিড পিসিআর টেস্টের ব্যবস্থা না থাকায় তারা সঠিক সময়ে কর্মস্থলে ফিরে যেতে পারছেন না। বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবন করে গত ৬ সেপ্টেম্বর মন্ত্রিসভার বৈঠকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের তিন বিমানবন্দরে জরুরি ভিত্তিতে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের নির্দেশ প্রদান করেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পরে অক্টোবরের শুরুতে ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হলেও চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এখনো পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়নি। 

‘আরব আমিরাতে অবস্থানরত উল্লেখযোগ্য অংশই হচ্ছে চট্টগ্রামের প্রবাসী। কিন্তু শাহ আমানত বিমানবন্দরে পিসিআর টেস্টের ব্যবস্থা না থাকায় ঢাকা শাহজালাল বিমানবন্দর দিয়ে চট্টগ্রামের প্রবাসীদের বিদেশ যেতে হচ্ছে। আর পিসিআর টেস্টের জন্য লাইনে দাড়িয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষাসহ বিভিন্ন প্রকার ঝক্কি ঝামেলায় তাদের জীবন দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে।’— বলেন সুজন।

তিনি আরও বলেন, একেতো চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলা হতে ঢাকায় যাওয়া তার উপর ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাড়িয়ে থাকা চট্টগ্রামের প্রবাসীদের জন্য এক প্রকার অমানবিক বিষয় হয়ে দাড়িয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার পরেও কারা এ নির্দেশনা অমান্য করছে তা জানতে চায় চট্টগ্রামের প্রবাসীরা। পিসিআর ল্যাব স্থাপনে সময়ক্ষেপণের ফলে অনিশ্চয়তায় রয়েছেন চট্টগ্রামে অবস্থানরত সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসীরা। চাকুরি কিংবা ব্যবসা বাঁচাতে অনেক প্রবাসী তৃতীয় দেশ ব্যবহার করে সংযুক্ত আরব আমিরাত যাচ্ছে। এতে করে তাদের ব্যয় ও ভোগান্তি দুইই বাড়ছে। পিসিআর টেস্টের কারণে প্রবাসীরা যদি সঠিক সময়ে বিদেশ যেতে না পারে তাহলে আমাদের শ্রমবাজার সংকুচিত হয়ে পড়বে। আর সে বাজার দখল করবে আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশসমূহ। 

ইতিপূর্বে ল্যাব স্থাপনের জন্য ভুক্তভোগী প্রবাসীরা বিভিন্ন সময় সংবাদ সম্মেলন, মানববন্ধন এমনকি সমাবেশ করে আসলেও এখনো পর্যন্ত ল্যাব স্থাপন না করায় প্রবাসীদের মনে ক্ষোভ বিরাজ করছে। নাগরিক উদ্যোগও বিভিন্ন সময়ে পিসিআর ল্যাব স্থাপনের জন্য বিভিন্ন সময় সমাবেশ ও বক্তৃতা, বিবৃতির মাধ্যমে পিসিআর ল্যাব স্থাপনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষন করতে সক্ষম হন। তারপরও হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়া অন্য কোন বিমানবন্দরে এখনো পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়নি। বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিধায় সকল প্রকার আমলাতান্ত্রিক জটিলতা নিরসন করে চট্টগ্রামের প্রবাসীদের স্বার্থে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি সবিনয় অনুরোধ জানান সুজন।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়