Cvoice24.com

সম্রাটের জামিন বাতিলের আদেশ আপিলেও বহাল

সিভয়েস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:০১, ১০ আগস্ট ২০২২
সম্রাটের জামিন বাতিলের আদেশ আপিলেও বহাল

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের জামিন বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে করা আবেদন (লিভ টু আপিল) খারিজ করেছেন আপিল বিভাগ। এতে সম্রাটের জামিন বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ বহাল থাকল।

বুধবার (১০ আগস্ট) বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে সম্রাটের পক্ষে ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ এবং দুদকের পক্ষে অ্যাডভোকেট মো. খুরশিদ আলম খান শুনানি করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান গণমাধ্যমকে বলেন, সম্রাটের জামিন বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ আপিল বিভাগে বহাল থাকায় এ মামলায় তাকে কারাগারে থাকতে হচ্ছে।

গত ৮ আগস্ট সম্রাটের জামিন বাতিল করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিলের শুনানি শেষ হয়।

এর আগে গত ১১ মে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা এই মামলায় ঢাকার বিশেষ জজ আদালত সম্রাটকে শর্তসাপেক্ষে ৯ জুন পর্যন্ত জামিন দেন। পরে গত সোমবার ওই জামিন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করে দুদক। দুদকের করা এই মামলায় বিচারিক আদালতে জামিন পাওয়ার আগে সম্রাট তার বিরুদ্ধে থাকা আরও তিনটি মামলায় জামিন পান। চার মামলার সব কটিতেই জামিন পাওয়ায় ১১ মে বিএসএসএমইউর (বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল হাসপাতাল) প্রিজন সেল থেকে কারামুক্তি পান সম্রাট। তবে তিনি এখনো ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গত ১৮ মে বিচারিক আদালতের আদেশের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আবেদনে সম্রাটের জামিন বাতিল করেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি তাকে সাত দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণেরও নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপর হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে সম্রাট আপিল বিভাগে আবেদন করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১২ নভেম্বর দুই কোটি ৯৪ লাখ ৮০ হাজার ৮৭ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সম্রাটের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন দুদকের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম। একই বছরের ৬ অক্টোবর কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব।

মামলাটি তদন্ত করে ২০২০ সালের ২৬ নভেম্বর সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন দুদকের উপপরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলম। গত ২২ মার্চ দুদকের দেওয়া অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কেএম ইমরুল কায়েশ। অভিযোগ গঠন শুনানির তারিখ ধার্য করে মামলাটি বিশেষ জজ আদালত-৬ এ পাঠানো হয়।

 

-সিভয়েস/পিবি

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়