Cvoice24.com

এক টিন সনদে দুই গাড়ির নিবন্ধন, জালিয়াতির শিকার খোদ পরিবেশের পরিচালক

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২২:০২, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
এক টিন সনদে দুই গাড়ির নিবন্ধন, জালিয়াতির শিকার খোদ পরিবেশের পরিচালক

পরিবেশের পরিচালক ইশরাাত রেজা।

গাড়ির ট্যাক্স পরিশোধ করতে বিআরটিএ থেকে ম্যা্সেজ আসে চট্টগ্রাম গবেষণাগার পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (উপ-সচিব) ইশরাত রেজার মোবাইলে। তিনি মেসেজ পেয়ে নিয়মানুযায়ী টাকা নিয়ে ব্যাংকেও যান। সেখানে গেলেই বাধে যত বিপত্তি। সেখানকার ব্যাংক কর্মকর্তা জানান, তার টিএনের বিপরীতে দুইটি গাড়ির রেজিস্ট্রেশন রয়েছে। তাই একটি নয় পরিশোধ করতে হবে দু’টি গাড়ির ট্যাক্স!

পরে ব্যাংক থেকে বেরিয়ে তিনি সরাসরি হাটহাজারী বিআরটিএ অফিসে গেলে সেখান থেকেও বলা হয় দুইটি গাড়ির জন্য সাড়ে ৩৭ হাজার টাকা পরিশোধ করতে হবে। তার টিএন সার্টিফিকেটের বিপরীতে দুইটি গাড়ির রেজিস্ট্রেশন থাকায় সেদিনই থানায় জিডি করেন তিনি। বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) খুলশী থানায় তিনি এ জিডি করেন।

অভিযোগে বলা হয়, ২০১৮ সালের ২৬ জুলাই একটি গাড়ি কিনে সরকারের নিয়ম অনুসারে গাড়িটি বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) থেকে রেজিস্ট্রেশন করেন। যার রেজিস্ট্রেশন নম্বর চট্টগ্রাম মেট্টো গ-১৩-৬৯৯১। সরকারি সব নিয়ম মেনে প্রতি বছর গাড়ির কর পরিশোধ করা হয়। নিয়মানুযায়ী চলতি বছরের ট্যাক্স পরিশোধের জন্য বিআরটিএ থেকে মোবাইলে ক্ষুদে (ম্যাসেজ) বার্তা আসে। তাই গাড়ির ট্যাক্স পরিশোধ করতে ব্যাংকে গেলে ব্যাংক কর্মকর্তা জানান, দুইটি গাড়ির ট্যাক্স পরিশোধ করতে হবে। ব্যাংক থেকে সরাসরি চট্টগ্রাম বিআরটিএ অফিসে গাড়ির ট্যাক্স পরিশোধ করতে গেলে সেখানেও বলো হয় একটি টিএন সার্টিফিকেটের বিপরীতে দুইটি গাড়ির রেজিস্ট্রেশন আছে। দুইটি গাড়ির ট্যাক্স সাড়ে ৩৭ হাজার টাকা লাগবে বলে জানান বিআরটিএ কর্মকর্তা।

চট্টগ্রাম পরিবেশ অধিদপ্তররে গবেষণাগার পরিচালক (উপসচিব) ইশরাত রেজা সিভয়েসকে বলেন, ‘প্রতি বছরে মতো এবারও গাড়ির ট্যাক্স দেওয়ার জন্য গত ৪ সেপ্টেম্বর বিআরটিএ থেকে মোবাইলে ম্যাসেজ আসে। তাই নিয়মানুযায়ী একটি গাড়ির ২৫ হাজার টাকা নিয়ে ব্যাংকে যায়। কিন্ত ব্যাংক অফিসার বলেন, আয়কর প্রত্যয়নপত্র (টিআইএন) নং-২৭৪৪৬১৮০০৩৫৪ নম্বরের বিপরীতে দুইটি গাড়ি টাকা পরিশোধ করতে হবে। তখন আমি ব্যাংকে টাকা না দিয়ে সরাসরি হাটহাজারি বিআরটিএ অফিসে গাড়ির ট্যাক্স পরিশোধ করতে যাই। সেখানকার বিআরটিএ কর্মকর্তাও বলেন, দুইটি গাড়ির ৩৭ হাজার ৫শ’ টাকা পরিশোধ করতে হবে। তখন টাকা না দিয়ে আজ বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) খুলশী থানায় জিডি করি।’

একটি আয়কর প্রত্যয়নপত্রের (টিআইএন) বিপরীতে আরেকজনের গাড়ি নিবন্ধন এক ধরনের বিআরটিএর জালিয়াতি ও প্রতারণা বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

তবে বিআরটিএ’র চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (সাধারণ) মোহাম্মদ সাদাত হোসেন সিভয়েসকে বলেন, ‘গাড়ি রেজিস্ট্রেশন করার সময় ই-টিআইএন তথ্য যাচাই করতে বিআরটিএ সঙ্গে এনবিআর যৌথভাবে কাজ করে। অতএব এক জনের টিএনের বিপরীতে আরেকটি গাড়ি রেজিস্ট্রেশন হলে তা সংশোধন করা যাবে। তবে এই রকম অভিযোগ হাতে পাইনি। অভিযোগ এলে তদন্তের মাধ্যমে ঠিক করে দেওয়া হবে।’

-সিভয়েস/কেকে/এমএম

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়