Cvoice24.com

ভাঙ্গা সড়ক ঠিক করতে ৭দিনের সময় দিলেন সুজন

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২২:১৬, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১
ভাঙ্গা সড়ক ঠিক করতে ৭দিনের সময় দিলেন সুজন

সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড প্রশ্নবিদ্ধ করতেই উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রশাসক এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন। এসময় নগরীর ভিআইপি সড়কের ভাঙা স্থানগুলো এক সপ্তাহের মধ্যে সংস্কার করতে আল্টিমেটামও দেন তিনি।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় বন্দরটিলা চত্বরে খানাখন্দে ভরা সড়ক সংস্কারের দাবিতে রাহে ভান্ডার তরুণ আশেকান পরিষদ (রাতআপ) বন্দর শাখা আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

খোরশেদ আলম সুজন বলেন, দেওয়ানহাট থেকে পতেঙ্গা পর্যন্ত সড়কটি চট্টগ্রামের প্রধান সড়ক। এ সড়কটি নগরের ভিআইপি সড়ক হিসেবেও পরিচিত। প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন এবং লাখো মানুষের যাতায়াত এই সড়ক দিয়ে। এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ করতে গিয়ে এ সড়ক সংকুচিত করে ফেলেছে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান। তাছাড়া নির্মাণ কাজ করতে গিয়ে ওই সড়কে অসংখ্য শতশত ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তার দু’পাশে পানি জমে কর্দমাক্ত হয়ে রাস্তাটি পুরোপুরি চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের সঙ্গে রয়েছে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম বন্দর, দু’টি ইপিজেড, কলকারখানা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বেসরকারি কন্টেইনার ডিপো, ব্যাংক, নৌ ও বিমান বাহিনীর সব গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা।

‘শুধুমাত্র দু’টি ইপিজেডে কাজ করেন কয়েকলাখ পুরুষ ও নারী শ্রমিক। শিক্ষার্থীরা এখন প্রতিদিন স্কুল-কলেজে যাচ্ছে। তাছাড়া এখানে রয়েছে একটি কোভিড টিকা কেন্দ্র। হাজার হাজার মানুষের চলাফেরা রয়েছে শুধু এই এলাকায়।’ কিভাবে একটি মানুষ নিশ্চিন্তে রাস্তায় চলাফেরা করবে অথবা রাস্তা পার হবে সে প্রশ্নও রাখেন সুজন। 

তিনি আরও বলেন, ‘মানুষ যে ভারী ভারী যানবাহনের চাপায় পড়বে না তার নিশ্চয়তা কে দিবে? বৃষ্টি শুরু হলে কাদাপানির ভোগান্তি আর বৃষ্টি কমলে শুরু হয় ধুলিঝড়। দেখে মনে হবে যেন একটা যুদ্ধবিধ্বস্ত এলাকার বাসিন্দা এরা। অব্যাহত ধুলিকণায় অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিশু, বৃদ্ধসহ সর্বস্তরের মানুষ। মানুষের ফুসফুসে ক্যান্সার বাসা বাঁধছে। এরকম একটি অমানবিক পরিস্থিতিতে বসবাস করছে ওই এলাকার জনসাধারণ। যাদের কোন স্বাভাবিক জীবনধারা নেই বললেই চলে। ওই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী লাখো পথচারী এবং যানবাহনের যাত্রীদের সীমাহীন ভোগান্তি যেন শেষ হওয়ার নয়। রোগীকে হাসপাতাল নেওয়ার মূহুর্তে এ পর্যন্ত তিনজন রোগী রাস্তায় মৃত্যুবরণ করেন। কবে যে এ দুর্ভোগ থেকে তারা মুক্তি পাবে তা কেউ জানে না। একমাত্র আল্লাহ ভালো জানেন এবং তিনিই তাদের একমাত্র ভরসা।’ 

সুজন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে যে বা যারা গাফিলতি করবে তাদেরকে জনগণ কোনদিনও ক্ষমা করবে না। তিনি সমাবেশস্থল থেকে সিডিএর প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস’র সঙ্গে ফোনে কথা বলেন এবং প্রতিদিন তিনবার ওই সড়কে পানি ছিটানোর আহ্বান জানান। প্রধান প্রকৌশলী সুজনের প্রস্তাবে সম্মত হন এবং এ ব্যাপারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা প্রদান করবেন বলে অঙ্গীকার করেন। এছাড়া রাস্তার দু’পাশে জমে থাকা কাদা এবং পানি অপসারণের জন্য সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন বিভাগেরও দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

আগামী শুক্রবারের মধ্যে রাস্তাটি সংস্কার করে গাড়ী চলাচলের উপযোগী করে তুলতে ব্যর্থ হলে জনগণের স্বার্থে এলাকাবাসীকে সঙ্গে নিয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন।

-সিভয়েস/ওয়াইআর/এমএম

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়