Cvoice24.com

ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ: অপ্রাপ্ত বয়স্ক সন্তানের অপরাধে অভিভাবকের শাস্তি

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:১৬, ১৩ অক্টোবর ২০২১
ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ: অপ্রাপ্ত বয়স্ক সন্তানের অপরাধে অভিভাবকের শাস্তি

ট্রেনে পাথর নিক্ষেপকারীদের শনাক্তে কাজ চলছে। কেউ সচেতন না হলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে চট্টগ্রাম জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাছান চৌধুরী। ১৮৯০ সালের রেলওয়ে আইন অনুযায়ী, ‘অপ্রাপ্ত বয়স্ক সন্তানের অপরাধের ক্ষেত্রে অভিভাবকের শাস্তির বিধান রয়েছে জানিয়ে রেলে পাথর নিক্ষেপ বন্ধে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। 

বুধবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে চট্টগ্রামের টাইগারপাস রেলওয়ে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে ‘চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ প্রতিরোধে জনসচেতনা সৃষ্টির’ উদ্দেশ্যে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আহ্বান জানান। 

তিনি আরও জানান, চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ একটি অপরাধ। এই আইনে ১৮৯০ সালের বাংলাদেশ রেলওয়ে আইনের ১২৭ ধারায় ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের জন্য যাবজ্জীবন জেল অথবা দশ বছর কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে। উদ্দেশ্যমূলকভাবে পাথর নিক্ষেপে রেল যাত্রীর মৃত্যুর কারণ প্রমাণিত হলে দণ্ডবিধি ৩০২ ধারায় মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ জরিমানার বিধান রয়েছে। ১৮৯০ সালের রেলওয়ে আইন অনুযায়ী, অপ্রাপ্ত বয়স্ক সন্তানের অপরাধের ক্ষেত্রে অভিভাবকের শাস্তির বিধান রয়েছে।  

অপ্রাপ্ত বয়স্কদের অপরাধের ক্ষেত্রে অভিভাবকের শাস্তির বিধানের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘অক্টোবরের ৭ তারিখ ফেনীর ফাজিলপুর রেলওয়ে স্টেশনে সিলেটগামী পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। এর পরপরই পুলিশ পাথর নিক্ষেপকারী শিশু আবদুল আজিজকে (৮) শনাক্ত করে। পরে তাকে ও তার বাবাকে আটক করে আদালতে উপস্থাপন করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা রেললাইনের আশপাশের বসবাসকারী অভিভাবক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে আহ্বান করছি তারা যেন সবাইকে সচেতন করে। পাশাপাশি কেউ রেলে পাথর নিক্ষেপ করলে তাকে যেন পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। সম্প্রতি সময়ে চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপের প্রবণতা বেড়েছে। রেল লাইনের পাশে বসবাসকারি মানুষ অসচেতনতা ও মজার ছলে বা খেলার ছলে পাথর নিক্ষেপ করে থাকে। এতে মারাত্মক দুর্ঘটনা সংঘটিত হয়। এমন একটি দুর্ঘটনায় একটি পরিবারের হতে পারে অপূরণীয় ক্ষতি। তাই চলন্ত ট্রেনে পাথর নিক্ষেপ রোধ করতে জনসচেতনতার বিকল্প নেই।’

পাথর নিক্ষেপ করলে রেলওয়ে আইনের ১২৭, ১২৮, ১২৯ এবং ১৩০ ধারার শাস্তির বিধান রয়েছে জানিয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হাছান চৌধুরী সবাইকে পাথর নিক্ষেপের মতো ঘৃণ্য কাজ থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেন।

-সিভয়েস/ওয়াইআর

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়