Cvoice24.com

প্রতিটি উপজেলায় কর অফিস চালু হলে করদাতা বাড়বে—চেম্বার সভাপতি

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫:০৬, ২৪ নভেম্বর ২০২১
প্রতিটি উপজেলায় কর অফিস চালু হলে করদাতা বাড়বে—চেম্বার সভাপতি

সর্বোচ্চ করদাতাদের সম্মাননা প্রদান করা হয় এ অনুষ্ঠানে

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটা লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছেন। দেশকে আরো এগিয়ে নিতে হলে আমাদের সবাইকে স্বেচ্ছায় কর দিতে হবে। তাই প্রতিটি উপজেলায় কর অফিস চালু হলে করদাতা বাড়বে বলে আমরা বিশ্বাস করি।’

বুধবার (২৪ নভেম্বর) সকাল ১১টায় নগরের আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে সর্বোচ্চ করদাতাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ব্যবসায়ীরা যাতে হয়রানিমুক্ত ভ্যাট, ট্যাক্স দিতে পারে সে ব্যবস্থা করতে হবে। কর সম্পর্কিত আইন কঠিন। এটি সহজ সরল ও জটিলতামুক্ত করতে হবে। তাহলে করদাতাদের ভীতি কমবে। পাশাপাশি করদাতারা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তাই তাদের সামাজিকভাবে সম্মান দেওয়া হলে বড় স্বীকৃতি হবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও বিশেষ কারণে তিনি উপস্থিত হতে পারেননি। 

সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কর কমিশনার একেএম হাসানুজ্জামান, কর আপিল কমিশনার মঞ্জু মান আরা বেগম, ভ্যাট কমিশনার মোহাম্মদ আকবর হোসেন, কর কমিশনার (অঞ্চল ৩) মো. মাহমুদুর রহমান, মেট্রোপলিটন চেম্বার সিএমসিসিআই পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, কর আইনজীবী সমিতির সভাপতি এনায়েত উল্লাহ প্রমুখ। 

এদিকে সকালে জাকজমক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে চট্টগ্রামের চার কর অঞ্চলের অন্তর্ভূক্ত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন(চসিক), চট্টগ্রাম জেলা, কক্সবাজার, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান ও রাঙ্গামাটি অঞ্চলের ৪২ জন সর্বোচ্চ করদাতাকে সম্মাননা দিয়েছে আয়কর বিভাগ। 

বুধবার (২৪ নভেম্বর) সকাল ১১টায় নগরের আগ্রাবাদ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে চসিক, চট্টগ্রাম জেলা, কক্সবাজার, খাগড়াছড়ি, বান্দরবান ও রাঙ্গামাটি অঞ্চল থেকে দীর্ঘমেয়াদি সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে ১২ জন, সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে ১৮ জন, ৬ জন তরুণ পুরুষ ও ৬ জন মহিলা করদাতার হাতে সম্মাননা তুলে দেয়া হয়। 

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন থেকে এক বছরে দীর্ঘমেয়াদি সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন মোহাম্মদ আলী মেহের ও সৈয়দ আবু মোহাম্মদ শাহজাহান। মোহাম্মদ কামাল, মোহাম্মদ নাদের খান ও মো. নাছির উদ্দিন সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সম্মানিত হয়েছেন। তছাড়া মহিলা করদাতার মধ্যে  জেবুন নাহার ইসলাম ও তরুণ পুরুষ ক্যাটাগরিতে সম্মাননা পেয়েছেন আসিফ মাহমুদ।

হাজি বজল আহমদ এবং মো. নুরুল ইসলাম চট্টগ্রাম জেলা থেকে দীর্ঘমেয়াদি সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন। ইঞ্জিনিয়ার মো. মহসিন, দেলোয়ার হোসেন ও মো. মাইনুল হাসান সর্বোচ্চ কর দাতা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন। তাছাড়া চট্টগ্রাম জেলা থেকে সর্বোচ্চ নারী করদাতা হিসেবে জান্নাতুল মাওয়া এবং পুরুষ ক্যাটাগরিতে সম্মাননা পেয়েছেন মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

এদিকে কক্সবাজার অঞ্চল থেকে এক বছরে দীর্ঘমেয়াদি সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন হাজি মোহাম্মদ ছিদ্দিক ও মুহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম। সর্বোচ্চ করদাতা ক্যাটাগরিতে মোহাম্মদ আইয়ুব, ইঞ্জিনিয়ার মোহাং আলমগীর ও মুহাম্মদ আবু কাউসার সম্মাননা পেয়েছেন। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী মহিলা করদাতা হিসেবে রেহেনা বেগম এবং তরুণ পুরুষ হিসেবে মো. জিয়াবুল পুরস্কৃত হয়েছেন।

তাছাড়া খাগড়াছড়িতে দীর্ঘ সময় ধরে কর প্রদানকারী দুজন করদাতা মো. আবু তালেব ও রঞ্জিত কুমার পালিত সম্মাননা পেয়েছেন। এ ছাড়া সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী হিসেবে এস. অনন্ত বিকাশ ত্রিপুরা, মো. নুর আলম ও মোসাম্মৎ ফরিদা আক্তার সম্মানিত হয়েছেন। সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী মহিলা করদাতা হিসেবে বিউটি দেব এবং তরুণ পুরুষ ক্যাটগরিতে সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সম্মাননা পেয়েছেন মো. জাহাঙ্গীর আলম (বাদশা)।

অনুষ্ঠানে বান্দরবান অঞ্চল থেকে কাজল কান্তি দাশ ও মোহাম্মদ নুরুল আবছার দীর্ঘ সময় ধরে কর দেয়ায় সম্মাননা পেয়েছেন। তাছাড়া সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী হিসেবে মোহাম্মদ আলী, মোহাম্মদ নুরুল আবছার ও রাজু বড়ুয়া পুরস্কার পেয়েছেন। এ ছাড়া সর্বোচ্চ কর প্রদানকারী মহিলা করদাতা হিসেবে হুরে জান্নাত হুরাইন এবং তরুণ পুরুষ ক্যাটগরিতে সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সায়েদ হোসেন মো. জুয়েল সম্মাননা পেয়েছেন।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়