Cvoice24.com

চট্টগ্রামে ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিনে ট্রেনে শিডিউল বিপর্যয়, যাত্রীদের ভোগান্তি

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১১:১৬, ২৮ এপ্রিল ২০২২
চট্টগ্রামে ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিনে ট্রেনে শিডিউল বিপর্যয়, যাত্রীদের ভোগান্তি

শিডিউল বিপর্যয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন ট্রেনের যাত্রীরা

চট্টগ্রামে আজ ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহগামী ট্রেন বিজয় এক্সপ্রেসে শিডিউল বিপর্যয় হয়েছে। ৪০ মিনিটের শিডিউল বিপর্যয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। ট্রেন আসতে দেরি হওয়ায় এমনটা হয়েছে বলে দাবি রেল কর্তৃপক্ষের।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে গত দুই বছর আনন্দঘন পরিবেশে অনেকেই ঈদ করতে পারেনি। কিন্তু এবার করোনার সংক্রমণ কম থাকায় গ্রামের বাড়িতে ঈদ করার উদ্দেশে আগে থেকেই চট্টগ্রাম ছাড়ছেন অনেকেই। 

বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) ভোর থেকে চট্টগ্রাম রেল স্টেশনে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, অগ্রিম টিকিট কাটা যাত্রীদের আগমনে রেল স্টেশনে উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। পুলিশ তথ্য কেন্দ্র ও স্কাউট সদস্যরা যাত্রীদের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করছে। যাত্রীদের নিরাপত্তা দিতে আনসার সদস্য, রেলওয়ে পুলিশ, রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি ঘোষণার মাধ্যমে যাত্রীদের ট্রেন শিডিউল এবং সতর্কতামূলক তথ্য দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে চারটি ট্রেন চট্টগ্রাম ছেড়ে গেছে। তবে ময়মনসিংহগামী ট্রেন বিজয় এক্সপ্রেস সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম রেল স্টেশন ছেড়ে যাবার কথা থাকলেও ৪০ মিনিট দেরিতে ছাড়ে ট্রেনটি। তাছাড়া বেলা সাড়ে ১২টায় মহানগর এক্সপ্রেস নামের একটি ট্রেন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে।

রেলস্টেশনে এ প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় বিজয় এক্সপ্রেসের যাত্রী মোহাম্মদ সাঈদ ইস্কান্দারের সাথে। তিনি সিভয়েসকে বলেন, ক্যাম্পাস বন্ধ, ঈদেরও আর বেশি দেরি নেই। তাই গত ২৪ তারিখ আগাম টিকেট কিনে রেখেছিলাম। একে তো রোজা, তার ওপর প্রচণ্ড গরম। আধা ঘণ্টার ওপরে বসে আছি। ট্রেন আসার নাম নেই। ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়ের রীতিটা আর পরিবর্তন হলো না।

সুমাইয়া খানম বৃষ্টি নামের এক যাত্রী বলেন, ৯টায় ট্রেন তাই তড়িঘড়ি করে বাসা থেকে বের হয়েছি। অথচ এসেই এখন বসে থাকতে হচ্ছে। এভাবে রোজার মধ্যে আমাদের কষ্ট দেয়ার মানেই হয় না।

যদিও রেল কর্তৃপক্ষের দাবি, ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়ের কত কোন ঘটনাই ঘটেনি। বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনটি আসতে একটু দেরি হয়েছে তাই শিডিউল হালকা এলোমেলো হয়েছে। এক ঘণ্টার বেশি লেট হয়েছে এমনটা কেউ বলতে পারবে না।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ এপ্রিল ২৭ তারিখের, ২৪ এপ্রিল ২৮ তারিখের, ২৫ এপ্রিল ২৯ তারিখের, ২৬ এপ্রিল ৩০ তারিখের ও ২৭ এপ্রিল ১ তারিখের আগাম টিকেট বিক্রি করা হয়েছে। এবারই প্রথম এনআইডি বা জন্মনিবন্ধন সনদের মাধ্যমে টিকেট বিক্রি করা হয়েছে। একজন যাত্রী সর্বোচ্চ ৪টা টিকেট কিনতে পেরেছেন। পাশাপাশি যাত্রীদের সুবিধার জন্য চট্টগ্রাম থেকে চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে প্রতিদিন দুটো করে ট্রেন চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাচ্ছে। 

চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার রতন কুমার চৌধুরী সিভয়েসকে বলেন, আজ ঈদযাত্রার দ্বিতীয় দিন। আমরা অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে ট্রেনের অগ্রিম টিকেট বিক্রি করেছি। এবছর টিকেট বিক্রির পরেও প্রতি ট্রেনে কিছু আসন খালি ছিল। আমরা সেগুলা স্ট্যান্ডিং টিকেট হিসেবে বিক্রি করেছি। ফলে কেউ কেউ আগাম টিকেট না কেটেও স্টেশনে এসেই টিকেট কেটে ট্রেনে ওঠার সুযোগ পেয়েছেন। আমরা অত্যন্ত সুন্দরভাবে সবকিছু পরিচালনা করার চেষ্টা করছি, যাতে যাত্রীদের ভোগান্তি না বাড়ে। আজ সকাল থেকে সুবর্ণ এক্সপ্রেস, পাহাড়িকা এক্সপ্রেস, চট্টলা এক্সপ্রেস ও বিজয় এক্সপ্রেস এ চারটা ট্রেন ছেড়ে গেছে। তাছাড়া সাড়ে ১২টায় মহানগর এক্সপ্রেস চট্টগ্রাম ছেড়ে যাবে।

ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সিভয়েসকে বলেন, আমরা ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় হতে দিচ্ছি না। আজ বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনটিই আসতে দেরি করেছে, তাই শিডিউলে একটু সমস্যা দেখা দিয়েছিল। বাদ বাকি সব ঠিক আছে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়