Cvoice24.com
corona-awareness

‘মানবিক ভুলের’ দোহাই দিয়ে সাকিবের ক্ষমা প্রার্থনা, এক হাত নিলেন ভক্তরা!

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:২৩, ১১ জুন ২০২১
‘মানবিক ভুলের’ দোহাই দিয়ে সাকিবের ক্ষমা প্রার্থনা, এক হাত নিলেন ভক্তরা!

এলবিডব্লিউ’র আবেদনে আউট না দেয়ায় লাথি মেরে স্ট্যাম্প উড়িয়েছেন মোহামেডানের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এরপরও ক্ষান্ত হননি সাকিব। আম্পায়ার ইমরান পারভেজের দিকে তেড়ে বিতণ্ডায় জড়াতেও দেখা যায় বিশ্ব সেরা এই অলরাউন্ডারকে। শুক্রবার (১১ জুন) দুপুরে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে আবাহনী-মোহামেডানের ম্যাচে এ ঘটনার পর বৃষ্টি কারণে স্থগিত খেলার পর মাঠ ছাড়ার সময় খালেদ মাহমুদ সুজনের সঙ্গেও তর্কে জড়ান সাকিব।

এ ঘটনায় ক্ষমা চেয়ে বিকেল ৫টা ৪৮ মিনিটে নিজের ভেরিফাইড ফেইসবুক পেইজ থেকে একটি স্ট্যাটাস দেন সাকিব। স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, ‘প্রিয় ভক্ত এবং অনুসারীরা, মেজাজ হারিয়ে সবার কাছে ম্যাচটি নষ্ট করায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত। বিশেষ করে তাদের কাছে যারা ঘর থেকে দেখছেন। আমার মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের এভাবে প্রতিক্রিয়া জানানো উচিত ছিল না। কিন্তু মাঝে মাঝে প্রতিকূলতার কারণে এ ধরনের দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ঘটে। এই মানবিক ত্রুটির জন্য আমি দল, পরিচালনা, টুর্নামেন্টের কর্মকর্তা এবং সাংগঠনিক কমিটির কাছে ক্ষমা চাই। আশা করছি, ভবিষ্যতে এ রকম কিছু পুনরায় করব না।’ স্ট্যাটাসের শেষে ভক্তদের সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও ভালোবাসা জানান এই ক্রিকেটার। 

পোস্টের প্রতিক্রিয়ায় এমন কর্মকাণ্ডের জন্য ভক্তরা নিন্দা ও কড়া সমালোচনায় এক হাত নিয়েছেন সাকিবকে। কেউ তার এই কর্মকাণ্ডকে বলেছেন চরম বেয়াদবি, আবার কেউ চেয়েছেন ক্রিকেট থেকে সাকিবকে যাতে নিষিদ্ধ করা হয়। 

সাকিবের দেয়া পোস্টে জয় চক্রবর্তী কমেন্টে লিখেছেন, ইহাই প্রথমবার না, আপনার আনপ্রফেশনালিজম চিরাচরিত ঘটনা। তরুণ যারা আপনার খেলা দেখে তাদের ভেতর আপনি কি ম্যাসেজ পাঠাচ্ছেন? আপনি একাই ক্রিকেট খেলেন না দুনিয়ায়। আপনার উচিত স্বেচ্ছায় অবসরে চলে যাওয়া।

নাহিদ ওয়াহিদ নামে একজন লিখেছেন, ‘বিশ্বমানের একজন প্লেয়ার হিসেবে সাকিব আল হাসানের করায় কাজটি আমি অপছন্দ করি। কিন্তু বাংলাদেশের আম্পায়ারিং এর মানও অত্যন্ত জঘন্য এবং পক্ষপাতদুষ্ট। এসবও বিবেচনায় আনা দরকার।’

এইচ এম রবিউল ইসলাম মন্তব্য করেছেন, ‘আজীবনের জন্য ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছেন বিশ্বসেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান সিদ্ধান্ত এখনাে হয়নি, হয়তাে শীগ্রই সিদ্ধান্ত আসবে!

আহাম্মেদ নাজিম লিখেছেন, ‘আপনার মতো একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড়ের কাছ থেকে এমন কিছু আশা করিনি। ভালো থাকবেন।’

মো. রবিউল আলম লিখেছেন, আপনি কতবার এই কাজ করলেন? এটা প্রথমবার নয়। আমরা আপনাকে ঘৃণা করি।’ 

তানভীর ইসলাম লিখেছেন, ‘যে প্লেয়ার ইন্টারনেশনাল ক্রিকেটে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের জন্য শাস্তি পেয়েছে, সে প্লেয়ার এখন ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিক্সিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে। আর আমরা সেটা সাপোর্ট করছি।’

তবে এই পোস্টে অনেকেই সমর্থন জানিয়ে সাকিবের পাশে থাকার কথা জানিয়েছেন। তার এই কাজকে কোনো অপরাধ নয় ফিক্সিংয়ের প্রতি উচিৎ জবাব বলে ব্যাখ্যা দিয়েছেন তারা।

-সিভয়েস/জেআইএস

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়