Cvoice24.com

তামিমের অপেক্ষা ১১ রানের, জয়ের অর্ধশতক, দেড়শ’ ছাড়িয়ে বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:২৩, ১৭ মে ২০২২
তামিমের অপেক্ষা ১১ রানের, জয়ের অর্ধশতক, দেড়শ’ ছাড়িয়ে বাংলাদেশ

টাইগারদের দুই ওপেনার দারুণ লড়ে যাচ্ছে

তামিম-জয়ের ব্যাটে দারুণ খেলছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রাম টেস্টে অর্ধশতক পেরিয়ে দশম সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ১১ রান দূরে তামিম ইকবাল। অর্ধশতক পেয়েছেন মাহমুদুল হাসান জয়ও। দুজনের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে ভর করে লাঞ্চের আগে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪৭ ওভারে ১৫৭ রান। যেখানে তামিমের ৮৯ আর মাহমুদুল হাসানের জয়ের ৫৮। 

প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার করা ৩৯৭ রানের জবাবে দারুণ লড়ছে মুমিনুলের দল। তবে তামিম ও জয়ের অর্ধশতকে ভর করে বাংলাদেশ কোনো উইকেট না হারিয়েই বাংলাদেশের রান দেড়শ’ পাড় হলেও এখনো  পিছিয়ে ২৪০ রানে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ডারবান টেস্টে সেঞ্চুরি পাওয়া জয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে পেলেন অর্ধশতকের দেখা এবং ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতক।

এর আগে টেস্ট ক্যারিয়ারের ৩২তম অর্ধশতকের দেখা পান তামিম ইকবাল। চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনের শুরুতেই নিজের অর্ধশতক তুলে নেন তিনি। ২৪তম ওভারের প্রথম বলেই রমেশ মেন্ডিসের বলে চার মেরে টেস্ট ক্যারিয়ারে ৩২তম অর্ধশতক তুলে নেন তামিম। টেস্টে তামিমের রয়েছে ৯টি শতক। এর আগে তামিম সর্বশেষ অর্ধশতকের দেখা পান ২০২১ সালের এপ্রিলে। শ্রীলঙ্কার পাল্লেকেলেতে তামিম খেলেছিলেন ৯২ রানের ইনিংস। এর ঠিক আগের টেস্টেই তামিম খেলছিলেন অপরাজিত ৭৪ রানের ইনিংস।    

এর আগে  সোমবার (১৬ মে) সাগরিকায় দ্বিতীয় দিনে লংকানরা অলআউট হলে শেষ বিকেলে নেমে দারুণ ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশকে শুভসূচনা এনে দেন টাইগার ওপেনার তামিম ও জয়। দিন শেষে তামিম ইকবাল অপরাজিত ছিলেন ৩৫ রানে। জয় ব্যাট করছিলেন ৩১ রান নিয়ে।

চট্টগ্রাম টেস্টে এখনো সুবিধাজনক অবস্থানে শ্রীলঙ্কা। বড় রান তাড়া করার ক্ষেত্রে চাপের মুখে ভেঙ্গে পড়াটা বাংলাদেশের পুরনো অভ্যাস। চট্টগ্রাম টেস্টে ভালো কিছু করতে হলে বাংলাদেশকে সতর্ক থাকতে হবে এই অভ্যাসের বিষয়ে। সাগরিকার উইকেট বরাবরই ব্যাটিং স্বর্গ। টিকে থাকলে এখানে বড় রান করা অসম্ভব কিছু নয়। এই টেস্টের ফলাফল নির্ধারণে আজকের দিনটি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

এর আগে গতকাল বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে শ্রীলঙ্কা অলআউট হয় ৩৯৭ রানে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৯৯ রান করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। বাংলাদেশের পক্ষে নাঈম হাসান পান ৬ উইকেট। সাকিব নেন তিনটি উইকেট ।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়