Cvoice24.com

প্রায় দেড় বছর পর মায়ের কোলে ফিরল বিক্রি হয়ে যাওয়া শিশু

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:৩২, ২৩ নভেম্বর ২০২২
প্রায় দেড় বছর পর মায়ের কোলে ফিরল বিক্রি হয়ে যাওয়া শিশু

ফিরে পাওয়া শিশু সন্তানকে কোলে নিয়ে মা রুনা আকতার

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা থেকে চাকরির খোঁজে চট্টগ্রাম শহরে আসেন রুনা আকতার। আসার সময় কোলের ২ বছর বয়সী ছেলে শিশুকে রেখে আসেন নিজের ভাই এর বৌ শিরিন আকতার এর কাছে। এই সিদ্ধান্তই যেন কাল হয়ে দাড়ায় রুনা আক্তারের জন্য। সুযোগ বুঝে শিরিন আকতার শিশুটিকে মাত্র ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন নিজের এক খালাতো বোনের কাছে।

এদিকে রুনা আক্তার কিছুদিন পর গ্রামে গিয়ে জানতে পারেন তার ছেলেকে অন্যজনের কাছে বিক্রি করে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় প্রথমে স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং থানায় অভিযোগ করলেও কোনো লাভ হয়নি। অবশেষে উপায় না পেয়ে তিনি দারস্থ হন আদালতের। আদালতের হস্তক্ষেপে বিক্রির ১ বছর ৪ মাস পর মায়ের কোলে ফিরে আসে সেই শিশু। 

আজ বুধবার (২৩ নভেম্বর) ধার্য থাকা শুনানিতে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আজিজ আহমেদ ভূঞা শিশুটির প্রকৃত মায়ের কাছে তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার আদেশ দেন।

ওই শিশুর বাড়ি চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার দক্ষিণ সফরভাটা হাজারীখিল এলাকায়। সে মো. রফিক-রুনা আকতার দম্পতির সন্তান। গত বছর স্বামী মো. রফিকের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয়ে রুনা আকতারের।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ থেকে জানা যায়, গত বছরের ২৫ জুলাই চট্টগ্রামে চাকরি করতে যাওয়ার সময় মা রুনা আকতার নিজের শিশু পুত্রকে তার মামীর কাছে রেখে যায়। পাঁচদিন পর গ্রামে ফিরে এসে সন্তানের কথা জানতে চাইলে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলে মামী শিরিন আকতার। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন শিশুটি তার মামী শিরিন আকতারের খালাতো বোনের কাছে। তখন বাচ্চাকে এনে দেওয়ার কথা বললে আজ-পরশু বলে কালক্ষেপণ করে। বারবার তারিখ পরিবর্তন হওয়ায় দুই মাস পর বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানকে জানানো হয়। চেয়ারম্যানও অনেকবার চেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়ায় পরে রাঙ্গুনিয়ায় মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

এরপরও আপোষে শিশুকে ফেরত পেতে তাদের সঙ্গে কথা বললে তারা উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে জেলে পাঠানোসহ নানারকম হুমকি-ধমকি দিতে থাকে। পরে থানায় অভিযোগ দায়েরের পরও শিশু উদ্ধার না হওয়ায় আদালতে মামলা দায়ের করেন।

সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) আল মামুন করিম সিভয়েসকে বলেন, ‘চাকরির সুবাদে মামী শিরিন আকতারের কাছে সন্তানকে রেখে চট্টগ্রাম শহরে চলে আসেন মা রুনা আকতার। কয়েকদিন পর গ্রামে গিয়ে বাচ্চার খোঁজ করলে শিশুটির মামী উল্টোপাল্টা কথা বলতে শুরু করে। পরে রুনা আকতার জানতে পারেন শিরিন আকতার তার আপন খালাতে বোনের কাছে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে তার সন্তানকে বিক্রি করেছে। পরে এলাকার স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং থানায় অভিযোগ জানালেও বাচ্চাকে উদ্ধার করতে পারেনি। পরে চট্টগ্রাম অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে (উত্তর) মামলা দায়ের করা হয়। তবে বিচারক মামলাটি ভালোভাবে না শুনে খারিজ করে দেন। ওই আদেশের বিরুদ্ধে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে রিভিশন করা হয়। রিভিশনের তারিখটি অনেকদিন শুনানি হওয়ার পর আজ (বুধবার) ছিল মূল শুনানি। পরে শুনানি শেষে আদালতের আদেশে বাচ্চাটিকে তার প্রকৃত মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়