Cvoice24.com

সাতকানিয়ায় যুবক খুন, ‘কাটা শহিদ’সহ গ্রেপ্তার ২

সাতকানিয়া প্রতিনিধি, সিভয়েস২৪

প্রকাশিত: ১৭:৫৪, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
সাতকানিয়ায় যুবক খুন, ‘কাটা শহিদ’সহ গ্রেপ্তার ২

গ্রেপ্তার মো. শহিদ (প্রকাশ পা কাটা শহিদ) ও আজিজুর রহমান।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় শাহাবুদ্দিন নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা মামলার প্রধান আসামিসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে পার্বত্য জেলা বান্দরবান এবং চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন— প্রধান আসামি মো. শহিদ (প্রকাশ পা কাটা শহিদ) (৪৫) এবং তার আরেক সহযোগী আজিজুর রহমান (৩৬)। এরমধ্যে শহিদ সাতকানিয়া উপজেলার এঁওচিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের দেওদীঘি এলাকার ফৌজ্জার বর বাড়ির মৃত এজাহার মিয়ার ছেলে। আর আজিজুর রহমান মাদার্শা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড মিয়ার বাপের পাড়ার আলী হোসেনের ছেলে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সাতকানিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শাহরিন বলেন, গতকাল (বুধবার) রাতে শহিদকে পার্বত্য জেলা বান্দরবানের কুহালং ইউনিয়নের বটতলীর গহিন পাহাড়ী এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরে তার দেওয়া স্বীকারোক্তি মতে আজিজুর রহমানকে সাতকানিয়া উপজেলার মাদার্শা ইউনিয়নস্থ নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, গ্রেপ্তারকৃত শহিদের বিরুদ্ধে সাতকানিয়া থানায় পুলিশের উপর আক্রমণ, ডাকাতি, বিষ্ফোরক, অস্ত্র ও মারামারিসহ ১৭টির অধিক মামলা রয়েছে। তবে সব মামলাগুলোতে সে জামিনে রয়েছে।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রিটন সরকার বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় শহিদ জড়িত থাকায় সে নিজেকে আড়াল করার চেষ্টা করছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে পুলিশ তাকে এবং তার আরেক সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সকালে সিএনজি চালিত অটোরিকশা করে মো. শাহাবুদ্দিনকে (৩৫) ঘর থেকে তুলে নিয়ে বেধড়ক পেটানো হয়। পরদিন ২৪ ফেব্রুয়ারি সকালে সাতকানিয়া পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের সুবেদার পুকুর পাড় থেকে শাহাবুদ্দিনের পা বাঁধা অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত শাহাবুদ্দিনের বাবা নুর আহমদ বাদি হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখ করে এবং ৫/৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি হিসেবে থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে গ্রেপ্তার মো. শহিদকে (প্রকাশ পা কাটা শহিদ) প্রধান আসামি করা হয়েছিল।

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়