Cvoice24.com

৬ বছর পর কক্সবাজারে আসবেন প্রধানমন্ত্রী, উৎসবের আমেজ

কক্সবাজার প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৩:৩৬, ৫ ডিসেম্বর ২০২২
৬ বছর পর কক্সবাজারে আসবেন প্রধানমন্ত্রী, উৎসবের আমেজ

আন্তর্জাতিক ফ্লিট রিভিউ ২০২২-এর উদ্বোধন মঞ্চ।

দীর্ঘ ৬ বছর পর আগামী ৭ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন ও জনসভাকে কেন্দ্র করে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি চলছে কক্সবাজারে।প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে নেতা-কর্মীরা নানা প্রস্তুতি গ্রহণ করছেন। ইতিমধ্যে জনসভার ভেন্যুস্থল কক্সবাজার আন্তর্জাতিক শেখ কামাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হয়েছে। মঞ্চ তৈরি কাজ শেষ পর্যায়ে। অন্যদিকে ব্যানার-ফেস্টুন ও তোরণে ছেয়ে গেছে পুরো শহর। বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। 

৭ ডিসেম্বর সকালে কক্সবাজার সৈকত ঘেঁষা মেরিন ড্রাইভের ইনানী-পাটোয়ারটেক সৈকত এলাকায় অনুষ্ঠিতব্য ৩ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক নৌশক্তি প্রদর্শন মহড়ার উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ নৌবাহিনী আয়োজিত নৌশক্তি মহড়ায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, চীনসহ তিন ডজনেরও বেশি দেশ অংশগ্রহণের কথা রয়েছে। এরপর দুপুরে কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক বিশাল জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। এজন্য সপ্তাহব্যাপী প্রস্তুতিমূলক কর্মযজ্ঞ চলছে কক্সবাজারে। 

শহর ঘুরে দেখা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে কক্সবাজার শহরের অলিগলি থেকে গ্রামের রাস্তাঘাট ছেয়ে গেছে ব্যানার, ফেস্টুন, বিলবোর্ড আর তোরণে। চলছে মাইকিং। ভেন্যুসহ পুরো শহর সমাবেশস্থলে পরিণত করতে গত ৭ দিন ধরে ব্যস্ত সময় পার করছেন দলটির নেতা-কর্মীরা। 

জেলা আওয়ামী লীগের নেতাবৃন্দরা জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ৬ লাখ মানুষের সমাগমের লক্ষ্য নিয়ে আয়োজনের কর্মযজ্ঞ চলছে। প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে নানা প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে। 

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভাকে সফল করতে ইতোমধ্যে প্রচারণামূলক নানা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিগত ১৪ বছরে কক্সবাজারকে দুহাত ভরে দিয়েছেন। কক্সবাজার এখন চকচক করে। আরও উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। সব প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়ে গেলে অপূর্ণতা কিছু থাকবে না। জনসভায় কক্সবাজারবাসীর প্রতি সর্বোচ্চ সম্মান জানানো হবে। জেলার প্রতিটি ঘরে ঘরে দাওয়াত কার্ড পৌাঁছানো হবে।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুর ইসলাম চৌধুরী বলেন, জনসভাকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় একাধিক নেতা ইতোমধ্যে স্টেডিয়াম পরিদর্শন করেছেন। সমাবেশস্থল নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে পুলিশ ও প্রশাসনের শীর্ষ ব্যক্তিরাও কক্সবাজারে অবস্থান করছেন। কয়েক লাখ মানুষের অবস্থান নিশ্চিত করতে কক্সবাজার শেখ কামাল স্টেডিয়ামের পশ্চিম একাংশের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। স্টেডিয়ামের মাঠ প্রশস্ত করার পাশাপাশি সমাবেশে আগত লোকজনের সার্বিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি বড় পর্দায় সমাবেশ ও প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেখার ব্যবস্থা করা হবে। আশা করছি, ছয় লাখের বেশি মানুষের সমাগম হবে।

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়