Cvoice24.com

মহাসড়কে ডাকাতি-অপহরণ সিন্ডিকেটের মূল হোতা সরোয়ার র‌্যাবের হাতে ধরা

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫:৩৪, ১৭ জানুয়ারি ২০২২
মহাসড়কে ডাকাতি-অপহরণ সিন্ডিকেটের মূল হোতা সরোয়ার র‌্যাবের হাতে ধরা

চট্টগ্রাম-ফেনী মহাসড়কে ডাকাতি ও অপহরণ সিন্ডিকেটের মূল হোতা মো. সরোয়ার হোসেন আটক।

চট্টগ্রাম-ফেনী মহাসড়কে ডাকাতি ও অপহরণ সিন্ডিকেটের মূল হোতা এবং দশ মামলার আসামি মো. সরোয়ার হোসেন ওরফে জনি প্রকাশ মনু ডাকাতকে দুই সহযোগীসহ আটক করেছে র‌্যাব-৭। এসময় তাদের কাছ থেকে একটি দুনালা বন্দুক, দুইটি এলজি ও ৪ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। 

রোববার (১৬ জানুয়ারি) দিবাগত রাত আড়াইটায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে নগরের পাহাড়তলীর উত্তর কাট্টলী খেজুরতলী জাইল্যাপাড়া ব্রীজ এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। 

আটকরা হলেন, ডাকাতদলের মূল হোতা ও দশ মামলার আসামি সরোয়ার হোসেন এবং তার দুই সহযোগী মো. রিপন (৩২) ও তাসলিমা বেগম (৩৬)।

র‌্যাব জানায়, যাত্রীবেশে মাইক্রোবাসের এক সিটে একজন করে বসতো ডাকাত দলের সদস্যরা। কেউ তসবি পড়তেন, আবার কারো চোখেমুখে ভদ্রতার ছাপ। ডাকাতদের নম্র ব্যবহার দেখে সহজ সরল যাত্রীরাও কম টাকায় গন্তব্যে পৌছার লোভে সে গাড়িতে উঠে। গাড়িতে যাত্রা শুরু হবার পর শুরু হতো ধর্মীয় আলোচনা। কিছু দূর যাওয়ার পর ডাকাত দলের একজন পথে নেমে গেলে পেছনে থাকা সদস্যরা সামনের সিটে চলে আসে এবং টার্গেট যাত্রীকে মাঝখানের সিটে বসায়। ভয়ভীতি দেখিয়ে কেড়ে নেয়া হয় সর্বস্ব। শুধু তাই নয়, ভিক্টিমের মোবাইল থেকে স্বজনদের ফোন করে দাবি করতো মোটা অঙ্কের অর্থ। গাড়ি শনাক্ত করতে না পারার জন্য ভুক্তভোগীর চোখে মলম লাগিয়ে দেয়া হতো। 

র‌্যাব আরো জানায়, আটকররা বিভিন্ন কৌশলে সাধারণ মানুষকে মাইক্রোবাসে তুলে মাঝপথে নিয়ে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে, মারপিট করে, গলায় গামছা পেছিয়ে পিছনে টান দিয়ে যাত্রীদের নিকট থেকে নগদ অর্থ, মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিতো। যাত্রীদের মোবাইল থেকে ফোন করে আত্মীয় স্বজনের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত অর্থ আদায় করতো। ডাকাতদল জরুরী অবস্থায় পালানোর পথ সুগম করতে গাড়ীতে দেশীয় অস্ত্রের রাখতো। ডাকাতি শেষে চট্টগ্রাম থেকে কুমিল্লার মধ্যবর্তী সুবিধাজনক স্থানে যাত্রীকে ফেলে দিতো। তার আগে গাড়ির নম্বর না দেখতে বা কোন দিকে গাড়ি চলে গেছে তা শনাক্ত না করতে ভিকটিমের চোখে বিশেষ ধরনের রাসায়নিক মলম লাগিয়ে দিতো তারা। ততোক্ষণে ডাকাতরা নিরাপদ দুরত্বে চলে যেতো।

র‌্যার-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নূরুল আবছার বলেন, গতকাল অভিযান চালিয়ে চট্টগ্রাম-ফেনী মহাসড়কে ডাকাতি ও অপহরণ সিন্ডিকেটের মূল হোতা মো. সরোয়ার হোসেন ওরফে জনি প্রকাশ মনু ডাকাত ও তার দুই সহযোগীকে আটক করা হয়েছে। আটকের পর সম্প্রতি পাহাড়তলী থানার মামলা নং- ০১, তারিখ- ০১/০১/২০২২ইং ধারা- ৩৯৬ পেনাল কোড অর্থাৎ একই কায়দায় মাইক্রোবাসে যাত্রী উঠিয়ে ডাকাতি করে ফেলে গেলে পরবর্তীতে ভিকটিম মারা যায়। এ ঘটনা তাদের মাধ্যমে ঘটেছে বলে তারা স্বীকার করেছে। পাশাপাশি আটক সরোয়ারের বিরুদ্ধে বরিশাল মহানগরীর বিভিন্ন থানায় হত্যাসহ ১০ টি মামলা রয়েছে। ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটিও উদ্ধার হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পাহাড়তলী থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়