Cvoice24.com

সিএমপির ওসি মহসীন ডিএমপির উত্তরা পশ্চিম থানার দায়িত্বে

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৮:২০, ৪ জুলাই ২০২২
সিএমপির ওসি মহসীন ডিএমপির উত্তরা পশ্চিম থানার দায়িত্বে

ওসি মো. মহসীন

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উত্তরা পশ্চিম থানার ওসি পদে পদায়ন করা হয়েছে দেশের সবচেয়ে আলোচিত ওসি মোহাম্মদ মহসীনকে। পেশাগত দক্ষতার জন্য ওসি হিসেবে আলোচিত এই পুলিশ কর্মকর্তা দীর্ঘদিন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটনের বিভিন্ন থানায় দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ তিনি  খুলনা রেঞ্জের চুয়াডাঙ্গা সদর থানার দায়িত্বে ছিলেন। সেখান থেকেই তাকে ডিএমপিতে পদায়ন করা হলো।

সোমবার (৪ জুলাই) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার শফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এই পদায়নের কথা জানানো হয়। 

ওসি মহসীন একটানা ১৬ বছর সিএমপির বিভিন্ন থানায় কাজ করেন। ২০০৫ সালে এসআই হিসেবে যোগ দেন সিএমপির খুলশী থানায়। গত বছরের ১৮ আগস্ট তাকে সিএমপির ডবলমুরিং থেকে চুয়াডাঙ্গা থানায় বদলি করা হয়। 

কিছুদিন আগে তিনি ইউএস ডিপার্টমেন্ট অফ স্টেটের ব্যুরো অফ এডুকেশনাল অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্সের আমন্ত্রণে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন ইন্টারন্যাশনাল ভিজিটর লিডারশিপ প্রোগ্রামে যোগ দিতে। এই আমন্ত্রণকে মর্যাদাপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। বিশ্বের তরুণ প্রভাবশালী নেতাদেরই মূলত এই প্রোগ্রামে আমন্ত্রণ জানানো হয়। 

ওসি মহসীন প্রচলিত পুলিশিং কার্যক্রমের বাইরে গিয়ে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও ইভটিজিংবিরোধী জনসম্পৃক্ততামূলক কার্যক্রমের মাধ্যমে সিএমপিসহ দেশব্যাপী আলোচনায় আসেন। তার শুরু করা ‘হ্যালো ওসি’ কনসেপ্টটি চট্টগ্রামে বেশ সাড়া ফেলেছিল। এই কার্যাক্রমের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে পুলিশিং কার্যক্রমকে ছড়িয়ে দিতে ওসিই যাচ্ছিলেন মানুষের দ্বারে দ্বারে। যেটি পরে দাপ্তরিকভাবেই সিএমপির ১৬ থানাতে চালু হয়।

২০১৩ সালে মোহাম্মদ মহসীন যখন বাকলিয়া থানার ওসি পদে দায়িত্বরত ছিলেন তখন তিনি নিজ উদ্যোগেই মসজিদসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উপাসনালয়ে গিয়ে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও ইভটিজিংবিরোধী সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালিয়েছেন। যেটি ওই সময়ে নগরবাসীর মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলার পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশংসিত হয়। পরবর্তীতে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সচেতনতামূলক কার্যক্রম চালানোর ধারণাটিও সিএমপির সব থানায় অফিসিয়ালি চালু করা হয়। এসব কারণে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মোহাম্মদ মহসীন জনপ্রিয় একজন ওসি হিসেবে পরিচিতি পান।

জনবান্ধব বিশেষ করে নারী ও শিশুদের নিয়ে পুলিশিং করায় ২০১৯ সালের জুন মাসে ‘প্রমোশন অফ জেন্ডার সেনসিটিভিটি’ ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ উইমেন পুলিশ অ্যাওয়ার্ড পদকে ভূষিত হন ওসি মোহাম্মদ মহসীন। ২০১৬ সাল থেকে বাংলাদেশ উইমেন পুলিশ অ্যাওয়ার্ড শুরু হওয়ার পর প্রথমবারের মতো সেবারই একজন পুরুষ কর্মকর্তা এ পদকে ভূষিত হন।

পুলিশ বিভাগে সাহসী অফিসার হিসেবে পরিচিত পিপিএম পুরস্কারপ্রাপ্ত ওসি মোহাম্মদ মহসিনের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলায়। ২০০১ সালে শিক্ষানবিশ এসআই হিসেবে সারদায় যোগ দেন মহসিন। এরপর ২০০২ সালে যোগ দেন খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশে। ২০০৩ সালে একই পদে যোগ দেন নড়াইল সদর থানায়।

২০০৫ সালে এসআই হিসেবে যোগ দেন সিএমপির খুলশী থানায়। এরপর গোয়েন্দা বিভাগ ঘুরে সেখান থেকে কোতোয়ালী থানায় কিছুদিন কাজ করার পর যোগ দেন ফের গোয়েন্দা বিভাগে। সেখান থেকে বোমা নিস্ক্রিয়করণ প্রশিক্ষণ নিতে সিএমপির পক্ষ থেকে তাকে পাঠানো হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। দেড় বছর জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে দায়িত্ব পালন শেষে দেশে ফিরে তিনি সাব-ইন্সপেক্টর থেকে পরিদর্শক হিসেবে পদোন্নতি পান ২০১৩। পরবর্তীতে ওসি পদে সিএমপির বাকলিয়া, বায়েজিদ, কোতোয়ালী ও ডবলমুরিং থানায় দায়িত্ব পালন করেছেন।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়