Cvoice24.com

শুরু হলো শারদীয় দুর্গোৎসব, আজ মহাষষ্ঠী

সিভয়েস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:০৫, ১ অক্টোবর ২০২২
শুরু হলো শারদীয় দুর্গোৎসব, আজ মহাষষ্ঠী

ছবি-সংগৃহীত

উলুধ্বনি, শঙ্খ, কাঁসর আর ঢাকের বাদ্যে আজ থেকে শুরু হয়েছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় আয়োজন ‘দুর্গোৎসব’। আজ শনিবার (১ অক্টোবর) মহাষষ্ঠী। কল্পারম্ভে ঘট স্থাপন, অকালবোধন, অধিবাস শেষে আমন্ত্রণ জানানো হবে দেবীকে। রাত ৯টা ৫৭ মিনিট অবধি তিথি থাকবে। এর আগে শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে দেবীর বোধন। 

পরদিন রবিবার সপ্তমী তিথিতে নবপত্রিকা স্নান ও  সিদ্ধিদাতা গণেশের পাশে কলাবউ স্থাপন করা হবে। এইদিনেই প্রাণ সঞ্চার করা হবে দেবীর মৃন্ময়ীতে। সোমবার মহা অষ্টমী তিথিতে সনাতনী নারী-পুরুষ, শিশু-কিশোর-বৃদ্ধ সকলে মিলে দেবীকে পুষ্পাঞ্জলী দেবে। এইদিনই হবে সন্ধীপূজা। মাতৃরূপে কুমারী কন্যাকে জীবন্ত প্রতিমা কল্পনা করে জগজ্জননীর উদ্দেশে শ্রদ্ধা নিবেদন করে হবে ‘কুমারী পূজা’। শাস্ত্রমতে, এদিন পূজিত কুমারী কন্যার নামকরণ করা হয় দেবীর ৬ষ্ঠ রূপ ‘উমা’।

ভক্তদের মতে, এটি একাধারে ঈশ্বরের উপাসনা, মানববন্দনা আর নারীর মর্যাদা প্রতিষ্ঠা। মূলত: নারীর সম্মান, মানুষের সম্মান আর ঈশ্বর আরাধনাই কুমারী পূজার অন্তর্নিহিত শিক্ষা। নবমীতে মণ্ডপে মণ্ডপে দেবীর মহা প্রসাদ বিতরণ করা হবে। ৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে পাঁচদিনের এ উৎসবের। 

এবার সারা দেশে ৩২ হাজার ১৬৮টি মণ্ডপে হবে দুর্গাপূজা। দেবীর এই আগমনকে ঘিরেই ব্যস্ত সময় পার করছেন দেশের প্রতিটি অঞ্চলের পূজা সংশ্লিষ্টরা। তবে গেলোবারের দুঃস্বপ্ন যেন না ফেরে সেই বার্তাই আসছে সবখান থেকে। যদিও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ বলছে নাশকতার কোনো আশঙ্কা করছেন না তারা। 

এদিকে চট্টগ্রাম জেলায় এবার ২০৬২ পূজামণ্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব হচ্ছে বলে জানা গেছে। যার মধ্যে ১৫৫৭টিতে প্রতিমা পূজা। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ-চট্টগ্রাম জেলা শাখার নেতারা।

সম্মেলনে লিখিত প্রতিবেদন পাঠ করেন বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ-চট্টগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অসীম কুমার দেব। এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পরিষদের সভাপতি শ্যামল কুমার পালিত বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজা ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে উদযাপনে সরকার ও প্রশাসনের তরফ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।  

নিষ্ঠার সঙ্গে স্বধর্ম পালন এবং পরধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য পূজার্থীসহ সবার প্রতি আহ্বান জানান পূজা পরিষদের সভাপতি শ্যামল কুমার পালিত।  

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম নগরের জেএমসেন হলে পূজা মণ্ডপের প্রস্তুতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সিএমপি কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় বলেছেন, কোনো সুনির্দিষ্ট হুমকি নেই। তবে প্রতিটি নিরাপত্তার ক্ষেত্রেই আমরা প্রত্যাশা করি ভালো হবে। কিন্তু আমরা যেকোনো খারাপ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রস্তুতি রাখি। একইসঙ্গে মহানগরের ২৬৬টি মণ্ডপের কোনটিকেই ঝুঁকিপূর্ণ মণ্ডপ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়নি। প্রতিটি পূজা মণ্ডপ ঘিরেই চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তবে কিছু মণ্ডপকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে এবং কিছু মণ্ডপকে সাধারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। মণ্ডপের অবস্থা এবং লোক সংখ্যার যাতায়াতের কথা মাথায় রেখে গুরুত্বপূর্ণ এবং সাধারণ হিসেবে মণ্ডপগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে।


 

Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়