Cvoice24.com

গণতন্ত্রকে ঘরে বন্দি করে রেখেছে সরকার : ডা. শাহাদাত

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২০:২৪, ২৭ নভেম্বর ২০২১
গণতন্ত্রকে ঘরে বন্দি করে রেখেছে সরকার : ডা. শাহাদাত

নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে মহানগর বিএনপির প্রস্ততি সভা

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার গণতন্ত্রকে একটি ঘরে বন্দি করে রেখেছে। অন্যায়ভাবে মিথ্যা সাঁজানো মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি করে তার জীবন ঝূঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে। কারাগারে বন্দী রাখার কারণে পর্যাপ্ত চিকিৎসা থেকে তিনি বঞ্চিত হয়ে অনেকগুলো রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। সরকার প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ দিচ্ছে না।

তিনি বলেন, ‘আজকে দেশের মানুষ বেগম খালেদা জিয়া ও গণতন্ত্রকে মুক্ত করার জন্য আন্দোলন করছে। বিদেশে সুচিকিৎসার দাবিতে কেন্দ্র ঘোষিত চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাবেশ আগামী ৩০ নভেম্বর লালদিঘী পাড়স্থ জেলা পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত হবে। আমরা আশা করবো, চট্টগ্রামের প্রশাসন আমাদেরকে সহযোগিতা করবেন।’

তিনি নেতাকর্মীদেরকে লালদিঘী চত্বরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে প্রস্তুতি গ্রহণ করার আহবান জানান। 

শনিবার (২৭ নভেম্বর) বিকালে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার দাবিতে আগামী ৩০ নভেম্বর চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাবেশ সফল করার লক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির প্রস্ততি সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে দীর্ঘ চার বছর কারাগারে বন্দি রাখার কারণে পর্যাপ্ত চিকিৎসা না হওয়ায় তিনি অনেকগুলো রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসারা বলছেন, তিনি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছেন। কিন্তু সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে তাকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করছে।এতোদিন দেশনেত্রীকে রাজনীতি ও জনগণ থেকে দূরে রেখেছে। এখন তাকে তার জীবন থেকেও সরিয়ে দেওয়ার চক্রান্ত শুরু করেছে।’ তিনি মানবতার স্বার্থে বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার সুযোগ করে দেয়ার আহবান জানান।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা দিনের পর দিন ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। দেশনেত্রীর বিপুল জনপ্রিয়তা শেখ হাসিনা সহ্য করতে পারেন না বলেই মিথ্যা অভিযোগে সাঁজানো মামলায় তাকে কারাগারে বন্দী করে রেখেছেন। কিন্তু জনগণ তাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সেদিন আর বেশি দূরে নয়, যেদিন জনগণের সম্মিলিত শক্তি কারাগারের লৌহকপাট ভেঙে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনবেই।’

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া দেশ, জনগণ ও গণতন্ত্রের পক্ষে আপসহীন অবস্থানের কারণে তিনি আজ সবচেয়ে মজলুম নেত্রী। সরকার কৌশলে তাকে রাজনীতি ও জনগণ থেকে দূরে রাখছে। গুরুতর অসুস্থ ও বয়ষ্কা একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে জেল জুলুম নির্যাতন ও নিপীড়ন করছে।’ তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বাদ দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রম সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দীন, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সি. যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব এম এ আজিজ, যুগ্ম আহবায়ক মো. মিয়া ভোলা, এড. আবদুস সাত্তার, এস এম সাইফুল আলম, নাজিমুর রহমান, শফিকুর রহমান স্বপন, কাজী বেলাল উদ্দিন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, মো. শাহ আলম, ইসকান্দর মির্জা, আবদুল মান্নান, আহবায়ক কমিটির সদস্য এরশাদ উল্লাহ, হারুন জামান, মাহবুব আলম, ইকবাল চৌধুরী, অধ্যাপক নুরুল আলম রাজু, এস এম আবুল ফয়েজ, আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আহমেদুল আলম চৌধুরী রাসেল, জাহাঙ্গীর আলম দুলাল, আবুল হাসেম, আনোয়ার হোসেন লিপু, মনজুর আলম চৌধুরী মনজু, মো. কামরুল ইসলাম, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহেদ, থানা বিএনপির সভাপতি মন্জুর রহমান চৌধুরী, মো. আজম, হাজী মো. সালাউদ্দিন, মোশারফ হোসেন ডেপটী, হাজী বাবুল হক, মো. সেকান্দর, হাজী হানিফ সওদাগর, সরফরাজ কাদের রাসেল, এম আই চৌধুরী মামুন, থানা সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, জাহিদ হাসান, হাজী বাদশা মিয়া, জসিম উদ্দিন জিয়া, আবদুল কাদের জসিম, জাহাঙ্গির আলম, হাবিবুর রহমান, ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাজী নবাব খান, এস এম মফিজ উল্লাহ, জমির আহমদ, ফারুক আহমদ, রফিক চৌধুরী, মো. ইলিয়াছ, হাজী মো. মহসিন, সাইফুল আলম, খাজা আলাউদ্দিন, এড. আবুল কাশেম মজুমদার, এস এম ফরিদুল আলম, মো. আসলাম, শরিফুল ইসলাম, মোশারফ জামাল, আশরাফ উদ্দিন, শায়েস্তা উল্লাহ চৌধুরী।

এছাড়াও মহানগর ওলামা দলের সভাপতি মাওলানা শহীদুল্লাহ চিশতী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আবদুল হান্নান জিলানী, মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক হাজী নুরুল হক, তাতীদলের আহবায়ক মনিরুজ্জামান টিটু, যুবদলের সি. যুগ্ম সম্পাদক মোশারফ হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া, সি. যুগ্ম সম্পাদক আলী মর্তুজা খান, ছাত্রদলের আহবায়ক সাইফুল আলম, সদস্য সচিব শরিফুল ইসলাম তুহিন, ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এস এম আবুল কালাম আবু, মাসুদুল কবির রানা, ফিরোজ খান, সিরাজুল ইসলাম মুন্সী, হাসান ওসমান চৌধুরী, হাবিবুর রহমান চৌধুরী, মো. শফি উল্লাহ, আশরাফ খান, এস এম আজাদ, হাজী আবু ফয়েজ, এম এ হালিম বাবলু, হাজী এমরান উদ্দীন, ইয়াকুব চৌধুরী নাজিম, হায়দার আলী, আনোয়ার হোসেন আরজু, মনজুর মিয়া, জিয়াউর রহমান জিয়া, মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, জসিম মিয়া, সাদেকুর রহমান রিপন, মো. হাসান, হাজী মো. জাহেদ, মনজুর কাদের, মো. হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়