Cvoice24.com

নতুন বাড়ি বানাতে লাগে ‘তাদের’ অনুমতি, দিতে হয় চাঁদা

সিভয়েস প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৯:০০, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২
নতুন বাড়ি বানাতে লাগে ‘তাদের’ অনুমতি, দিতে হয় চাঁদা

র‌্যাবের হাতে আটক দুজন

নিজের জমি, নিজের টাকা। তাও বাড়ি বানাতে লাগবে তাদের ‘অনুমতি’। তার জন্য দিতে হবে চাঁদা!

তারা হলেন— হাটহাজারী উপজেলার দেওয়ান নগর এলাকার আহাদ মিয়ার ছেলে মো. তারেক (২০) ও আলীপুর এলাকার আলী আহম্মদের ছেলে মো. সাকিব (২১)।

হাটহাজারীতে নির্মাণাধীন বাড়ির মালিকের কাছে চাঁদা দাবি করে র‌্যাবের জালে আটকে গেছেন তারা। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে হাজিরতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের হাতেনাতে আটক করা হয়।

এর আগে, গত ১৩ সেপ্টেম্বর এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর অভিযোগে মো. শামসু ওরফে চাঁদাবাজ শামসু (২৪) ও মো. মাসুদকে (২৫) আটক করে র‌্যাব।

র‌্যাব জানায়, হাটহাজারীতে ফুজিলাতুন নাহার রিপা নামে এক বাসিন্দা নতুন বাড়ি নির্মাণ করছিলেন। তাই নির্মাণাধীন বাড়ির জন্য ট্রাকে করে বালি নিয়ে আসেন। সেখানে ওই এলাকার চিহ্নিত চাঁদাবাজ মো. তারেক ও তার সহযোগীরা ভুক্তভোগীর কাছে ঘর নির্মাণের ‘অনুমতির’ জন্য চাঁদা দাবি করেন। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়ে প্রথমে ১০ হাজার টাকা দিয়ে তাদের বিদায় করেন ভুক্তভোগী। এরপর গত ১৩ সেপ্টেম্বর আবারও ফুজিলাতুন নাহার ট্রাক থেকে বালি নামানোর সময় আরেক দফায় ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে তারেকের সহযোগীরা। পরবর্তীতে ভুক্তভোগী টাকা না দিয়ে র‌্যাবের কাছে অভিযোগ করেন।

সে ঘটনায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর মো. শামসু এবং মো. মাসুদকে আটক করে র‌্যাব। পরে মূলহোতা ও তার আরেক সহযোগী হাটহাজারীর হাজিরতলী এলাকায় আত্মগোপনে থাকার খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়। মঙ্গলবার তাদের আটক করা হয়। 

র‍্যাবের সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার বলেন, অভিযোগ পেয়ে প্রথমে এ গ্রুপের দুইজনকে আটক করেছিলাম। পরে মূলহোতা তারেকের সন্ধান পেয়ে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। সেখান থেকে তারেকসহ তার আরেক সহযোগী আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দুজনেই দীর্ঘদিন যাবৎ চাঁদাবাজি ও ছিনতাই কাজে লিপ্ত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে। আটকের পর তাদের হাটহাজারী মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

-সিভয়েস/এমএম

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়