Cvoice24.com

চবিতে খালি মাঠে ‘আওয়ামী’ প্যানেলের গোল

চবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৯:৪৪, ১৭ জানুয়ারি ২০২২
চবিতে খালি মাঠে ‘আওয়ামী’ প্যানেলের গোল

বিরোধীদলবিহীন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে জয় লাভ করেছে আওয়ামী ও বামপন্থী সমর্থিত ‘হলুদ প্যানেল’। এর মধ্যে হলুদ দল থেকে মনোনয়ন না পেয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে জয় লাভ করেছেন দুই বিদ্রোহী প্রার্থী। 

এদিকে নির্বাচনে সভাপতিসহ চারটি পদে হাড্ডাহাড্ডি লাড়াই হলেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ সম্পাদকসহ ছয়জন সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। তবে এবারের শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াতপন্থী শিক্ষকরা কোনো প্যানেল না দিলেও ভোট প্রয়োগ করেছেন।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ৪ টা পর্যন্ত সমাজবিজ্ঞান অনুষদে চলে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। নির্বাচনে মোট ৮৬২ জন ভোটারের মধ্যে ৭১১ জন ভোট প্রদান করে। এর মধ্যে ১১টি ভোট বাতিল হয়। পরে সন্ধ্যা ৬ টায় নির্বাচনের ফল ঘোষণা করা হয়।

এতে প্রত্যক্ষ ভোটে সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক ড. সেলিনা আখতার। তিনি পেয়েছেন ৩৯১ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. হানিফ সিদ্দিকী পেয়েছেন ২৯৬ ভোট। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. সজীব কুমার ঘোষ।

নির্বাচনে জয়ী অন্যান্যরা হলেন সহ-সভাপতি পদে হলুদ দলের প্রার্থী ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক আবদুল হক, কোষাধ্যক্ষ পদে হলুদ দলের প্রার্থী চারুকলা ইন্সটিটিউটের অধ্যাপক মো. জসিম উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এস এ এম জিয়াউল ইসলাম।

এছাড়া সদস্য পদে জিন প্রকৌশল ও জৈবপ্রযুক্তি বিভাগের নাজনীন নাহার ইসলাম, বাংলা বিভাগের শারমিন মুস্তারী, সমাজতত্ত্ব বিভাগের মুহাম্মদ শোয়াইব উদ্দিন হায়দার, রসায়ন বিভাগের ফণীভূষণ বিশ্বাস, পদার্থবিদ্যা বিভাগের সৈয়দা করিমুন্নেছা ও আইন বিভাগের হোছাইন মোহাম্মদ ইউনুছ সিরাজী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। 

এর আগে শিক্ষক সমিতির নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী ১৯ ডিসেম্বর ছিল মনোনয়ন নেয়া এবং জমা দেয়ার শেষ তারিখ। এতে হলুদ দল থেকে ১১টি পদের পূর্ণ প্যানেল মনোনয়ন জমা পড়ে।

নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ছিল ২৩ ডিসেম্বর দুপুর ১২টা। গত ১১ ও ১৩ জানুয়ারি চবি শিক্ষক সমিতির কার্যালয়ে বেলা ১১ থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলে অগ্রিম ভোট। এতে ১৭১ জন ভোট দিয়েছেন।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়