Cvoice24.com
corona-awareness

গগনে গরজে মেঘ, ঘন বরষা...

সিভয়েস ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮:২৭, ১৫ জুন ২০২১
গগনে গরজে মেঘ, ঘন বরষা...

‘গগনে গরজে মেঘ, ঘন বরষা...’— কবিগুরুর কবিতার সুরে সুর মিলিয়ে ঠিক এভাবেই নিজের আগমনীর জানান দিলো বর্ষাকাল। আজ বর্ষা ঋতুর প্রথম দিনে সকালের বৃষ্টিপাতেই বর্ষার দ্বার উন্মোচন হল। গ্রীষ্মের ধুলোময় জীর্ণতাকে ধুয়ে গাঢ় সবুজের সমারোহে প্রকৃতি সেজেছে পূর্ণতায়। প্রকৃতির সর্বত্র সজীবতা ঢেলে নতুন সুরের বার্তা নিয়ে সবুজের সমারোহ নিয়ে এসেছে এই বর্ষা।

আজ মঙ্গলবার (১৫ জুন, ১ আষাঢ়) বর্ষার প্রথম দিন। গ্রীষ্মের অগ্নিঝরা দিনগুলো যখন প্রকৃতিকে করে বিবর্ণ ও শুষ্ক এবং জনজীবনকে অসহনীয় করে তোলে, তখনই বর্ষা রিমঝিম বৃষ্টি ঝরিয়ে প্রকৃতিকে করে তোলে সজীব। আষাঢ়ের প্রথম দিন শুরু হয়ে এই ঋতু চলবে শ্রাবণের শেষ দিন পর্যন্ত। কারণ আষাঢ়-শ্রাবণ দুই মাস বর্ষাকাল।

আষাঢ়ে প্রকৃতি রূপ-রঙে হয়ে ওঠে ঢল ঢল। তাপদাহে চৌচির মাঠ-ঘাট খাল-বিল বনবিথিকায় জেগে ওঠে নবীন প্রাণের ছন্দ। সময়-অসময়ে ঝমাঝম বৃষ্টি, কর্দমাক্ত পথঘাট, চারিধারে অথৈ থৈ থৈ পানিতে আবহমান বাংলার রূপ হয় অপরূপ রূপবতী সলিল দুহিতা। ফুলে ফুলে শোভিত হয় প্রকৃতি। তাল তমাল শাল পিয়াল আর মরাল কপোতের বন বীথিকায় চোখে পড়ে কদম, বকুল, জারুল, পারুল, কৃষ্ণচূড়া ও রাধাচূড়াসহ অসংখ্য ফুল।

গ্রীষ্মের রুদ্র প্রকৃতির গ্লানি আর জরাকে ধুয়ে মুছে প্রশান্তি স্নিগ্ধতা ও সবুজে ভরে তোলে আষাঢ়। প্রকৃতি প্রেমিক মানুষের কাছে তাই বর্ষা নিয়ে আসে অভিনব ব্যঞ্জনা। আর বাঙালি মননে সবচেয়ে বেশি রোমান্টিকতার সুর বেজেছে এই বর্ষায়। গানে-কবিতায়-সাহিত্যজুড়ে তারই প্রতিফলন ঘটেছে নানা ভাবে।

‘বাদল দিনের প্রথম কদম ফুল’ দিয়ে প্রণয় নিবেদন করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। কবি নজরুল ইসলামের কাছে বর্ষাকে মনে হয়েছে ‘বাদলের পরী’। তিনি লিখেছেন: ‘রিমঝিম রিমঝিম ঘন দেয়া বরষে/কাজরি নাচিয়া চল, পুর-নারী হরষে।’

শুধু রবীন্দ্রনাথ কিংবা নজরুল নন, বাংলা সাহিত্যের খ্যাত-অখ্যাত বহু কবিই বর্ষার রূপ-ঐশ্বর্যে মোহিত ও মুগ্ধ, বর্ষার আবাহনে উচ্ছ্বসিত ও মুখর। প্রকৃতির কবি জীবনানন্দ দাশ আষাঢ়কে বলেছেন, ‘ধ্যানমগ্ন বাউল-সুখের বাঁশি’।

এত কিছুর পরও এই মুগ্ধকর ঋতুরও রয়েছে সর্বগ্রাসী রূপ। অতি বৃষ্টিতে বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাসের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করে টিকে থাকতে হয়েছে এ জনপদের মানুষকে। তাই তো গবেষকদের কাছে বরাবরই মোহমুগ্ধ হয়ে উঠেছে নানা রূপের এ ঋতুটি।

রিমঝিম বৃষ্টিতে বিরহে রোদন হয়। টুপ টাপ বৃষ্টির নুপুর সারা দুপুরজুড়ে খেলা করে মন জোয়ারের ঢেউয়ে। তাইতো ভাবুক মন এই বর্ষায় নিরভাবনায় বলে ওঠে- ‘ওগো, বর্ষা এলো। এই বর্ষায় ধুয়ে যাক জীবনের সব ক্লেদ। ভালবাসায় পূর্ণ হয়ে উঠুক প্রকৃতি আর মানব মন’। বর্ষাকে ঘিরে এমন প্রত্যাশা যেন সবখানে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়