Cvoice24.com

এবার সেই ২ নম্বর ইট সরানোর নির্দেশ দিলেন সীতাকুণ্ডের মেয়র

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৪:৩৬, ১৭ মে ২০২২
এবার সেই ২ নম্বর ইট সরানোর নির্দেশ দিলেন সীতাকুণ্ডের মেয়র

সীতাকুণ্ড পৌরসভার কলেজ রোডে ২ নম্বর ইট সরানোর নির্দেশ দিয়েছেন মেয়র

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড পৌরসভার কলেজ রোড (মন্দির সড়ক) উন্নয়নের কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়ার পর এবার দুই নম্বর ইট সরানোর জন্য লিখিত নির্দেশ দিলেন মেয়র।

মঙ্গলবার (১৭ মে) দুপুরে সাইফকো ট্রেডার্স নামক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে লিখিত নির্দেশ দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম।

এর আগে গত ১২ মে বৃহস্পতিবার পৌর মেয়র, নির্বাহী প্রকৌশলী ও কয়েকজন কাউন্সিলর সড়কের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করেন। 

কোটি টাকার প্রকল্পে দুই নম্বর ইট ব্যবহারের অনুমোদন প্রকৌশলীর!

উল্লেখ্য, গত ৩০ এপ্রিল ‘কোটি টাকার প্রকল্পে দুই নম্বর ইট ব্যবহারের অনুমোদন প্রকৌশলীর’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন ছাপে সিভয়েস। এতে সড়কটির উন্নয়ন কাজে দুই নম্বর ইটের ব্যবহার হয়েছে বলে স্থানীয়দের দেওয়া নানা অভিযোগ ওঠে আসে। প্রতিবেদনটি নজরে এলে পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলমের নির্দেশনা পেয়ে ঠিকাদারদের সড়ক উন্নয়নের কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী নুরনবী।

তিনি সিভয়েসকে বলেন, ‘৩০ এপ্রিল শুক্রবার ও পরদিন শনিবার অফিস বন্ধ থাকার সুযোগ নিয়ে ঠিকাদার নিম্নমানের ইট ব্যবহার করে থাকতে পারে। অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে মেয়রের নির্দেশমতো আমরা কাজ বন্ধ রাখার আদেশ দিয়েছিলাম। বৃহস্পতিবার (১২ মে) মেয়রসহ পৌর প্রকৌশলী ও কয়েকজন কাউন্সিলর সড়কের কাজ পরিদর্শন করেন। এ সময় কাজে ব্যবহৃত ইট পরীক্ষা করে দুই নম্বর প্রমান হওয়ায় সব ইটগুলো অপসারণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

দুই নম্বর ইটে কোটি টাকার রাস্তা, কাজ বন্ধ করলেন মেয়র

পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা বদিউল আলম বলেন, কাজের মান নিয়ে আমরা কখনো আপোষ করি না। বন্ধের সুযোগে ঠিকাদারের লোকজন নিম্নমানের ইট ব্যবহার করেছে। ইটগুলো অপসারণের জন্য লিখিত নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সাইফকো ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী (নুর মোহাম্মদ) মানিক মাস্টার বলেন, কাজটা আমি পেলেও কাজটা নিয়ে হারুনের সাথে আমার একটা চুক্তি হয়। সেই মোতাবেক এই কাজটি হারুন করছিলেন। এই কাজে দুই নম্বর ইট ব্যবহার করেছে তিনি আর বদনামটা আমার ঘাড়ে পড়েছে। তিনি আক্ষেপ করে বলেন আমাকে বিপদে ফেলে হারুন এখন পাশ কাটার চেষ্টা করছে।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়