Cvoice24.com

প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে রামগড় ইউপি নির্বাচন

রামগড় প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১০:৪১, ৩০ নভেম্বর ২০২১
প্রচার-প্রচারণায় জমে উঠেছে রামগড় ইউপি নির্বাচন

ভোট অনুষ্ঠিত হবে ২৬ ডিসেম্বর

রামগড়ে জমে উঠেছে ইউপি নির্বাচনের প্রচারণা। উপজেলার ১ নম্বর রামগড় ইউনিয়ন পরিষদ এবং ২ নম্বর পাতাছড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ বেড়েছে। একাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে থাকায় বাড়তি সতর্ক আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে চায়ের আড্ডা ও বাড়ি, পাড়া-মহল্লায় চলছে প্রার্থীদের প্রচারণা।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ২টি ইউপিতে ১০০জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করে। গতকাল ২৯ নভেম্বর যাচাই-বাচাই শেষে সব প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে রির্টারিং অফিসার। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৬৫ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ২২ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। 

১নং রামগড় ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৯ জন, মহিলা সদস্য পদে ৯ জন ও সাধারণ ইউপি সদস্য পদে ৩৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। অন্যদিকে ২নং পাতাছড়া  ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য পদে ১৩ ও সাধারণ সদস্য পদে ২৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। 


১ নম্বর রামগড় ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ শাহ আলম ও ২ নং পাতাছড়া ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন কাজী নুরুল আলম আলমগীর। তিনি রামগড় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। 

দলের সমর্থন না পেয়েও দলীয় নেতাদের মধ্যে থেকে প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন আরো ১১জন প্রার্থী। 

১নম্বর রামগড় ইউপিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো: শাহ আলম, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আবুল হাশেম খান ও খায়েজ আহাম্মদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল মান্নান, করিমুল হক মজুমদার, মো: ইউনুছ, কাজী আবু আহাম্মদ আইয়ুব, দেলোয়ার হোসেন ও সুজাই চৌধুরী।

২নম্বর পাতাছড়া ইউপিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজী নুরুল আলম আলমগীর, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মনিন্দ্র ত্রিপুরা ও বরুন বিকাশ রোয়াজা। সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আছেন অংসালা মারমা।  

২নম্বর পাতাছড়া  ইউপিতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কাজী নুরুল আলম আলমগীর জানান, জয়ের ব্যাপারে তিনি শত ভাগ আশাবাদী। জনগণের ইচ্ছেতেই তিনি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। নির্বাচিত হলে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে তিনি কাজ করে যাবেন বলে জানান।

এই ইউপির বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মনিন্দ্র ত্রিপুরা জানান, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের সুযোগ রয়েছে। দল থেকে মনোনয়ন না পাওয়ায় তিনি বিষয়টি জেলা আওয়ামী লীগের উপর ছেড়ে দিয়েছেন। তিনি আরো জানান, প্রার্থীতা উন্মুক্ত করা হলে তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন এবং জয়ী হবেন বলে জানান।

১নম্বর রামগড় ইউপির বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল হাসেম খান জানান, নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হবেন এবং জয়ের ব্যপারে শতভাগ আশাবাদী। গত নির্বাচনেও তিনি প্রার্থী ছিলেন। জোর করে অল্প ভোটের ব্যবধানে তাকে হারানো হয়েছে। তবে এ নির্বাচনে জনগণের অনুরোধেই তিনি প্রার্থী হয়েছেন।

এই ইউপির আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মোহাম্মদ শাহ আলম জানান, বিগত ২টি নির্বাচনে তিনি জয়ী হয়েছেন। এ নির্বাচনেও তিনি জয়লাভ করবেন বলে আশাবাদী।তিনি আরো জানান, বিগত বছর গুলোতে তার কাজ দেখেই মানুষ তাকে আবার নির্বাচিত করবে।

১নম্বর ইউপির বাসিন্ধা আবুল হোসেন জানান, জনপ্রতিনিধি নির্বাচনের ক্ষেত্রে আমাদের সচেতন হতে হবে। পিছিয়ে পড়া রামগড় ইউপিকে এগিয়ে নিতে এবার তারা স্থানীয়ভাবে বসবাসকারী যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিতে চান। 

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১নং রামগড় ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫শত ১৫জন এর মধ্যে পুরুষ ৫ হাজার ৪শত ২৪ এবং মহিলা ৫ হাজার ৯১ জন ভোটার রয়েছে। অপরদিকে ২নং পাতাছড়া ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ১শত ৭০ জন এরমধ্যে পুরুষ ৫ হাজার ৮৫ জন মহিলা ৫ হাজার ৮৫জন। দুই ইউপিতে ১৮টি ভোট কেন্দ্রে ৫৮টি ভোটকক্ষে ভোট গ্রহণ করা হবে। 

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী- চতুর্থ দাপের নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২৯নভেম্বর,বাছাইয়ের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ৩০ নভেম্বর থেকে ২ ডিসেম্বর থেকে, আপিল নিষ্পত্তি ৩-৫ ডিসেম্বর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৬ ডিসেম্বর, প্রতীক বরাদ্দ ৭ ডিসেম্বর এবং ভোটগ্রহণ ২৬ ডিসেম্বর।

Add

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়